বিশ্বজুড়ে মোট মৃত্যু সাড়ে ৬৫ লাখ


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০১ অক্টোবর ২০২২, ১১:৩৫

চলমান মহামারি করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সারাবিশ্বে আরও এক হাজার ৭৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে চার লাখ ১৮ হাজার ৫৫৫ জন। এ নিয়ে বিশ্বজুড়ে মহামারি করোনাভাইরাসে মোট মৃত্যু বেড়ে দাঁড়াল ৬৫ লাখ ৪৯ হাজার ১৫৩ জন। সেইসঙ্গে শনাক্ত বেড়ে দাঁড়াল ৬২ কোটি ২৯ লাখ ১৭৪ জনে।

শনিবার (০১ অক্টোবর) সকালে বৈশ্বিক পর্যায়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা জার্মানিতে আর দৈনিক প্রাণহানির শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রাণহানির এ তালিকায় এর পরেই রয়েছে রাশিয়া, জাপান, ইতালি, ব্রাজিল, দক্ষিণ কোরিয়া ও ফ্রান্সের মতো দেশগুলো।

জার্মানিতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৭৩ হাজার ৮৫৬ জন এবং মারা গেছেন ১১৬ জন। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশেটিতে মোট সংক্রমিত তিন কোটি ৩৩ লাখ ৮৬ হাজার ২২৯ জন এবং মারা গেছেন এক লাখ ৫০ হাজার ৬৪ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে ভাইরাসটিতে একদিনে মারা গেছেন ১৯৭ জন এবং নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ২৮ হাজার ৪৫৮ জন। করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এ দেশটিতে এখন পর্যন্ত মোট শনাক্ত ৯ কোটি ৮২ লাখ ৩২ হাজার ৩৫৩ জন এবং মারা গেছেন ১০ লাখ ৮৪ হাজার ৮০৩ জন।

ফ্রান্সে গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন ৪৮ হাজার ২৬১ জন এবং মারা গেছেন ৩৪ জন। দেশটিতে এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত তিন কোটি ৫৩ লাখ ৯১ হাজার ২১১ জন এবং মারা গেছেন এক লাখ ৫৫ হাজার ১১২ জন।

এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় জাপানে সংক্রমিত হয়েছেন ৩৬ হাজার ৬৪৬ জন এবং মারা গেছেন ১১১ জন। রাশিয়ায় একদিনে সংক্রমিত ৩৭ হাজার ২৮৬ জন এবং মারা গেছেন ১০৬ জন। ফিলিপাইনে সংক্রমিত হয়েছেন দুই হাজার ৪৮৯ জন এবং মারা গেছেন ৩১ জন। এসময়ে দক্ষিণ কোরিয়ায় সংক্রমিত ২৮ হাজার ৪৬৬ জন এবং মারা গেছেন ৪২ জন।

ব্রাজিলে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৭০ জন এবং নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন আট হাজার ৩৯২ জন। ইতালিতে সংক্রমিত হয়েছেন ৩৪ হাজার ৪৭৫ জন এবং মারা গেছেন ৩৮ জন। তাইওয়ানে একদিনে সংক্রমিত হয়েছেন ৪৩ হাজার ৫০৫ জন এবং মারা গেছেন ৫০ জন।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহান প্রদেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ২০২০ সালের ১১ মার্চ করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহান প্রদেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ২০২০ সালের ১১ মার্চ করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

মানবকণ্ঠ/এআই


poisha bazar