ওয়ালটন এলে পুঁজিবাজারে গভীরতা বাড়বে: ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ

ওয়ালটন এলে পুঁজিবাজারে গভীরতা বাড়বে: ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ
ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ - ছবি : প্রতিবেদক।

poisha bazar

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৫ মার্চ ২০২০, ২১:৫০

পুঁজিবাজারে দেশের ইলেকট্রনিক্স জায়ান্ট ওয়ালটনের আইপিও’কে স্বাগত জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ। তিনি মনে করেন, ওয়ালটন পুঁজিবাজারে এলে বাজারের গভীরতা বাড়বে।

দেশের আর্থিক, অবকাঠামো খাতসহ সামগ্রিক উন্নয়নের গতির তুলনায় পুঁজিবাজার অনেকটাই পিছিয়ে। পুঁজিবাজার ও আর্থিক খাতের বিশ্লেষকদের মতে, এর প্রধান কারণ বাজারের গভীরতা বা আকার কম থাকা। অর্থাৎ পুঁজিবাজারে বেসরকারি খাতের বড় ও ভালো কোম্পানির শেয়ারের অভাব।

বাজার-বিশ্লেষকদের মতে, একটি সক্ষম ও গতিশীল পুঁজিবাজার তৈরির ক্ষেত্রে বেসরকারি খাতের শীর্ষ কোম্পানিগুলোর তালিকাভুক্ত হওয়া জরুরি। এ পরিপ্রেক্ষিতে দেশের শীর্ষ ইলেক্ট্রনিক্স কোম্পানি ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়ার ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ওয়ালটন দেশীয় ইলেকট্রনিক্স খাতের বড় কোম্পানি। তাদের রেকর্ড খুব ভালো! পুঁজিবাজারে ওয়ালটনের মতো ভালো ও বড় কোম্পানি আসছে- নিঃসন্দেহে বাজারের জন্য এটি ইতিবাচক। এতে বাজারের গভীরতা বাড়বে। অন্যদিকে শেয়ার মার্কেটে গ্যাম্বলিং-এর সুযোগ কমবে। বিনিয়োগকারীরা ভালো কোম্পানির শেয়ার কিনে লাভবান হতে পারবেন। ভালো বিনিয়োগকারীরা বাজারে আস্থা ফিরে পাবেন।

বিশিষ্ট এই অর্থনীতিবিদ বলেন, বাংলাদেশের পুঁজিবাজারের গভীরতা তুলনামূলক কম। অর্থাৎ বাজারে বড় ও ভালো কোম্পানির শেয়ারের অভাব রয়েছে। এতে গ্যাম্বলিং-এর শিকার হন বিনিয়োগকারীরা। ফলে, তাদের মধ্যে আস্থার সংকট দেখা দেয়। এক্ষেত্রে পুঁজিবাজারে ওয়ালটনের মতো বড় কোম্পানির শেয়ার ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে।

পুঁজিবাজারের আকার বৃদ্ধি ও চাঙা করতে সরকারি কয়েকটি লাভজনক প্রতিষ্ঠানকে তালিকাভুক্ত করার উদ্যোগ নেওয়ায় অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালকে ধন্যবাদ জানিয়ে সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, অর্থমন্ত্রীর এই উদ্যোগ সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করতে পারলে পুঁজিবাজারে গভীরতা নিঃসন্দেহে বাড়বে।

পাশাপাশি পুঁজিবাজারের গতি বৃদ্ধিতে সরকারি প্রতিষ্ঠানের চেয়ে বেসরকারি খাতের কোম্পানিগুলো বেশি ভূমিকা রাখবে বলে তিনি মনে করেন।

মানবকণ্ঠ/এআইএস




Loading...
ads






Loading...