সুখবর! পরজীবীনাশী ওষুধ ধ্বংস করছে করোনাভাইরাস

সুখবর! পরজীবীনাশী ওষুধ ধ্বংস করছে করোনাভাইরাস
সুখবর! পরজীবীনাশী ওষুধ ধ্বংস করছে করোনাভাইরাস - ফাইল ছবি

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৩ এপ্রিল ২০২০, ২১:১৮,  আপডেট: ০৩ এপ্রিল ২০২০, ২১:৪৫

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) মহামারীতে কাঁপছে বিশ্ব। চীন থেকে দুই শতাধিক দেশে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১০ লাখ ৪০ হাজার ৯৯৮ এবং মারা গেছেন ৫৫ হাজার ১৯৫ জন।

অবস্থা যখন এই তখন পাওয়া গেল সুখবর। বলা হচ্ছে, অ্যান্টি-প্যারসিটিক বা পরজীবীনাশী ওষুধ ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই ধ্বংস করছে করোনাভাইরাস।

মোনাশ বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃত্বাধীন এক গবেষণায় দেখা গেছে, অ্যান্টি-প্যারসিটিক ওষুধ ইভারমেকটিনের এক ডোজই করোনাভাইরাসকে থামিয়ে দিতে পারে। অ্যান্টিভাইরাল রিসার্চ জার্নালে এই গবেষণাটি প্রকাশিত হয়েছে। অনুমোদিত এই ওষুধটি এইচআইভি, ডেঙ্গু এবং ইনফ্লুয়েঞ্জাসহ ভাইরাসের বিরুদ্ধে কার্যকর।

মোনাশ বায়োমেডিসিন ডিসকভারি ইনস্টিটিউটের ড. ক্যালিয়ে ওয়াগস্টাফ আজ শুক্রবার বলেন, আমরা দেখেছি, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সমস্ত ভাইরাল আরএনএ (কার্যকরভাবে ভাইরাসের সমস্ত জিনগত উপাদান ধ্বংস) থেকে মুক্তি দিতে পারে ইভারমেকটিনের এক ডোজ।

এই পরজীবীনাশী ওষুধটির শুধুমাত্র ল্যাবেই পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে এখনো মানবদেহে পরীক্ষা করা হয়নি। তবে বলা হচ্ছে, ইভারমেকটিনের এক ডোজই মানব কোষে বেড়ে যাওয়া করোনাভাইরাসকে থামিয়ে দিতে পারে। এই বিষয়টি নিয়ে বিস্তর গবেষণা করা হবে। এর পরবর্তী পদক্ষেপটি হবে, মানব দেহের জন্য সঠিক ডোজ নির্ধারণ করা। আবার মানুষের জন্য নিরাপদ কি-না তা নিশ্চিত করা।

ড. ক্যালিয়ে ওয়াগস্টাফ বলেন, আমাদের বিশ্বব্যাপী মহামারি দেখা দিয়েছে। অনুমোদিত কোনো চিকিত্সা নেই এই রোগের। তবে আমাদের এমন একটি যৌগ তৈরি করতে হবে যা এরই মধ্যে বিশ্বজুড়ে পাওয়া যায়। আর তা মানুষকে তাড়াতাড়ি সহায়তা করতে পারে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশে নতুন করে পাঁচজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর ফলে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৬১ জনে। এর মধ্যে ২৬ জন  সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২৯ জন। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে এ পর্যন্ত ৬ জন মারা গেলেও গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কেউ মারা যাননি।

মানবকণ্ঠ/এসকে




Loading...
ads






Loading...