করোনায় আক্রান্ত ফেলাইনিও

করোনায় আক্রান্ত ফেলাইনিও
ফেলাইনিও - ফাইল ছবি।

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৩ মার্চ ২০২০, ২০:১৬

এবার করোনার ভয়াল থাবায় আক্রান্ত হলেন বেলজিয়ান ফুটবল তারকা মারুয়ান ফেলাইনি। গত জানুয়ারিতে ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ছেড়ে চাইনিজ ক্লাব শানডং লুনেংয়ে যোগ দেন ফেলাইনি। চীনে করোনার প্রকোপ বাড়ার পরই নিজ দেশে ফিরেছিলেন তিনি।

গত শুক্রবার ফের ক্লাব দলে যোগ দিতে চীন ফেরেন এই মিডফিল্ডার। তখন শারীরিক পরীক্ষার সময় ফেলাইনির শরীরে কোভিড-১৯ ভাইরাস ধরা পড়ে। গতকাল শানডং নিজেদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে খবরটি জানায়।

প্রথম সারির ক্লাবগুলোর মধ্যেই ফেলাইনিই প্রথম যার শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেল। ক্লাব কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিক এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, করোনার প্রাথমিক লক্ষণ জ্বরের আলামত দেখা যায়নি ফেলাইনির। তবে পরবর্তীতে স্বাস্থ্য পরীক্ষার সময় তার শরীরে ভাইরাসটির উপস্থিতি পাওয়া যায়।

ফেলাইনির করোনা ভাইরাস ধরা পড়ার পরই তাকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে শানডং। এর আগে ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার দোরির করোনা টেস্ট পজিটিভ ধরা পড়ে। তিনি চীনের দ্বিতীয় সারির ক্লাব মেইঝু হাক্কার হয়ে খেলে থাকেন।

এদিকে চীনের ফুটবলার ইয়ু লি এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন স্পেনে। স্প্যানিশ ক্লাব এস্পানিওলের হয়ে খেলেন এই ফরোয়ার্ড। চাইনিজ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (সিএফএ) শনিবার বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে, ‘ইয়ু লিয়ের শরীরে হালকা লক্ষণ আছে এবং বর্তমানে তার চিকিৎসা চলছে।

চাইনিজ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন লি ও তার ক্লাবের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে এবং প্রয়োজনীয় সকল সহায়তা প্রদান করবে। আমরা তার সুস্থতা কামনা করছি।’ ২৮ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড বার্সেলোনায় নিজের বাসায় আলাদা হয়ে আছেন, জানিয়েছে শিনহুয়া নিউজ এজেন্সি। ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগে খেলা একমাত্র চাইনিজ ফুটবলার ইয়ু লি।

গত জানুয়ারিতে সাংহাই সিআইপিজি থেকে এস্পানিওলে যোগ দেন তিনি। তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া এস্পানিওলের প্রথম খেলোয়াড় নন। গত বুধবার ক্লাবটি জানিয়েছিল, তাদের ছয় ফুটবলার পজিটিভ হয়েছেন।

মানবকণ্ঠ/এআইএস





ads






Loading...