লকডাউনের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট, গুনতে হলো জরিমানা


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৫ মে ২০২১, ১৩:৪২,  আপডেট: ০৫ মে ২০২১, ১৩:৪৪

লকডাউনের বৈধতা নিয়ে চ্যালেঞ্জ করে আদালতে রিট করেছিলেন তিনি। তিনি আইনজীবী ড. ইউনুছ আলী আকন্দ। অবশেষে তার রিট খারিজ করে দিলেন আদালত। শুধু তাই নয়, বার বার বলার পরও শুনানিতে উপস্থিত না হওয়ায় আদালত ইউনুছ আলী আকন্দকে ১০ হাজার টাকা জরিমানাও করেছেন।

আদালত বলেছেন, তিনি কোর্টে মামলা করে সাংবাদিকদের জানানো পরে আর শুনানিতে আসেন না বলেই এ জরিমানা করা হয়েছে।

বুধবার (৫ মে) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সরদার রাশেদ জাহাঙ্গীরের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এসব আদেশ দেন।

গত ২৫ এপ্রিল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে জরুরি অবস্থা জারি করা ছাড়া সরকার ঘোষিত লকডাউন দেয়ার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে জনস্বার্থে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় একটি রিট করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুছ আলী। রিটে মন্ত্রিপরিষদ সচিব এবং কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটিকে বিবাদী করা হয়।

কিন্তু এদিন পূর্বনির্ধারিত শুনানিতে উপস্থিত না থাকায় লকডাউন ঘোষণার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করা রিটটি সরাসরি খারিজ করে দেয় আদালত। একই সঙ্গে রিট করে আদালতে উপস্থিত না থাকায় ১০ হাজার টাকা জরিমানা (কস্ট) করা হয়েছে।

আদালত এ সময় মন্তব্য করেন, রিট করে তিনি পত্র-পত্রিকায় নিউজ দেন কিন্তু রিট তালিকায় উঠলে শুনানিতে উপস্থিত থাকেন না।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সংলাপে বসানোর দাবিতে একটি রিট করেছিলেন ইউনুছ আলী। সেবারও শুনানিতে উপস্থিত না থাকায় আদালত তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছিলেন।

মানবকণ্ঠ/এনএস


poisha bazar

ads
ads