চলে গেলেন বর্ষীয়ান সাংবাদিক তোয়াব খান


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৩:০১,  আপডেট: ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৩:২৩

একুশে পদকপ্রাপ্ত সাংবাদিক, দৈনিক বাংলার সম্পাদক তোয়াব খান চলে গেছেন না ফেরার দেশে। বর্ষীয়ান এ সাংবাদিক আজ বেলা ১২.৪০ মিনিটে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

রাজধানীর বেসরকারি একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। তাঁকে আইসিইউ’তে রাখা হয়েছিল। যেকোনো সময় তাঁকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হতে পারে বলে জানিয়েছিলেন চিকিৎসকরা।

মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৭ বছর। বার্ধক্যজনিত জটিলতায় অসুস্থ হলে তাঁকে রাজধানীর একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।  শনিবার ১২.৪০ মিনিটে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য, গত ১৯ সেপ্টেম্বর রাতে তাঁকে হাসপাতালে আনা হয়। তোয়াব খান ২০২০ সালের নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন।

সততার সঙ্গে জীবনভর সাংবাদিকতা করা এই সর্বজনশ্রদ্ধেয় সাংবাদিক তোয়াব খানের সাংবাদিকতা জীবনের শুরু ১৯৫৩ সালে সাপ্তাহিক জনতার মাধ্যমে। ১৯৫৫ সালে যোগ দেন দৈনিক সংবাদে। ১৯৬১ সালে তিনি দৈনিক সংবাদের বার্তা সম্পাদক হন। এরপর ১৯৬৪ সালে যোগ দেন দৈনিক পাকিস্তানে। দেশ স্বাধীনের পর দৈনিক পাকিস্তান থেকে বদলে যাওয়া দৈনিক বাংলার প্রথম সম্পাদক ছিলেন তোয়াব খান।  

১৯৭২ সালের ১৪ জানুয়ারি তিনি দৈনিক বাংলার সম্পাদকের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ১৯৭৩ থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রেস সচিব ছিলেন। প্রধান তথ্য কর্মকর্তা ও প্রেস ইনস্টিটিউট অফ বাংলাদেশের (পিআইবি) মহাপরিচালকের দায়িত্বও পালন করেন।

মুক্তিযুদ্ধের সময় স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে শব্দসৈনিকের ভূমিকা পালন করেন তোয়াব খান। সে সময় তার আকর্ষণীয় উপস্থাপনায় নিয়মিত প্রচারিত হয় ‘পিণ্ডির প্রলাপ’ নামের অনুষ্ঠান।

২০১৬ সালে একুশে পদক পাওয়া দৈনিক এই সাংবাদিক জনকণ্ঠের শুরু থেকে গত বছরের অক্টোবর পর্যন্ত পত্রিকাটির উপদেষ্টা সম্পাদক ছিলেন। এরপর নতুন আঙ্গিকে ও ব্যবস্থাপনায় প্রকাশিত দৈনিক বাংলার সম্পাদকের দায়িত্ব নেন তিনি।


poisha bazar