চুলের সৌন্দর্য ধরে রাখার ঘরোয়া উপায়


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২০:৩১,  আপডেট: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২৩:৪৮

চুল সুন্দর থাকুক এই প্রত্যাশা থাকে সবার। কিন্তু নানা অযত্নে চুল ধীরে ধীরে নষ্ট হয়ে যায়। হারাতে থাকে সৌন্দর্য। সেইসঙ্গে চুল পড়া, খুশকি, চুলের আগা ফাটা, চুল রুক্ষ হয়ে যাওয়াসহ অনেক সমস্যা শুরু হয়। চুল ভালো রাখার জন্য সচেষ্ট হতে হবে আপনাকেই। যতই ব্যস্ত থাকুন না কেন, কিছুটা সময় বের করে নিতে হবে চুলের যত্ন।

চুলের যত্নে বাইরে থেকে কেনা কেমিক্যালযুক্ত উপাদানের বদলে বেছে নিন ঘরোয়া সব উপাদান। ঘরোয়া উপায়ে চুলের যত্ন নিলে চুল নষ্ট হওয়ার ভয় থাকে না। সুফল মেলে সহজেই। তাই চুল ঠিক করার জন্য পার্লারে ছোটার প্রয়োজন নেই। বরং ঘরে থাকা বিভিন্ন উপাদানে নিতে পারেন যত্ন। সেজন্য জানা থাকা চাই সঠিক উপায়। আজ চলুন জেনে নেওয়া যাক চুলের যত্নে তিনটি ঘরোয়া হেয়ারপ্যাক তৈরি ও ব্যবহার করার উপায়-

মেহেদি, আমলকি ও মেথির হেয়ার প্যাক:একটি কাচের বাটি নিয়ে তাতে তিন টেবিল চামচ মেহেদির গুঁড়া নিন। তার সঙ্গে মেশান দুই টেবিল চামচ আমলকির গুঁড়া। এবার মেশান পরিমাণমতো মেথির গুঁড়া। পরিমাণমতো পানি দিন। পানি খুব বেশি কিংবা কম হবে না। ঘন একটি মিশ্রণ হবে। মিশ্রণটি তৈরি করে এক ঘণ্টা রেখে দিন। এরপর পুরো মাথার ত্বকে ও চুলে লাগিয়ে নিন। চুলের গোড়ায় ভালোভাবে লাগিয়ে নিন। এভাবে এক ঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু করে নিন।

মেহেদি, দই ও ডিমের হেয়ার প্যাক:চুলের উজ্জ্বলতা বাড়াতে ও চুলকে কোমল করতে কাজ করে এই হেয়ার প্যাক। এতে আছে প্রচুর প্রোটিন ও কন্ডিশনিং উপাদান। যা চুল ভালো রাখতে কাজ করে। এই প্যাক তৈরির জন্য দুই টেবিল চামচ মেহেদির গুঁড়া নিন। তার সঙ্গে মেশান এক চামচ শিকাকাই পাউডার। এবার তাতে এক চামচ দই ও একটি ডিম মিশিয়ে নিন। মেহেদি ও শিকাকাই পাউডারের সঙ্গে পানি মিশিয়ে সারারাত রেখে দিন। সকালে উঠে একটি ডিম ও সামান্য টক দই মিশিয়ে দিন। মিশ্রণটি মাথায় লাগিয়ে নিন ভালো করে। এভাবে এক ঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু করে নিন।

মেহেদি ও নারিকেলের দুধের হেয়ার প্যাক:আধা কাপ মেহেদির গুঁড়া নিন। তার সঙ্গে এক কাপ নারিকেলের দুধ নিন। চার টেবিল চামচ অলিভ অয়েল মেশান। প্রত্যেক উপাদান ভালো করে একটি বাটিতে মিশিয়ে নিন। এই হেয়ার প্যাক আপনার চুলে ও স্ক্যাল্পে ভালো করে লাগিয়ে নিন। এক ঘণ্টা রেখে সালফেট ফ্রি শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। শ্যাম্পু করার পর চুলে কন্ডিশনার ব্যবহার করবেন।

মানবকণ্ঠ/কেএইচ


poisha bazar