১৭ বছর পর সিটির অ্যানফিল্ড জয়


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৭:২০

যে দলটি ঘরের মাঠে টানা ৬৮ ম্যাচ অপরাজিত থাকার বিরল রেকর্ড গড়েছিল, সেই তারাই এখন ওই মাঠে হেরে চলেছে একের পর এক ম্যাচ। রবিবার রাতে ম্যানচেস্টার সিটির কাছে ১-৪ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছে লিভারপুল।

অ্যানফিল্ডে রেকর্ড ৬৮ ম্যাচ অজেয় থাকার পর এ নিয়ে টানা তিন ম্যাচ হারল স্বাগতিকরা। বড় জয়ে লিগের শীর্ষস্থান শক্ত করার সঙ্গে ১৭ বছর পর অ্যানফিল্ড জয়ের কীর্তিও দেখাল সিটি। পেপ গার্দিওলাও সিটির কোচ হওয়ার পর এই প্রথম অ্যানফিল্ড থেকে জয় নিয়ে ফিরলেন।

বল দখলেও এগিয়ে থাকলেও পুরো ম্যাচেই ছড়ি ঘুরিয়েছে ম্যানসিটি। এমন বড় হারের পেছনে দায় আছে লিভারপুলের গোলরক্ষক আলিসন বেকারেরও। তার দল যখন সমতায় ফিরেছিল ম্যাচে, তখন দৃষ্টিকটু শিশুসুলভ দুটি ভুল করেন বসেন তিনি। দুইবারই সতীর্থদের উদ্দেশে ভুল পাস বাড়ান আলিসন। সেই দুই সুযোগেই গোলের দেখা পায় সিটিজেনরা। একটি করেন ইলকায় গুনদোয়ান। পরেরটি রাহিম স্টার্লিংয়ের। গুনদোয়ানের গোলে বলে যোগান দেন ফিল ফোডেন। আর স্টার্লিংকে ট্যাপ ইনে গোল করতে সহায়তা করেন বের্নার্দো সিলভা। গার্দিওলার অধীনে স্টার্লিংয়ের এটা শততম গোল ছিল। লিওনেল মেসি (২১১) এবং সের্হিও আগুয়েরোর (১২০) পর তৃতীয় ফুটবলার হিসেবে পেপ গার্দিওলার অধীনে খেলে ১০০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন এই ইংলিশ তারকা।

ফোডনের দারুণ এক পাস থেকে গুনদোয়ানের গোলটি ম্যাচে তার দ্বিতীয়বার হাসির কারণ ছিল। এর আগে, দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই আলিসনকে একবার ফাঁকি দিয়েছিলেন এই জার্মান মিডফিল্ডার। যদিও সুযোগ ঠিকঠাক কাজে লাগাতে পারলে এদিন হ্যাটট্রিকই পেয়ে যেতেন তিনি। প্রথমার্ধে একটি পেনাল্টি মেসি করেন গুনদোয়ান।

সিটির এই তারকা স্পটকিক কাজে লাগাতে না পারলেও, লিভারপুলের মোহামেদ সালাহ সেই ভুল করেননি। ৬৩ মিনিটে দলকে সমতায় ফেরানোর গোলটি পেনাল্টি থেকেই করেছিলেন তিনি। এডারসনকে বোকা বানিয়ে এই মিশরের তারকা ২০১৭ সালের অক্টোবরের পর পেনাল্টি থেকে নিজের গোল করার ধারাবাহিকতা বজায় রাখেন।

গুণদোয়ানের বলটি বানিয়ে দেয়ার পর ২০ বছরের ফোডেন নিজেও নাম তোলেন স্কোরশিটে। ৮৩ মিনিটে একক প্রচেষ্টায় বুলেট গতির এক শটে লিভারপুলের কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন এই ইংলিশ ফুটবলার। যদিও গোলের ব্যবধান বাড়তে পারত আরও। ৭০ মিনিটে জন স্টোনসের গোলটি অফসাইডে কারণে বাতিল করে দেন লাইন্সম্যান।

সেই আক্ষেপ কাটিয়ে উঠেই পরে বাকি তিন গোলে গার্দিওলার ছাত্ররা। ফলে সবধরনের প্রতিযোগিতায় টানা ১৪ ম্যাচে জয় তুলে নেয় সিটিজেনরা। গত ২৪ বছরে শীর্ষ সারির কোনো ইংলিশ ক্লাবের টানা এত জয়ের রেকর্ড আর নেই। এ ছাড়াও গার্দিওলার তার কোচিং ক্যারিয়ারে এবারই প্রথম জিতলেন টানা ১৪ ম্যাচ।

দলের এমন অসাধারণ ধারাবাহিকতায় খুব খুশি গার্দিওলা। এই স্প্যানিশ ম্যানেজার ম্যাচ শেষে বলেছেন, ‘আমরা জানি, গেল এক মাস বা দুই মাস ধরে যা করে আসছি তা চালিয়ে যেতে হবে। অনেক বছর ধরে আমাদের এখানে (অ্যানফিল্ডে) কোনো জয় ছিল না। এবার পারলাম। আশা করবো, পরেরবার দর্শকদের সামনেও এই ফল আমরা দেখাতে পারব।’

এই জয়ের পর ২২ ম্যাচে ৫০ পয়েন্ট নিয়ে লিগ শিরোপার দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে গেল সিটি। তাদের চেয়ে একটি বেশি ম্যাচ খেলে লিভারপুলের পয়েন্ট ৪০। টমাস টুখেলের অধীনে চেলসি টানা তিন জয়ে উঠে এসেছে লিগ টেবিলের পাঁচে। এবার মেসন মাউন্ট ও জর্জিনিয়োর গোলে শেফিল্ডকে ২-১ গোলে হারিয়েছে ব্লুজরা।

ওল্ভসের বিপক্ষে একই রাতের আরেক ম্যাচে গোলশূন্য ড্র করে পয়েন্ট খোয়ালেও লেস্টার সিটি ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে আছে তিনে। দুইয়ে আগের রাতে এভারটনের সঙ্গে ৩-৩ গোলে ড্র করা সিটির নগর প্রতিদ্ব›দ্বী ইউনাইটেড। ২৩ ম্যাচে রেড ডেভিলসের পয়েন্ট ৪৫।






ads
ads