রিয়াল ছাড়তে চাচ্ছেন নাভাস


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৪ আগস্ট ২০১৯, ০১:১৮

রিয়াল মাদ্রিদে ইকার ক্যাসিয়াস যুগ শেষ হওয়ার পর থেকেই কেইলর নাভাস ছিলেন ক্লাবের এক নম্বর গোলরক্ষক। যিনি তিনটা উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা জিতেছেন রিয়ালের জার্সিতে। দীর্ঘ পাঁচটা মৌসুম সামলেছেন ক্লাবের গোলবার। এবার নিজেই জানিয়েছেন, রিয়ালে আর থাকতে চান না।
নাভাসের সবকিছু কেমন যেন ঝুঁকির মধ্যে পড়ে যায় গত মৌসুমে বেলজিয়ামের গোলরক্ষক থিবাউট কোরতোইসের আগমনে।

কোরতোইসের আগমনে রিয়াল মাদ্রিদে গোলরক্ষক বেড়ে দাঁড়ায় পাঁচজন। নাভাস ছাড়াও আগে থেকেই দলে ছিলেন লুকা জিদান, আন্দ্রে লুনিন (ধারে রিয়াল ভালাদোলিদে) ও কিকো ক্যাসিলা। তবে, গত মৌসুমে কোরতোইস যোগ দেয়ায় তিনিই হয়ে যান স্প্যানিশ জায়ান্টদের এক নম্বর গোলরক্ষক। এদিকে, কোরতোইসকে প্রথম পছন্দের গোলরক্ষক হিসেবে নেয়ার কথা পরিষ্কারভাবে ব্যাখ্যা করেছেন রিয়াল কোচ জিনেদিন জিদান। তাই মাদ্রিদের ক্লাবটিতে আর নিজের ছায়া হয়ে থাকতে রাজি নন নাভাস। ৩২ বছর বয়সী এই গোলরক্ষককে নেয়ার আগ্রহের কথা জানায় ফরাসি জায়ান্ট পিএসজি। ২০১৯-২০ মৌসুমে রিয়ালের গোলবার সামলাবেন কোরতোইস। তাতে হয়তো অন্য কোনো পথে হাঁটবেন এই কোস্টারিকান প্রমাণিত সৈনিক।

২০০৮-০৯ মৌসুমে ক্যারিয়ারের শুরুতে নাভাস কোস্টারিকান লিগের দল দেপোরতিভো সাপ্রিসার হয়ে খেলেছেন। এক মৌসুম পর বেশ নাম ডাক ছড়িয়ে পড়লে উত্তর আমেরিকার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ’খ্যাত কনকাকাফ কাপের ক্লাবটি আস্থা রাখে নাভাসের উপর। ক্লাবকে কাপ জেতাতে নাভাস রেখেছিলেন গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা। ঠিক তখন এক এজেন্সি মারফত স্প্যানিশ ক্লাব আলবাসেতে ডেকে নেয় নাভাসকে। ২০১০-১১ এই এক মৌসুমই খেলেছেন সেখানে। দ্বিতীয় বিভাগের এই দলের হয়ে খেলা শুরু করলেও নাভাসের দলটি মৌসুম শেষ করে ২০তম স্থানে থেকে। কিন্তু নিজের পারফর্মের বদৌলতে নাভাস সুযোগ পেয়ে যান মূল লিগের ক্লাব লেভান্তেতে। তিন মৌসুম সেখানে কাটিয়ে ২০১৪-১৫ মৌসুমে নাম লেখান রিয়াল মাদ্রিদে। প্রথম মৌসুমে রিয়ালের জার্সিতে গোলবারের নিচে ছিলেন মাত্র ১১টি ম্যাচে। এর পর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। টানা তিন মৌসুম ছিলেন রিয়ালের এক নম্বর গোলরক্ষক, খেলেছেন যথাক্রমে ৪৫, ৪১ আর ৪৪ ম্যাচ। আগের মৌসুমে কোরতোইস রিয়ালে যোগ দিলে নাভাস খেলার সুযোগ পেয়েছেন ২০ ম্যাচ।

মানবকণ্ঠ/টিএইচ




Loading...
ads




Loading...