পূজার মিষ্টান্ন


poisha bazar

  • মানবকণ্ঠ ডেস্ক
  • ০৭ অক্টোবর ২০১৯, ১৯:০০

পূজা প্রায় শেষের দিকে। তাতে কি? বাড়িতে অতিথি সমাগম তো আর থেমে নেই। চলছে পূজা আর বাড়িতে নানা পদের মিষ্টান্ন থাকবে না, তা কি হয়? তাই পূজার শেষের দিকে আমাদের আয়োজনে রয়েছে নানা পদের মিষ্টান্ন।

খেজুর গুড়ের নারিকেল নাড়ু

উপকরণ: নারিকেল আধাবাটা ২ কাপ, খেজুর গুড় ৪ কাপ, ঘি ১ টেবিল চামচ।

প্রণালি: প্যানে ঘি দিন। যাতে নারিকেল দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে তলায় ধরে না যায়। এরপর আস্তে আস্তে নারিকেল ঢেলে দিন। এরপর গুড় দিন। একদিকে নাড়তে থাকুন, একটুপর গুড় গলে আসবে এবং নারিকেল পাক ধরবে। আঠালো ভাব ও সুন্দর গন্ধ বের হলে নামিয়ে ফেলুন। গরম থাকা অবস্থায় নাড়–র আকার বানিয়ে পরিবেশন করুন।

সন্দেশ বাহারি

উপকরণ: ছানা ২ কাপ, আইসিং সুগার ৪ কাপ, নলেন গুড় ৪ টেবিল চামচ, পেস্তাকুচি আধা চা চামচ, চেরি কুচি ১টি।

প্রণালি: ২ লিটার দুধ এক বলক এনে ১ কাপ পানি ও সিরকা একসঙ্গে মিশিয়ে দুধে ঢেলে ছানা বানিয়ে নিন। ছানার পানি ঝরিয়ে নিন। এবার কাঁচা ছানা ভালো করে মথে তার সঙ্গে চিনি মিশিয়ে গোল বানিয়ে মাঝখানে গর্ত করে কয়েক ফোঁটা নলেন গুড় দিয়ে মুখ বন্ধ করে কোনা ডাইসের মধ্যে ভরে চাপ দিয়ে বের করে নিন। এরপর ওপরে বাদাম ও চেরি কুচি দিয়ে ডেকোরেশন করুন।

গুড়ের পানতোয়া

উপকরণ: ছানা ২ কাপ, ময়দা আধা কাপ, মাওয়া দেড় কাপ, গুড় ১ টেবিল চামচ, এলাচ গুড়া সামান্য, ঘি সোয়া ৩ টেবিল চামচ, খাবার সোডা আদা চা চামচ, তেল ভাজার জন্য।

প্রণালি: ছানা গ্রেট করে নিন। অন্য পাত্রে ঘি, ময়দা, সোডা, গুড়, এলাচ গুড়া একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। এবার ছানার সঙ্গে মেখে গোল্লা বানিয়ে ডুবোতেলে ভেজে নিন। ভাজা হলে নামিয়ে সঙ্গে সঙ্গে সিরায় ডুবিয়ে দিন। এভাবে কয়েক ঘণ্টা রাখুন।
সিরা: পানি ৪ কাপ, গুড় ২ কাপ। একসঙ্গে জ্বাল দিয়ে সিরা করে নিন।

মানবকণ্ঠ/এইচকে 




Loading...
ads





Loading...