বড় হচ্ছে মন্ত্রিসভা


poisha bazar

  • সাইফুল ইসলাম
  • ১২ জুলাই ২০১৯, ০৯:১৮

মন্ত্রিসভায় বেশ কয়েকজন মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীর পদ শূন্য রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ পদগুলো পূরণ করার উদ্যোগ নিয়েছেন। এরই অংশ হিসেবে পদোন্নতি দিয়ে পূর্ণ মন্ত্রী করা হচ্ছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমেদকে। প্রতিমন্ত্রী হিসেবে যোগ দিচ্ছেন আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। আগামীকাল তারা দু’জন শপথ নেবেন। এ ছাড়া মন্ত্রিসভায় স্থান পেতে পারেন আরো বেশ কয়েকজন। কাউকে কাউকে টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী করা হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের উচ্চ পর্যায়ের একটি সূত্র। টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতাসীন হওয়ার পর ৭ মাসের মাথায় বাড়ানো হচ্ছে মন্ত্রিসভার আকার। এবার শরিক দলের কেউ কেউ মন্ত্রিসভায় স্থান পেতে পারেন। আর আগে পাঁচ মাসের মাথায় চার মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর দফতর পুুুুনর্বণ্টন ও রদবদল করা হয়। এদিকে দুই মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর শপথ গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম। তবে তিনি কারো নাম বলেননি।

মন্ত্রিপরিষদের আকার বাড়ানোর ইঙ্গিত দিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, বেশ কয়েকটি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীর পদ খালি পড়ে আছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এখতিয়ার এটি। তিনি নতুন কাকে কোথায় নেবেন, তিনিই বলতে পারবেন। এদিকে নতুন মন্ত্রী নিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগেও চলছে ব্যাপক আলোচনা। কেউ বলছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরো কয়েক নবীনদের সুযোগ দেবেন। অন্যদের মতে বঞ্চিত ও পুরনোদের কারো কারো জায়গা হতে পারে মন্ত্রিসভায়। আবার কেউ বলছেন জোট শরিকদের টানা হতে পারে। মন্ত্রিপরিষদ সূত্রে জানা যায়, সরকারের মেয়াদের সাত মাসের মাথায় মন্ত্রিসভা সম্প্রসারণের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা ইমরান আহমদকে পূর্ণ মন্ত্রী করা হচ্ছে। ইমরান আহমদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ছিলেন। পরে তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সক্রিয় হন। আর আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক সংসদ সদস্য ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরাকে প্রতিমন্ত্রী করা হচ্ছে। আগামীকাল শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বঙ্গভবনে মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যদের শপথ অনুষ্ঠিত হবে।

সূত্র মতে, নতুন-পুরনোর মিশেল থাকবে সম্প্রসারিত মন্ত্রিসভা। সংসদ সদস্য নন এমন অন্তত দু’জন টেকনোক্র্যাট কোটায় মন্ত্রিত্ব পেতে পারেন। যে নামগুলো বেশি আলোচিত তারা হলেন- আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, কিশোরগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা জাকিয়া নূর এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। আলোচনায় রয়েছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার, বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা। এখনো পূর্ণাঙ্গ মন্ত্রীর পদ শূন্য রয়েছে- মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়, নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়, মৎস্য ও পশু সম্পদ মন্ত্রণালয়, প্রাথমিক ও গণস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়। এ ছাড়া গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়সহ অন্যান্য বেশ কয়েকটি মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রীর পদ খালি রয়েছে। এর আগে সরকার গঠনের পাঁচ মাসের মাথায় মন্ত্রিসভায় প্রথম পরিবর্তন এনেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এই পরিবর্তনে নতুন কেউ মন্ত্রিসভায় যোগও হননি আর কেউ বাদও পড়েননি। তবে দুটি মন্ত্রণালয়ে মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীদের দায়িত্ব ভাগাভাগি হয়েছে। আর প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান হয়েছেন বদলি। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় এবং ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ে দায়িত্বরত মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের দায়িত্ব ভাগ করে দেয়া হয়। মোস্তাফা জব্বার এখন শুধু ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের দায়িত্ব পালন করছেন। প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এই মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের দায়িত্ব পালন করছেন। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম ইসলামকে স্থানীয় সরকার বিভাগে রেখে প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্যকে শুধু পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল বিজয়ের পর গত ৭ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে টানা তৃতীয় মেয়াদে শপথ নেন শেখ হাসিনা। ২৪ জন মন্ত্রী, ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী এবং তিন জন উপমন্ত্রীকে নিয়ে নতুন সরকারের মন্ত্রিসভা সাজান তিনি।

মানবকণ্ঠ/এএম




Loading...
ads




Loading...