ভারতে করোনায় মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ১৫ পার


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২২ অক্টোবর ২০২০, ১০:৪০,  আপডেট: ২২ অক্টোবর ২০২০, ১০:৪৫

এখন পর্যন্ত মৃতের দিক থেকে পার্শ্ববর্তী দেশে ভারতে করোনাভাইরাসে প্রাণ হারিয়েছেন ১ লাখ ১৫ হাজার ৯১৪ জন। সংক্রমণে সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৬ লাখ ৫১ হাজার ১০৭ জন।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য বলছে, মঙ্গলবার সকাল ৮ টা থেকে বুধবার সকাল ৮ টা পর্যন্ত ৫৪ হাজার ৪৪টি নতুন সংক্রমণ এবং একই সময়ে ৭১৭ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এ পর্যন্ত মোট ৬৭ লাখ ৯৫ হাজার ১০৩ জন সংক্রমণ মুক্ত বা সুস্থ হয়েছেন। বর্তমানে ৭ লাখ ৪০ হাজার ৯০ জন সক্রিয় করোনা রোগী হাসপাতাল অথবা হোম আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন আছেন।

ভারতে ১ লাখ সংক্রমণ হতে সময় লেগেছিল ১১০ দিন। কিন্তু ২৬৫ দিনে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা ৭৬ লাখ ছাড়িয়েছে। দেশে ৭ আগস্ট ২০ লাখ, ২৩ আগস্ট ৩০ লাখ, ৫ সেপ্টেম্বর ৪০ লাখ, ১৬ সেপ্টেম্বর ৫০ লাখ, ২৮ সেপ্টেম্বর ৬০ লাখ এবং ১১ অক্টোবর সংক্রমণের সংখ্যা ৭০ লাখ ছাড়িয়েছে।

ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর) সূত্রে প্রকাশ, গতকাল (মঙ্গলবার) ১০ লাখ ৮৩ হাজার ৬০৮ জনের করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। ওইদিন পর্যন্ত দেশে এ পর্যন্ত মোট ৯ কোটি ৭২ লাখ ৩৭৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব হয়েছে। বর্তমানে সক্রিয় করোনা রোগীর হার ৯.৬৭ শতাংশ, সংক্রমণ মুক্ত বা সুস্থতার হার ৮৮.৮১ শতাংশ। মৃত্যু হার ১.৫১ শতাংশ।

এদিকে, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে যাতে সংক্রমণ না ছড়ায় সেজন্য পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুজোর মণ্ডপগুলো দর্শক শূন্য রাখার নির্দেশ দিয়েছে কোলকাতা হাইকোর্ট। এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট ওই রায় দেয়। আজ (বুধবার) হাইকোর্ট পুনর্বিবেচনার আদেশে বলেছে, বড় পুজোয় মণ্ডপের ভেতরে ঢোকার জন্য পুজো কমিটির সদস্য ও ঢাকি মিলিয়ে ৬০ জনের তালিকা বানানো যাবে। কিন্তু একসঙ্গে সর্বোচ্চ ৪৫ জন থাকতে পারবেন। অন্যদিকে, ছোট পুজোর ক্ষেত্রে নো এন্ট্রি জোনে ঢোকার জন্য ৩০ জনের তালিকা রাখা গেলেও একসঙ্গে ১৫ জনের বেশি ঢুকতে পারবেন না।

বাংলাদেশ পরিস্থিতি

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৭২৩ জনে।

এছাড়া, নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৭০৪ জনের শরীরে। যার ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৯৩ হাজার ১৩১ জনে পৌঁছেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে বুধবার পাঠানো করোনা সংক্রান্ত নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, করোনা শনাক্তের জন্য গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সরকারি ও বেসরকারি ১১০টি ল্যাবে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৪ হাজার ৯১টি এবং পরীক্ষা করা হয়েছে ১৪ হাজার ৮৬টি। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো ২২ লাখ ৬ হাজার ৪১১টি।

নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ১০.৯৭ শতাংশ। আর মোট পরীক্ষায় এ পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন ১৭.৮২ শতাংশ। নতুন যে ২৪ জন মারা গেছেন তাদের মধ্যে পুরুষ ১৯ এবং নারী পাঁচজন। শনাক্ত বিবেচনায় মোট মৃত্যুর হার ১.৪৬ শতাংশ।

এদিকে, আরও ১ হাজার ৭০৪ জন করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন। এ নিয়ে দেশে মোট সুস্থ ব্যক্তির সংখ্যা ৩ লাখ ৮ হাজার ৮৪৫ জনে দাঁড়িয়েছে। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার এখন পর্যন্ত ৭৮.৫৬ শতাংশ।

মানবকণ্ঠ/এনএস

 






ads