আমরণ অনশনে শিক্ষানবিশ আইনজীবীরা


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১১ নভেম্বর ২০১৯, ১৭:০০

পাঁচ দফা দাবিতে আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন করেছেন শিক্ষানবিশ আইনজীবীরা। সোমবার (১১ নভেম্বর) সকাল থেকে তারা এ অনশন কর্মসূচি শুরু করেন। অনশনে ঢাকার বাইরের বিভিন্ন আইনজীবী সমিতির শিক্ষানবিশ আইনজীবীরাও যুক্ত হয়েছেন।

শিক্ষানবিশ আইনজীবীদের ৫ দফা দাবি হলো-
১. অবিলম্বে চলতি বছরের এনরোলমেন্ট পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা
২. আইনজীবী তালিকাভুক্তির সর্বশেষ অনুষ্ঠিত লিখিত পরীক্ষার খাতা সব বিচারককে দেখার ব্যবস্থা করতে হবে। এমসিকিউ, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা ছয় মাসের মধ্যে সম্পন্ন করতে হবে
৩. খাতা জালিয়াতি রোধে লিখিত পরীক্ষার খাতার ওপর (ওএমআর) শিট আধুনিক প্রযুক্তির সংযোজনের ব্যবস্থা রাখতে হবে
৪. আইনজীবী তালিকাভুক্তির সর্বশেষ অনুষ্ঠিত লিখিত পরীক্ষার খাতা তৃতীয় পরীক্ষক দ্বারা রিভিউয়ের ব্যবস্থা করতে হবে
৫. অবিলম্বে ২০১৭ সালের সুপ্রিম কোর্টের রায় কার্যকরীকরণ-পূর্বক প্রতি বছর এনরোলমেন্ট পরীক্ষা নিতে হবে।

সর্বশেষ অনুষ্ঠিত লিখিত পরীক্ষার খাতা পুনর্মূল্যায়নসহ পাঁচ দফা দাবিতে সুপ্রিম কোর্ট চত্বরে আমরণ অনশন করছেন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা শিক্ষানবিশ আইনজীবীরা।

অনশনে থাকা শেখ মাহদী হাসান ও মহিউদ্দিন মামুন বলেন, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের আইনজীবী অন্তর্ভুক্তির (এনরোলমেন্ট) পরীক্ষা নিয়মিত করাসহ পাঁচ দফা দাবিতে আমরণ অনশন পালন করা হচ্ছে।

অনশনে থাকা শিক্ষানবিশ অন্য আইনজীবীরা বলেন, আইনের ছাত্রদের জীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। আইনজীবী তালিকাভুক্তির একটি পরীক্ষা নিয়ে ফল প্রকাশ করতে তিন বছরের মতো সময় নিচ্ছে। এতে আইনের ছাত্ররা আইন পেশায় যুক্ত হতে গিয়ে জীবন থেকে অনেক বয়স হারিয়ে ফেলছেন।

তারা আরো বলেন, এছাড়া প্রতি বছর পরীক্ষা না নেয়ায় শিক্ষানবিশ আইনজীবীর সংখ্যা বেড়েই চলছে। এতে বেকারত্বের জট তৈরি হচ্ছে।

তারা বলেন, আমরা এলএলবি অনার্স সম্পন্ন করে বার কাউন্সিলের নিয়মকানুন মেনে জেলা জজ আদালতে শিক্ষানবিশ আইনজীবী হিসেবে কাজ করছি। আমাদের সার্বিক পরিস্থিতি ও অপূরণীয় ক্ষতির কথা বিবেচনা করে ২০১৯ সালের আইনজীবী তালিকাভুক্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলকে কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

মানবকণ্ঠ/এইচকে 




Loading...
ads





Loading...