কষ্টার্জিত জয়ে টিকে রইল বার্সা


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৯ জুলাই ২০২০, ১৭:৫০

হারলেই শিরোপার দৌড় থেকে বিদায়- এমন সমীকরণ মাথায় নিয়ে ন্যু ক্যাম্পে এস্পানিওলকে আতিথেয়তা দেয় বার্সেলোনা। একে তো ঘরের মাঠ, তার ওপর এ মৌসুমে রীতিমত খাবি খাচ্ছে শহর প্রতিদ্বন্দ্বী এস্পানিওল। লড়ছে রেলিগেশন এড়াতে। সেই হিসেবে সহজ জয়ের হিসেব কষেই হয়তো মাঠে নেমেছিল বার্সেলোনা।

তবে গোলশূন্য ব্যবধানে প্রথমার্ধ শেষ করার পর দ্বিতীয়ার্ধের পঞ্চম মিনিটেই আনসু ফাতির লাল কার্ড। বিপদই দেখছিল স্বাগতিকরা। তবে লুইস সুয়ারেজের রেকর্ড গোলে শেষতক পূর্ণ তিন পয়েন্টই পকেটে পোরে কাতালান জায়ান্টরা। সুয়ারেজের দেয়া ওই একমাত্র গোলে এস্পানিওলকে ১-০ হারায় বার্সা। নগর প্রতিদ্বন্দ্বীদের বিপক্ষে বার্সার এটি শততম জয়।

কাতালান ডার্বিতে প্রথমার্ধে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ এসেছিল দুদলের সামনেই। তবে সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হওয়ায় কোনো দলই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ হাতে নিতে পারেনি। দ্বিতীয়ার্ধে খেলা শুরুর মিনিট দশেকের মাথায় গোলের দেখা পায় স্বাগতিকেরা।

৫৬ মিনিটে আঁঁতোয়ান গ্রিজমানের ব্যাকহিলে লিওনেল মেসির নেয়া শট জালের ঠিকানা খুঁজে না পেলেও সুযোগ সন্ধানী সুয়ারেজ নিখুঁত শটে বল জালে পাঠান। এগিয়ে যাওয়া বার্সেলোনা ম্যাচের বাকি সময়েও চেষ্টা চালায় গোল ব্যবধান বাড়ানোর। তবে এস্পানিওলের জমাট রক্ষণ মেসি-সুয়ারেজদের কাজ কঠিন করে তোলে।

এর আগে দ্বিতীয়ার্ধের পাঁচ মিনিটে বার্সেলোনার ফাতি দেখেন লাল কার্ড। মিনিট চার না যেতে মারাত্মক ট্যাকল করে লাল কার্ড দেখেন এস্পানিওলের পল লোজানোও। গত কিছুদিন লা লিগার রেফারিং নিয়ে প্রশ্ন উঠলে এ ম্যাচে দুটি সিদ্ধান্তই রেফারি নেন ভিডিও সহকারি রেফারির (ভিএআর) সাহায্য নিয়ে।

তবে এই দুই সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় রেফারিকে খোঁচাতে দেখা যায় বার্সেলোনা ডিফেন্ডার পিকেকে। মাঠ ও মাঠ বাইরে বরাবরই ঠোঁটকাটা পিকে। ভুল করলে কাউকে ছাড় দেন না তিনি। রিয়াল মাদ্রিদের জন্য শেষ কিছু ম্যাচে রেফারিরা পক্ষপাতদুষ্ট আচরণ করায় এস্পানিওলের বিপক্ষে এই কা্ল ঘটান পিকে। লোজানোকে লাল কার্ড দেখানোর পর রেফারি মার্তিনেজ মুনুয়েরার প্রতি করতালি দিয়ে পিকে বলেন, ‘সাবাস, সাবাস, আরও একটা (লাল কার্ড)।’

এদিকে বার্সার হয়ে সুয়ারেজের জয়সূচক গোলটি ছিল ব্লাউগ্রানাদের হয়ে তার ক্যারিয়ারের ১৯৬তম গোল। বার্সেলোনার ফুটবল ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা এখন এই উরুগুইয়ান। কুবালাকে সুয়ারেজ এদিন পেছনে ফেলায় দলের কোচ কিকে সেতিয়েনের প্রশংসা কুড়িয়েছেন ‘এল পিস্তোরেল’।

সেতিয়েন ম্যাচ শেষে বলেন, সে (সুয়ারেজ) জানে কীভাবে গোল করতে হয় এবং ক্যারিয়ারজুড়ে অসংখ্যবার সে তাই দেখিয়ে এসেছে। সে করে দেখিয়েছে, তাই বার্সা ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা এখন সে এবং আপনি তার অর্জন কেড়ে নিতে পারবেন না।’

সুয়ারেজকে প্রশংসায় ভাসালেও এদিন দলের খেলায় যে তিনি সন্তুষ্ট ছিলেন না তা সরাসরি স্বীকার করে নেন সেতিয়েন, আমরা খুব ভালো খেলিনি। এস্পানিওলের রক্ষণ ভাংতে কষ্ট হয়েছে আমাদের। তারা খুব শক্তভাবে রক্ষণ মজবুত রেখেছিল। জয়টা আসলেই কষ্টার্জিত ছিল।’

এস্পানিওলকে হারিয়ে লিগ লিডার রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে পয়েন্ট ব্যবধান কমিয়ে একে এনেছে বার্সেলোনা। ৭৬ পয়েন্ট পেতে বার্সা খেলেছে ৩৫ ম্যাচ। এক ম্যাচ কম খেলে রিয়ালের পয়েন্ট ৭৭। আজ রাতে আলাভেজকে হারাতে পারলে ফের কাতালান ক্লাবটির চেয়ে চার পয়েন্টে এগিয়ে যাবে লস ব্লাঙ্কোসরা। সেই সঙ্গে আরও একধাপ এগোবে লিগ শিরোপার পথে।

অন্যদিকে, এই হারে দ্বিতীয় বিভাগে অবনমিত হয়েছে এস্পানিওলের। দীর্ঘ ২৭ বছর পর এমন দুঃসহ স্মৃতির মুখোমুখি হলো ক্লাবটি।





ads






Loading...