এবার ফাবিনিওকে হারালেন ক্লপ


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১৯:০৪

মূলত ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার। কিন্তু তাকে যেখানে খেলান সেখানেই সুফল পাচ্ছেন লিভারপুল বস জুর্গেন ক্লপ। ভার্জিল ফন ডাইক চোটে পরায় সেন্টার ব্যাকের ঘাটতি মেটাতে উল্লেখযোগ্য বিকল্প ছিল না ক্লপের হাতে। তাই সে জায়গা বেছে নিলেন সর্বজনীন ফাবিনিওকে। কিন্তু খুব বেশি দিন সার্ভিস দিতে পারলেন না ব্রাজিলিয়ান ফুটবলার। ইনজুরির কারণে তাকেও ছিটকে যেতে হয় দল থেকে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে মঙ্গলবার রাতে মিডজিল্যান্ডকে ২-০ গোলে হারানোর ম্যাচে পায়ের পেশিতে চোট নিয়ে মাঠ ছাড়েন ফাবিনিও।

চোট কতটা গুরুতর তা স্কান করার পর জানা যাবে বলে জানান ক্লপ, ‘আমি জানি, সে পেশিতে সমস্যা অনুভব করছিল এবং এটা ভালো লক্ষণ নয়। সে বলছিল খেলা চালিয়ে যেতে পারবে কিন্তু দৌড়াতে পারবে না, যা কোনো কাজের নয়।’

৩০ মিনিটে ফাবিনিও বদলি হিসেবে মাঠে নামেন রিস উইলিয়ামস। এখন থেকে রক্ষণ সামলাতে তার মতো তরুণদের ওপরই ভরসা রাখতে হবে ক্লপের। যদিও খেলা অ্যানফিল্ডে হওয়ায় ততটা নিজেকে প্রমাণের সুযোগ পাননি রিস। তবে অপরিপক্বতার পরিচয় দিয়েছে ফরোয়ার্ডরা। এদিন অবশ্য একাদশে ছিলেন না আক্রমণ ত্রয়ী— মোহাম্মদ সালাহ, রবার্তো ফিরমিনো ও সাদিও মানে। তাদের বিকল্প হিসেবে থাকা জোতা-মিনামিনোদের প্রথমার্ধে গোলখরায় ভুগতে হয় অলরেডদের।

৫৫তম মিনিটে ম্যাচে প্রথম গোলমুখে শট নিয়ে জালের দেখা পান জোতা। ট্রেন্ট অ্যালেকজ্যান্ডার-আর্নল্ডের বাড়ানো বলে স্বাগতিকদের এগিয়ে দেন পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। সব প্রতিযোগিতা মিলে এটি লিভারপুলের ১০ হাজারতম গোল, যা এলো তাদের প্রথম গোলের ১২৮ বছর পর। ৬০তম মিনিটে সালাহ ও মানেকে একসঙ্গে বদলি নামান কোচ, পরে নামান ফিরমিনোকেও। কিন্তু তেমন কিছু করে দেখাতে পারছিলেন না কেউ। যোগ করা সময়ে পেনাল্টি থেকে দ্বিতীয় গোলটি করেন সালাহ। ডি-বক্সে মিসরের এই ফরোয়ার্ড ফাউলের শিকার হলে স্পট কিকের বাঁশি বাজান রেফারি।

দুই জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে লিভারপুল। গ্রুপের আরেক ম্যাচে আটালান্টার মাঠে দুই গোলে এগিয়ে গিয়েও ২-২ ড্র করেছে আয়াক্স। ৪ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আছে আটালান্টা। ১ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আয়াক্স।

 

 






ads