আবাহনী সবসময় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য দল গড়ে: মুশফিক

মানবকণ্ঠ
মুশফিকুর রহিম

poisha bazar

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক
  • ১৪ মার্চ ২০২০, ১৩:৪৮

বিশ্বব্যাপী আতঙ্ক ছড়ানো করোনা ভাইরাসের করুণ পরিস্থিতির পরেও আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ।  আসরের উদ্বোধনী ম্যাচেই পারটেক্স স্পোর্টিং ক্লাবের মুখোমুখি হবে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আবাহনী লিমিটেড।  বরাবরের মতো এবারো শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে দল গঠন করেছে ক্লাবটি।  আসরের দলটির অধিনায়কত্ব পালন করবেন অভিজ্ঞ ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিম।  গতকাল সাংবাদিকদের সঙ্গে নিজের দল নিয়ে কথা বলেছেন তিনি।

ক্রিকেটার মুশফিকের শুরুটা হয়েছে বিকেএসপি থেকে। বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনে শেকড় হিসেবে পরিচিত এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি ২০০০ সালে ভর্তি হন। গতকাল সেই ব্যাচের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে যোগ দেন জাতীয় দলের এই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার।  খনিকের জন্য ফিরে যান নিজের সেই সোনালি সময়ে। তারপরেও মুশফিকের সঙ্গেও কথা বর্তমান বিষয় নিয়ে।  আসন্ন ডিপিএলে কেমন করবে তার দল? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমি অনেক জায়গা থেকেই শুনেছি এবারের ডিপিএলের ৬-৭টা টিম খুব ব্যালেন্সড টিম। বলতে পারবেন না কোনো একটা বা দুইটা টিম যাবে। শীর্ষ ছয়ে কোন দলগুলো যাবে এটা বলা কঠিন।  আবাহনী কখনো দল করে না দুই নম্বর বা তিন নম্বর হওয়ার জন্য।’

গতবারের মতো এবারো জাতীয় দলের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারকে নিয়ে দল গুছিয়েছে আবাহনী। দলে আছেন, লিটন কুমার দাস, তাইজুল ইসলাম, আফিফ হোসেন ধ্রুব, নাঈম শেখ, নাজমুল হোসেন শান্ত, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনসহ বেশ কয়েকজন তারকা ক্রিকেটার। এমন একটি দল নিয়ে চ্যাম্পিয়নশিপের জন্যই ট্রাই করবে আবাহনী, জানালেন মুশফিক।  তার ভাষ্য, ‘সবসময় চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য টিম করে। এবারো ব্যতিক্রম হয়নি। চেষ্টা থাকবে প্রথম টপ সিক্সে ঢোকার। এরপর যেন চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য ট্রাই করি।’

প্রথমবারের মতো জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ফরম্যাটের সিরিজ জিতে বেশ উৎফুল্ল বাংলাদেশ।  ব্যাটে বলে দুই বিভাগেই সমান দাপটের সঙ্গে খেলেছে ক্রিকেটাররা।  সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী মাসে পাকিস্তান সফর অপেক্ষা করছে টাইগারদের জন্য।  পরবর্তী এই সিরিজে ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে বেশ আত্মবিশ্বাসী মুশফিক।  তিনি বলেন, ‘আমাদের পরবর্তী চ্যালেঞ্জ পাকিস্তান সফর, তারপর আয়ারল্যান্ড।  তাছাড়াও এ মাসের ১৫ তারিখ থেকে আমাদের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ শুরু হবে। 

আমাদের মানসিকতার অনেক পরিবর্তন হয়েছে। তার প্রতিফলন আমরা মাঠে পেয়েছি। তো এটা যেন আমরা ধরে রাখতে পারি সেটা একটা বড় চ্যালেঞ্জের বিষয়। ইনশাআল্লাহ সেটার চেষ্টা থাকবে। ২০২৩ সালের বিশ্বকাপের এখনো অনেক দেরি। সেই বিষয়ে কোচিং স্টাফ আছে, টিম ম্যানেজমেন্ট আছে তারা পরিকল্পনা করছে। আমি চেষ্টা করছি সেই অনুযায়ী কাজ করে বিশ্বকাপ দলের একজন সদস্য হতে।’

ওয়ানডেতেও পারলেও টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে বরাবরই ব্যর্থ বাংলাদেশ। সেটা অকপটেই স্বীকার করে নিয়েছেন মুশফিক। তার ভাষ্য,‘টি-টোয়েন্টি এমন একটা খেলা যেখানে ধারাবাহিকতা ধরে রাখা খুবই কষ্টকর। আমাদের এই চ্যালেঞ্জগুলো নিতে হবে। সামনে অনেক কঠিন সফর আছে যেগুলো আমাদের ডিসাইড করে দেবে আমরা কোন ডিরেকশনে যাচ্ছি। এই চ্যালেঞ্জগুলো আমাদের মাথায় রাখতে হবে।’

মাশরাফি বিন মোর্তজার পদত্যাগের পর ওয়ানডে অধিনায়কের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবালের।  বিসিবির এই সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন তোলেছেন অনেকেই।  কেননা তামিমের নেতৃত্ব দেয়া ৩ ওয়ানোডে ম্যাচের একটিতেও জয় পায়নি টাইগাররা। এতো সব সমালোচনার ভিড়ে মুশফিক মনে করছেন তামিমই হলেন নেতৃত্ব দেয়ার উপযুক্ত ব্যক্তি। তিনি বলেন, ‘তামিমের অধীনে কিন্তু এর আগেও আমরা খেলেছি। শুধু আমি না আরও অনেকে খেলেছে। 

আমরা কিন্তু গত ১৫-২০ বছর ধরে একসঙ্গে খেলছি, আমরা জানি যে সে কি রকম। আমার মনে হয় সেই উপযুক্ত ব্যক্তি এবং আমরা সবাই তাকে সাপোর্ট করছি। আশা করছি সে নিজে যেভাবে শেষ কয়েকটা বছর ধরে ভালো খেলছে সে যেন পুরো দলকে সেইভাবে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে। আর আমার মনে হয় এটা একটি চ্যালেঞ্জিং বিষয়। আমার মনে হয় সে উপযুক্ত ব্যক্তি চ্যালেঞ্জটা নেয়ার জন্য।’

মানবকণ্ঠ/এইচকে




Loading...
ads






Loading...