নোয়াখালী‌তে সাংবা‌দিকের উপর হামলা

নোয়াখালী‌তে সাংবা‌দিকের উপর হামলা
সাংবাদিক মানিক মিয়াজী - ফাইল ছবি

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৫ আগস্ট ২০২০, ২২:১৫

নোয়াখালীতে সদর উপজেলার নলুয়া বাজার সংলগ্ন এলাকায় সোমবার রাত ১০টার দিকে সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসীরা আক্রমণ ক‌রে। আহত সাংবাদিকের নাম মানিক মিয়াজী। তিনি ঢাকা ট্রিবিউনের সাবেকে স্টাফ রিপোর্টার।

উক্ত হামলার ঘটনায় নোয়াখালী সুধারাম থানায় এক‌টি মামলা হ‌য়ে‌ছে।

পু‌লি‌শের প্রাথ‌মিক তদ‌ন্তে আক্রমনকারী সন্ত্রাসীরা সবাই সুধারাম থানার ২নং দাদপুর ইউনিয়নের হুগলি এবং কৃপালপুর গ্রামের অধিবাসী।

মানিক মিয়াজী তার লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন, ঈদ উপলক্ষে তিনি নোয়াখালী উপজেলার ব্রক্ষ্মপুর ইউনিয়নের চর মটুয়ায়, তার গ্রামের বাড়িতে আসেন। সোমবার বিকেলে তিনি তার ব্যক্তিগত গাড়িতে (ঢাকা মেট্টো-গ-১৩-৫৫৫৬) মাইজদী শহরে আসেন। কাজ শেষে রাত ১০টার দিকে তিনি বাড়ির উদ্দেশে রওনা দিয়ে, দাদপুর ইউনিয়নের নলুয়া বাজার থেকে খানিকটা দক্ষিণে পৌঁছালে ক‌যেকজন সন্ত্রাসী তার উপর হামলা ক‌রেন।

পু‌লিশ তদ‌ন্তে জানাযায় কৃপালপুর গ্রামের বেলাল উদ্দিনের ছেলে সুজন (২৮) ও হুগলি গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে হৃদয় হাসানের (২৫) নেতৃত্বে ৮-৯ জন যুবক কয়েকটি মোটরসাইকেলে এসে তারা হামল‌াকি‌রে।

এ বিষ‌য়ে মা‌নিক মিয়াজী জানান, সন্ত্রাসীরা তার গাড়ির গতি রোধ করে তাকে টেনে হিছড়ে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে গাড়ি থেকে নামিয়ে মারধর করে তার কাছে থাকা নগদ ৫৫ হাজার টাকা, পরিচয়পত্র ও গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র নিয়ে যায়। এসময় হামলাকারীরা গাড়ি ভাংচুর করে এবং এক পর্যায়ে গাড়িতে সাংবাদিক স্টিকার দেখে উত্তেজিত হয়ে মেরে ফেলার চেষ্টা করে। মামলার প্রধান আসামী চিৎকার করে বলতে থাকেন একে ছাড়া যাবে না, এ সাংবাদিক। এ সময় তিনি দৌড়ে স্থানীয় একটি বাড়িতে আশ্রয় নেন এবং আশেপাশের লোকজনের সহযোগিতায় এ যাত্রায় রক্ষা পায়। পরে স্থানীয়দের সহাযোগীতায় তিনি নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে এসে চিকিৎসা নেন। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোন আসামী গ্রেপ্তান হয়নি।

এ ব্যাপারে সুধারাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) টমাস বড়ূয়া বলেন, হামলার ঘটনায় মঙ্গলবার বিকেলে সাংবাদিক আব্দুল মালেক মানিক মিয়াজী বাদী হয়ে ৯ জনের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। পুলিশ তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেবে।

এ ব্যাপারে আহত সাংবাদিক মিয়াজী জানান, প্রথমে আক্রমণ হয়েছিল ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্যে, পরে গাড়িতে সাংবাদিক লেখা দেখার পর হত্যার চেষ্টা করে সন্ত্রাসীরা।

মানবকণ্ঠ/আরএস





ads







Loading...