ধর্ষককে রাস্তায় ফেলে পিটিয়ে মারা উচিত: জয়া বচ্চন


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০২ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৪:২২

ভারতের তেলেঙ্গানা প্রদেশে এক তরুণীকে গণধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন দেশটির রাজনৈতিক দল সমাজবাদী পার্টির এমপি জয়া বচ্চন। তিনি বলেন, এ ধরনের মানুষকে (তেলেঙ্গানা ধর্ষণ ও হত্যার মামলার অভিযুক্তদের) জনসম্মুখে নিয়ে এসে প্রকাশ্যে পিটিয়ে হত্যা করা উচিত।

সোমবার দেশটির পার্লামেন্টে এমন ক্ষোভ প্রকাশ করেন সমাজবাদী পার্টির এই এমপি। জয়া বচ্চন বলেন, 'ধর্ষকদের প্রকাশ্যে ভর্ৎসনা করা উচিত। তাদের রাস্তায় ফেলে পিটিয়ে মারা উচিত। একই সঙ্গে সরকারের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

সমাজবাদী পার্টির রাজ্যসভার এই সাংসদ বলেন, 'ধর্ষণের ঘটনায় বিচার দিতে সরকার কী করছে তা জানাতে হবে। হায়দরাবাদের যে ঘটনায় শোরগোল পড়েছে তার আগের দিনও একই ধরনের ঘটনা ঘটেছে।'

হায়দরাবাদের ঘটনায় নিহত তরুণীর মা আগেই হত্যাকারীদের পুড়িয়ে মারা উচিত বলে মন্তব্য করেছিলেন। সংবাদমাধ্যমে এমন খবর প্রকাশিত হলে এক অভিযুক্তের মা বলেন, ‘আমার ছেলে দোষী হলে তাকেও পুড়িয়ে মারা উচিত। নিহত তরুণীও তো কারও মেয়ে। এখন আমি কষ্ট পাচ্ছি। বুঝতে পারছি, ওই তরুণীর মা কতটা কষ্ট পাচ্ছেন। তবে তিনি কোন অভিযুক্তের মা তা স্পষ্ট নয়।

অন্য এক অভিযুক্ত চিন্তকুন্ত চেন্নাকেশভুলুর মা বলেছেন, ‘ওকে উপযুক্ত শাস্তি দিন। আমারও মেয়ে আছে। আরেক অভিযুক্ত জল্লু শিবার মা বলেছেন, ‘‘যা করা প্রয়োজন বলে মনে হয়, তাই করুন। ঈশ্বর জানেন কী হবে।’’

পুলিশ জানিয়েছে, ওই চার অভিযুক্তের মধ্যে দু’জন পেশায় ট্রাকচালক। বাকি দুজন খালাসি।

তেলেঙ্গানার হায়দরাবাদে বুধবার রাতে সোয়া ৯টার দিকে ফেরার পর ওই তরুণীকে সাহায্য করার ভান করেন তারা। পরে তাদের মধ্যে থেকে তিনজন ওই তরুণীকে জোরপূর্বক টোল বুথের পাশের একটি ঝোপ-ঝাড়ে নিয়ে যান। ওই নারী সাহায্যের জন্য চিৎকার শুরু করলে মুখে হুইস্কি ঢেলে পালাক্রমে ধর্ষণ করে তারা। পরে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে ধর্ষকরা।

এ ঘটনায় তেলেঙ্গানার পাশাপাশি সারা ভারতে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে, রাস্তায় নেমে ধর্ষকদের দ্রুত বিচারের দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ করছেন দেশটির শত শত মানুষ।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ




Loading...
ads





Loading...