চঞ্চল পাখি সিঁদুরে মৌটুসী


poisha bazar

  • হাসিব খান
  • ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:০৯,  আপডেট: ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৩:০৩

পৃথিবীর সমস্ত সৌন্দর্যের একাংশ বুঝি পাখিদের দখলে। তারা দেখতে সুন্দর, তাদের গান সুন্দর। প্রকৃতিকে ভালো রাখতে পাখির মতো আর কী আছে জগতে? অগণন পাখির মিছিলে ছোট এক পাখির নাম মৌটুসি। এই মৌটুসির আছে নানা গোত্র। তার একটা সিঁদুরে হলুদ মৌটুসি।

সিঁদুরে হলুদ মৌটুসি (বৈজ্ঞানিক নাম: Cinnyris Cinnyris) যা টোনা বা টুনি হিসেবেও পরিচিত মৌটুসি জাতের পাখি। এর ইংরেজি নাম Mrs. Gould's sunbird.সিঁদুরে হলুদ মৌটুসি গানের পাখি। এরা চমৎকার জিট্-জিট্ স্বরে গান গায়। বেশ চঞ্চল, বেশিক্ষণ এক জায়গায় থাকে না। বাতাসে ঢেউ খেলিয়ে আলোর ঝিলিকের মতো একগাছ থেকে আরেকগাছে এবং ফুলে ফুলে উড়ে বেড়ায়।

সিঁদুরে হলুদ মৌটুসি পাখির ওজন মাত্র ছয় গ্রাম। ঠোঁটের আগা থেকে লেজের ডগা পর্যন্ত লম্বায় মাত্র ১৪-১৫ সেন্টিমিটার, যার মধ্যে লেজ চার ও ঠোঁট দুই সেন্টিমিটার। লেজ ছোট ও গোলাকার। পেট হালকা হলদে। মাথা ও মুখমণ্ডল ধূসর বা নীলচে ধূসর। অন্যদিকে, বাহারি টোনার মাথার চাঁদি, মুখমণ্ডল, কান-ঢাকনি ও গলা ধাতব নীল থেকে বেগুনি।

মাথার পেছন, ঘাড়, পিঠ ও দেহের ওপরটা সিঁদুরে লাল। ডানার ওপরটা জলপাই। বুক-পেট ও লেজের নিচের দিক হলুদ। লেজের পালক নীল। এদের চোখ বাদামি রঙের। ঠোঁট, পা ও নখ কালো।সারাক্ষণ হাসিখুশি। মুখে লেগে থাকে ডাক ও গান। জোড়ায় জোড়ায় চলে। এ গাছ থেকে ও গাছে যায়। সুযোগ পেলেই এক পাক নেচে নেয়, ডানা ঝাপটায়। সর্বদা আনন্দে মেতে থাকা ছোট এই পাখিটির অন্য নাম ফুলটুনি। খাবারের সন্ধানে ফুলে ফুলে ঘুরে বেড়ায়। এ ছাড়া

খাদ্যতালিকায় আছে অতি ক্ষুদ্র পোকামাকড়, তাল-খেজুরের রস, বৃষ্টি বা শিশির জমা জল। গান তো লেগেই থাকে মুখে। বাংলাদেশের প্রায় সর্বত্র এ পাখি দেখা যায় তবে গাজীপুরের বনাঞ্চলে মৌটুসী পাখিকে বেশি দেখা যায়। বর্তমানে মৌটুসী পাখি আশঙ্কামুক্ত আছে।

মানবকণ্ঠ/এএম




Loading...
ads




Loading...