নায়িকা শিমু হত্যায় স্বামী ও গাড়িচালককে জিজ্ঞাসাবাদ


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৮ জানুয়ারি ২০২২, ১২:৪১

নায়িকা রাইমা ইসলাম শিমু হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে তার স্বামী নোবেল ও গাড়িচালক ফরহাদকে আটক করেছে পুলিশ। তাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়েছে। কিছুক্ষণ পর এই হত্যাকাণ্ড, আটক দুই ব্যক্তি ও এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে সংবাদ সম্মেলন করবেন ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন কেরানীগঞ্জের ওসি মো. আবু সালাম মিয়া। তিনি মঙ্গলবার সকালে জানান, শিমুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধারের ঘটনায় তার স্বামী ও গাড়িচালককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, এটি একটি হত্যাকাণ্ড। এ হত্যাকাণ্ডে সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেলে তাদের গ্রেফতার দেখানো হবে।

এ ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি বলে জানান ওসি আবু সালাম। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এর আগে সোমবার দুপুরে কেরানীগঞ্জের হজরতপুর ব্রিজের কাছে আলিয়াপুর এলাকায় রাস্তার পাশে পড়ে থাকা দুটি বস্তা দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেন।

পুলিশ গিয়ে নারীর টুকরো লাশ উদ্ধার করে। পরে সেটি নায়িকা শিমুর লাশ বলে শনাক্ত হয়। বর্তমানে তার মরদেহ রয়েছে রাজধানীর স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (মিটফোর্ড)। সেখানেই শিমুর স্বামী ও গাড়িচালক ফরহাদ গেলে তাদের আটক করে র‌্যাব।

স্বামী ও দুই সন্তানকে নিয়ে রাজধানীর কলাবাগানের বাসায় থাকতেন ৪০ বছর বয়সি শিমু। রোববার থেকে নিখোঁজ হন শিমু। এ ঘটনায় কলাবাগান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। এর পর দিন শিমুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত শিমুর ভাই শহিদুল ইসলাম খোকন গত রাতে জানিয়েছেন, তার ভগ্নিপতি নোবেল প্রায়ই শিমুকে মারধর করতেন। সে মাদকাসক্ত। র্যাব ও পুলিশের কাছে তারা হত্যার কথা স্বীকার করেছে।

কেরানীগঞ্জ থানার ওসি মো. আবু সালাম মিয়া আরও জানান, লাশ টুকরা করে ওই দুই বস্তায় ভরে রাস্তার পাশে ফেলে রাখা হয়েছিল। স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে বস্তার ভেতর থেকে খণ্ডিত অংশগুলো উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়।


poisha bazar


ads