তিন সিনেমা নিয়ে আসছেন ফেরদৌস-পূর্ণিমা


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৯ মে ২০২৩, ২০:৫৮,  আপডেট: ২৯ মে ২০২৩, ২১:২৮

ঢাকাই সিনেমার দুই জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী চিত্রনায়ক ফেরদৌস ও চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা। ক্যামেরার সামনে দুজন নায়ক-নায়িকা হলেও এর বাইরে তাদের ব্যক্তিগত সম্পর্ক রয়েছে। তারা দুজনেই খুব ভালো বন্ধু।

বলা যায় সিনেমার গল্পে নয়, এর বাইরেও নিয়মিত উপস্থাপনা কিংবা স্টেজ শোতে তাদের জুটি বেঁধে কাজ করতে দেখা যায়। এ জুটি অভিনীয় তিনটি সিনেমা মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে।

এরমধ্যে একটির নাম ‘আহারে জীবন’। এটি সরকারি অনুদানের সিনেমা। পরিচালনা করেছেন ছটকু আহমেদ। এরইমধ্যে সিনেমাটির কাজ শেষ করেছেন তারা। অন্য দুটি সিনেমার নাম হচ্ছে ‘গাঙচিল’ ও ‘জ্যাম’।

‘গাঙচিল ও জ্যাম’ এ দুটি সিনেমা পরিচালনা করছেন নইম ইমতিয়াজ নেয়ামুল। এরমধ্যে ‘গাঙচিল’ নির্মিত হয়েছে ওবায়দুল কাদেরের উপন্যাস অবলম্বনে। সিনেমাটির কাজ প্রায় শেষ।

অন্যদিকে ‘জ্যাম’ প্রযোজনা করেছে প্রয়াত নায়ক মান্নার প্রযোজনা সংস্থা কৃতাঞ্জলী। এর কাজ অবশ্য অনেকটা বাকি রয়েছে। তবে শিগরিরই সেটা শেষ করা হবে বলে নির্মাতা সূত্রে জানা গেছে।

তিনটি সিনেমা প্রসঙ্গে ফেরদৌস বলেন, ‘ইন্ডাস্ট্রিতে পূর্ণিমাই আমার সবচেয়ে ভালো বন্ধু। তার সঙ্গে আগেও বেশ কিছু সিনেমায় কাজ করেছি। সেগুলো দর্শকপ্রিয়তা পেয়েছে। মুক্তির অপেক্ষায় যে তিনটি সিনেমা রয়েছে প্রত্যেকটিরই কিন্তু গল্প এক কথায় অসাধারণ। চেষ্টাও করেছি নিজেদের চরিত্র সুন্দর করে ফুটিয়ে তুলতে। এগুলো মুক্তি পেলে দর্শক মুগ্ধ হবেন।’

পূর্ণিমা বলেন, ‘ফেরদৌসের সঙ্গে অভিনয় করলে শতভাগ কমফোর্ট জোনে কাজ করা যায়। যেহেতু আমার বন্ধু, তাই নিজেদের মতো করেই সবকিছু গুছিয়ে সিডিউল দিয়ে কাজটা ভালোভাবে করতে পারি। তিনটি সিনেমা আমরা বেশ আন্তরিকতা নিয়ে শেষ করেছি। এগুলো নিয়ে আমিও ভীষণ আশাবাদী।’

প্রসঙ্গত, দুই বাংলার জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ফেরদৌস আহমেদ। ক্যারিয়ারের পা রাখেন মডেল হিসেবে। এরপর হয়ে ওঠেন পুরোদস্তুর অভিনেতা। অভিনয়ের পাশাপাশি লেখালেখিও করেন তিনি।

অন্যদিকে, ঢাকাই সিনেমার নন্দিত চিত্রনায়িকা দিলারা হানিফ রীতা। তিনি চলচ্চিত্র জগতে পূর্ণিমা নামে অধিক পরিচিত ও জনপ্রিয়। তরুণ-তরুণীদের কাছে তিনি অনিন্দ্য সুন্দরী। অভিনয়ের পাশাপাশি রূপে ও গুণে মুগ্ধ করেছেন দর্শকদের এই নায়িকা।

তিনি বড় পর্দার পাশাপাশি ছোট পর্দায় অভিনয় করেও কুড়িয়েছেন প্রশংসা, পেয়েছেন ভালোবাসা। এর বাইরে কখনও উপস্থাপনা দিয়ে, কখনও নেচে, কখনও গেয়ে, কখনও বা অন্য কোনো ঢংয়ে দর্শকদের বিনোদন দিয়ে থাকেন। নানা পণ্যের বিজ্ঞাপনেও দেখা গেছে মিষ্টি হাসির এই অভিনেত্রীকে।

মানবকণ্ঠ/এসআরএস


poisha bazar