পাইলসের সমস্যা দূর করতে যে ৫ খাবার


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৩ জুন ২০২২, ২০:৫৪

পাইলসের সমস্যায় বড়দের পাশাপাশি রয়েছে ছোটদের নামও। পাইলস খুবই যন্ত্রণাদায়ক একটি সমস্যা। পাইলসের যে কী কষ্ট তা কেবল এর ভুক্তভোগীরাই জানেন।

পাইলসের প্রাথমিক পর্যায়ে খাবারের তালিকায় পরিবর্তন করে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। পাইলস হলে মলত্যাগের সময় রক্তপাতের মতো ঘটনাও ঘটতে পারে। তাই পাইলস নিয়ে সতর্ক থাকা জরুরি। পাইলস থাকলে মলদ্বারের ভেতরে কিছু রক্তনালী ফুলে যায়। কোষ্ঠকাঠিন্য হলে সেই ফুলে যাওয়া রক্তনালী থেকে রক্তপাত হয়। চলুন জেনে নেয়া পাইলস দূর করার জন্য কোন পাঁচ খাবার খাবেন-

পর্যাপ্ত পানি পান করুন

সুস্থ থাকার জন্য প্রতিদিন পর্যাপ্ত পানি পান করা জরুরি। এদিকে পাইলস দূর করার জন্যও করতে হবে পর্যাপ্ত পানি পান। অন্যথায় দেখা দেবে কোষ্ঠকাঠিন্য। কারণ পর্যাপ্ত পানি পান করলে মল নরম হবে। শরীরে পানিশূন্যতারও সৃষ্টি হবে না। ফলে দূর হবে পাইলসের সমস্যা। তাই পাইলসের সমস্যা দূর করার জন্য প্রতিদিন তিন লিটারের মতো পানি পান করতে হবে।

রাতে রুটি খান

আমাদের অনেরকই তিনবেলা ভাত খাওয়ার অভ্যাস। কেউ কেউ রাতের বেলা রুটি খেয়ে থাকেন। আপনার যদি পাইলেসর সমস্যা থাকে তাহলে রাতের বেলা ভাতের বদলে রুটি খাবেন। কারণ ভাতের তুলনায় রুটিতে বেশি ফাইবার থাকে। ফাইবার হজমে সহায়তা করে শরীর সুস্থ রাখে। মল নরম করে দেয়। তাই পাইলস দূর করার জন্য রাতের বেলা রুটি খাওয়ার অভ্যাস করুন।

ফল ও শাক-সবজি

ফল ও শাক-সবজি হলো ভীষণ উপকারী খাবার। শুধু পাইলস নয়, যেকোনো অসুখ দূর করতে এসব খাবার যথেষ্ট ভূমিকা রাখে। কারণ বিভিন্ন ধরনের ফল ও শাক-সবজিতে থাকে প্রচুর ফাইবার। তাই পাইলসের সমস্যা দূর করার জন্য নিয়মিত ফল ও শাক-সবজি খেতে হবে।

ভুসি খান নিয়মিত

পাইলস থেকে মুক্তি পেতে চাইলে ভুসি খেতে হবে নিয়মিত। ভুসিতে থাকে পর্যাপ্ত ফাইবার। এটি আমাদের অন্ত্রে কার্যকরী প্রভাব ফেলে। যে কারণে মল নরম হয়। থাকে না কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা। প্রতিদিন সকালে একগ্লাস পানিতে দুই চা চামচ ভুসি ভিজিয়ে খান। এতে পাইলসের সমস্যা কমবে।

খাবারের তালিকায় ওটস রাখুন

ওটস একটি উপকারী খাবারের নাম। এটি ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য ভীষণ উপকারী। সেইসঙ্গে এটি পাইলসের রোগীদের ক্ষেত্রেও সহায়ক। ওটসে থাকে প্রচুর ফাইবার। তাই নিয়মিত ওটস খেলে হজম ও মলত্যাগে সমস্যা হয় না। ফলে পাইলস দূর করা সহজ হয়। তাই পাইলসের সমস্যা থাকলে নিয়মিত ওটস খান।


poisha bazar