লালমনিরহাট-সুন্দরবন এক্সপ্রেসের যাত্রা বাতিল


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১১ আগস্ট ২০১৯, ১২:০২

শিডিউল বিপর্যয়ের কারণে লালমনিরহাট এক্সপ্রেস ও সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রা বাতিল করা হয়েছে। এছাড়া রংপুরগামী রংপুর এক্সপ্রেস চালানো হবে বিকল্প আরেকটি ট্রেন দিয়ে। কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন ম্যানেজার আমিনুল হক রোববার (১১ আগস্ট) সকালে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আমিনুল হক বলেন, বিকল্প আরেকটি ট্রেন দিয়ে রংপুর এক্সপ্রেস চালানো হবে। দুপুর ১টার পর সেটি কমলাপুর থেকে ছাড়বে। এটি ছাড়ার সময় ছিল সকাল ৯টায়।

এছাড়া লালমনিরহাট ও সুন্দরবন ঈদ স্পেশাল এক্সপ্রেস ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় নিয়ে আমিনুল হক জানান, নির্ধারিত সময়ের চেয়ে ২০ ঘণ্টা বেশি দেরি হবে তাই যাত্রা বাতিল করা হয়েছে। যারা ট্রেনের টিকিট কেটেছিলেন তারা তা ফেরত দিয়ে কাউন্টার থেকে টাকা নিয়ে যেতে পারবেন।

স্টেশনে ট্রেনের শিডিউল তুলে ধরা ডিজিটাল মনিটর থেকে পাওয়া তথ্যানুযায়ী, ঢাকা থেকে খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস সকাল ৬টা ২০ মিনিটে ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও সেটি এখনো কমলাপুরেই আসেনি। প্রায় সাড়ে সাত ঘণ্টা দেরিতে ট্রেনটি খুলনা থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা করে ভোর ৩টা ৪৫ মিনিটে।

ঢাকা-রাজশাহী রুটের ধূমকেতু এক্সপ্রেস সকাল ৬টায় কমলাপুর ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও এখনো রাজশাহী থেকেই যাত্রা করেনি ট্রেনটি। প্রায় ১০ ঘণ্টা দেরিতে রাত ১১টা ২০ মিনিটে রাজশাহী থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা করবে ট্রেনটি।

ঢাকা থেকে রংপুরগামী রংপুর এক্সপ্রেস সকাল ৯টায় ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও ৩ ঘণ্টা দেরিতে দুপুর ১২টায় সেটির ছেড়ে যাওয়ার নতুন সময় দেখানো হচ্ছে।

অন্যদিকে ঢাকা থেকে চিলাহাটির উদ্দেশ্যে নীলসাগর এক্সপ্রেস কখন ছেড়ে যাবে তা এখনো জানে না স্টেশন কর্তৃপক্ষ। আর ঢাকা থেকে পঞ্চগড়গামী ১০টার একতা এক্সপ্রেস এক ঘণ্টা দেরিতে ১১টায় কমলাপুর ছেড়ে যাবে বলে।

তবে কিছু ট্রেন পূর্ব নির্ধারিত সময়ের স্বল্প বিলম্বে কমলাপুর থেকে ছেড়ে যায়। সকাল পৌনে ৭টায় প্রায় আধা ঘণ্টা দেরিতে সিলেটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় পারাবত এক্সপ্রেস। ৭টা ২ মিনিটে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় সোনারবাংলা এক্সপ্রেস। দেওয়ানগঞ্জগামী ভোর ৫টার ট্রেন ৫টা ৪৪ মিনিটে ছেড়ে যায় কমলাপুর থেকে।

ঈদের আগের দিনও ট্রেনের এমন শিডিউল বিপর্যয়ে ভোগান্তিতে পড়তে হয় সাধারণ যাত্রীদের। ঈদের দিন গন্তব্যে পৌছাতে পারবে কিনা সেই আশঙ্কাও রয়েছে অনেকের মধ্যে।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ

 




Loading...
ads





Loading...