ওসি প্রদীপসহ ৭ জন কারাগারে

মানবকণ্ঠ

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ০৬ আগস্ট ২০২০, ১৮:৩১,  আপডেট: ০৬ আগস্ট ২০২০, ১৯:০৭

সাবেক মেজর সিনহার মৃত্যুর ঘটনায় টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ৭ জনকে কক্সবাজার কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। এ তথ্য মানবকণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজার জজ কোর্টের পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাড. ফরিদুল আলম। 

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার আগে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশয়াল আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট হেলাল উদ্দিন আসামিদের কারাগারে প্রেরণের এ নির্দেশ দেন। 

যাদেরকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে তারা হলেন- টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাস, ইসাব্লাপুর পুলিশ ফাঁড়ির সাবেক আইসি লিয়াকত আলী, এএসআই নন্দলাল রফিক, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল‌ কামাল হোসেন, কনস্টেবল আব্দুল্লাহ আল মামুন ও এএসআই লিটন মিয়া। নয়জন আসামির মধ্যে আদালতে অনুপস্থিত ছিলেন- এএসআই টুটুল ও কনস্টেবল মোঃ. মোস্তফা। 

এর আগে বৃহস্পতিবার (০৬ আগস্ট) বিকেলে তাদেরকে আদালতে তোলা হয়। জানা গেছে, আইনগত প্রক্রিয়ায় প্রদীপকে র‌্যাবের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (০৬ আগস্ট) চট্টগ্রাম থেকে পুলিশ হেফাজতে কক্সবাজারে নেয়া হয় ওসি প্রদীপ কুমার দাশকে। অপরদিকে, বাহারছড়া ফাঁড়ির ইনচার্জ লিয়াকতসহ ৮ জনকে কক্সবাজার আদালতে তোলা হয়েছে।

বুধবার (০৫ জুলাই) রাতে সাবেক মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান নিহতের ঘটনাকে কেন্দ্র করে টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাসকে প্রত্যাহার কর হয়।

এরআগে, টেকনাফ উপজেলা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারহার আদালতে ৯ পুলিশ সদস্যকে আসামি করে মামলা করেন তার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। গতরাতে মামলাটি টেকনাফ থানায় পৌঁছার পর আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

গত ৩১ জুলাই ঈদের আগের রাতে টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর পুলিশ চেকপোস্টে গুলিতে নিহত হন সাবেক মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান (৩৬)। তার গাড়িতে থাকা তার সঙ্গী সিফাতের ভাষ্যমতে, সিনহাকে কোনোরূপ জিজ্ঞাসাবাদ ছাড়াই চেকপোষ্টে গাড়ি থেকে নামতে বলে চার রাউন্ড গুলি ছুঁড়ে হত্যা করেন পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই লিয়াকত আলী।

মানবকণ্ঠ/এইচকে





ads







Loading...