টাকা বা বন্ধু নয়, বার্সাকে প্রাধান্য


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৮:০৩

লুইস সুয়ারেজ তার বার্সেলোনা অধ্যায়ের শেষপ্রান্তে। দলের নতুন কোচ রোনাল্ড কোম্যান এসেই এক ফোনকলে তাকে জানিয়ে দেন, তার সামনের পরিকল্পনায় সুয়ারেজ নেই। লিভারপুল থেকে ন্যু ক্যাম্পে আসার পর সুয়ারেজের গভীর বন্ধুত্ব হয় মেসির সঙ্গে। দুজন এখন দুজনকে পরিবারের অংশ মানেন।

সুয়ারেজ ছাড়াও দলে মেসির আরেক বন্ধু আর্তুরো ভিদালকেও নতুন ক্লাব খুঁজতে বলা হয়েছিল। লিওনেল মেসির বার্সেলোনা ছাড়ার সিদ্ধান্তের পেছনে সুয়ারেজ আর ভিদালের প্রতি ক্লাবের এমন বিমাতাসুলভ আচরণ অনেক বড় ভূমিকা রেখেছে বলে জানায় অনেক গণমাধ্যম।

মেসি কেন প্রাণের ক্লাব ছাড়বেন, এর কারণ উৎপাটনে আরেক পক্ষের দাবি ছিল টাকা। তাদের মতে, অন্য ক্লাবে গেলে আরও বেশি টাকা আয় করতে পারবেন মেসি। ফ্রি ট্র্যান্সফারে বার্সাকে বিপদে ফেলে তাই ক্লাব ছাড়তে মরিয়া মেসি। শুক্রবার এসব অভিযোগ যে একেবারেই ভিত্তিহীন তা জানিয়ে দেন মেসি, ‘সবকিছু শুনে কষ্টই লেগেছে। মেসির ‘আমিগোস’, অর্থলোভ...অনেক কিছুই বলা হয়েছে আমাকে ঘিরে, যেগুলো শুনে কষ্ট পেয়েছি অনেক। সব সময়ই ক্লাবকে সবকিছুর ওপরে রেখেছি। এর আগে অনেকবারই তো বার্সেলোনা ছাড়ার সুযোগ এসেছিল আমার সামনে।’

ক্লাব ছাড়ার গুজব তুলে বেশি অর্থে চুক্তি নবায়ন! মেসির বিরুদ্ধে গুরুতর এই অভিযোগটিও ছিল! এ নিয়ে মেসির পরিষ্কার জবাব, ‘অর্থ? প্রতি বছরই আমার সামনে সুযোগ ছিল বার্সেলোনায় যা পাই, তার চেয়ে বেশি অর্থে অন্য কোথাও যাওয়ার। কিন্তু আমি সব সময়ই বলেছি এটাই আমার বাড়ি। সেটাই সব সময়ই অনুভব করেছি আমি, এখনো করি।’

তাহলে অস্তিত্বে মিশে যাওয়া ক্লাবটা ছাড়তে চাওয়ার কারণ? অন্য অনেক কিছু ছিল, সাক্ষাত্কারজুড়ে যেসব ব্যাখ্যা করেছেন মেসি। তার সঙ্গে জুড়ে দিয়েছেন, ‘(পরিবার, শহর, ২০ বছর থেকে থাকার অভ্যাস, ভালোবাসা) বার্সার চেয়ে ভালো আর কোনো জায়গা খুঁজে পাওয়া কঠিন। কিন্তু আমার মনে হয়েছে একটা বদল দরকার, নতুন লক্ষ্য, নতুন কিছু দরকার।’





ads







Loading...