‘সংগীত মানে গুরুবিদ্যা, সংগীত মানে সাধনা’

কণ্ঠশিল্পী ঝিলিক
কণ্ঠশিল্পী ঝিলিক

  • অচিন্ত্য চয়ন
  • ১৭ নভেম্বর ২০২০, ২১:৩৯

বর্তমান সময়ের শ্রোতাপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ঝিলিক। সেরাকণ্ঠখ্যাত এ কণ্ঠশিল্পী সারা বছর স্টেজ শো, টিভি অনুষ্ঠানের পাশাপাশি নতুন গান প্রকাশে ব্যস্ত থাকেন। তিনি খুব অল্প সময়ের মধ্যেই ব্যাপক শ্রোতাপ্রিয়তা লাভ করেছেন। বর্তমান ব্যস্ততা, সমসাময়িক নানা প্রসঙ্গ ও তার গানজীবন নিয়ে কথা হয় তার সঙ্গে। কথা বলেছেন— অচিন্ত্য চয়ন

শুরুর গল্প... 
আমার বাবা আব্দুল জলিল তিনি একজন সংগীত শিল্পী। সংগীত পরিবারে বড় হয়েছি। তাই শুরুটা বেশ ছোটবেলা থেকেই। আমার প্রথম ওস্তাদ তার কাছেই আমার হাতে খড়ি। গান গাইতে চেষ্টা করলাম বাবা বুঝতে পারলেন— মেয়ের গলায় সুর আছে, শেখালে ভালো কিছু করতে পারবে।

৫ বছর বয়স থেকেই বাবার কাছে গান শুনতাম, সেই থেকেই আমি গানকে নিজের করে নিলাম। ছোটরা গান শিখলে ছড়া গান বা দেশাত্মবোধক গান  দিয়ে শুরু করে  কিন্তু আমার শুরু টা লতাজি, আশাজি, রুনা লায়লা ও সাবিনা ইয়াসমিনের মতো গুণীশিল্পীদের  গান দিয়ে শুরু। শিশুকাল থেকে এই গান বেশি বেশি গাইতাম।

সেইসব গান বাবা রেকর্ড করে একটা অ্যালবাম বের করেন সাউন্টেকের ব্যানারে। সেই সময় সাউন্টেক একটি বড় কোম্পানি। ছোট্ট একটা মানুষের একটা একক অ্যালবাম বের করা কম কথা নয়। অ্যালবামের নাম ছিল ‘রঙ্গিলা বাঁশি’। শুরুটা এভাবেই।

আপনার প্রথম ও প্রিয় গান... 
প্রত্যেক শিল্পীরই মৌলিক গান স্পেশাল, আমার কাছেও। ২০০৮ সালে সেরাকণ্ঠে থাকতেই মৌলিক গান কণ্ঠ দেয়ার সুযোগ হয়। মৌলিক গানের একটি রাউন্ডে যে মৌলিক গানটি গাই তার কথা শফিক তুহিন, সুর বাপ্পা মজুমদার। গানটির নাম ‘কৃষ্ণচূড়া’। এই গানটি সব সময় আমার সেরা গানের তালিকায় থাকবে।

নতুন কাজ...
বেশ কিছু নতুন কাজ করা হয়েছে। আসলে  লকডাউনে যখন একদম  ঘর থেকে বের হতে পারছিলাম না, ঠিক তখন থেকেই বাসাতেই অনেক কাজ করে রেখেছিলাম। সেগুলো রিলিজও হয়ে গেছে। কিন্তু তারপর যখন রেকর্ডিং স্টুডিওতে গিয়ে কাজ করা শুরু করলাম বেশ কিছু কাজ করেছি— জামাল হোসেন ভাইয়ের লেখা এবং মুহিন ভাইয়ের সুরে একটা কাজ করেছি সেই গানটি এখনো রিলিজ হয়নি। আরো বেশ কিছু কাজ করেছি। এছাড়া বেশ কিছু পরিকল্পনা আছে। আমার অনেক পরিকল্পনা আছে। আস্তে আস্তে জানিয়ে দেব।

বড় কাজের পরিকল্পনা...
শিল্পীর কাছে তার সব কাজই গুরুত্বপূর্ণ। নিজের গান মানেই নিজের কাছে সেরা, সুতরাং আমি ভবিষ্যতে কাজ করে যাব। সব কাজই আমার কাছে সমান। আমি যেহেতু ভার্সেন্টাইল সিঙ্গার হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই, তাই বিভিন্ন ধরনের গান গাওয়ার চেষ্টা করি। আমি দর্শক-শ্রোতাকে ভালো গান উপহার দিতে চেষ্টা করি।

প্রতিবন্ধকতা...
২০০৮ সালে থেকে আমার সংগীত জীবন শুরু। এই সময়ে প্রতিবন্ধকতা কি আসলে আমি বুঝতে পারিনি। কারণ আমি ভীষণভাবে আমার পরিবার থেকে সাপোর্ট পেয়েছি। শুরু থেকে আজ অবধি বাবা মা পাশে আছেন। পরিবারের সকল সদস্যের নিকট হতে ভীষণ সাপোর্ট পেয়েছি। আমি কোনো প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হয়নি। আমার ভুল গুলো শুধরে দেয়ার জন্য আমার বাবা পাশে ছিলেন এবং আছে। গুরুজন থেকে ছোটরা সবাই আমাকে সাপোর্ট করেছে। আমি একটি কথা বিশ্বাস করি— যে আত্মসন্তুষ্টি  অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমি আমার কাজ নিয়ে অনেক সন্তুষ্ট।

বাংলা গানের সার্বিক অবস্থা... 
বাংলা গানের সার্বিক অবস্থা এখন বেশ ভালো। এখন যে গান তৈরি হচ্ছে তা সোনালি গান হবে কি না তা বোঝা যাবে আরো পরে। বাংলা গানের অবস্থা অনেক ভালো। তবে একটা বিষয়ে আমার মন খারাপ— তা হলো এখন কোন পূর্ণাঙ্গ অ্যালবাম হয় না। ২০০৮ থেকে শুরু করেছি এ পর্যন্ত আমার ৩টি অ্যালবাম রিলিজ হয়েছে। এখন আমার আর মনে হয় না পরবর্তী প্রজন্মের কোনো শিল্পীর অ্যালবাম করার সৌভাগ্য হবে। সে হিসেবে আমি ভাগ্যবতীই বলা যায়। বাংলা গানের সার্বিক অবস্থা ভালো বলেই মনে হয়।

অগ্রজরদের সহযোগিতা...
আমার গুরুজনদের নিকট হতে অনেক সহযোগিতা পেয়েছি। রুনা লায়লা ম্যামের নাম না বললেই নয়— কারণ সেরাকণ্ঠে বিচার কার্য থেকে শুরু করে তাদের কাছে আজ অবধি শিখছি। সিনিয়র শিল্পীরা যারা আছেন তারা প্রত্যেকেই ভীষণ ভালো বাসেন এবং ভুল শুধরিয়ে দেন। সেদিক বিবেচনায় আমি অনেক অনেক ভাগ্যবতী।

বাংলা গানের ভবিষ্যৎ... 
বাংলা গানের ভবিষ্যত্ সব সময়ই উজ্জ্বল। আমাদের অগ্রজ শিল্পীরা অনেক বিখ্যাত গান গেয়ে গেছেন এবং আমরা এখন যে গান করছি আমরা চেষ্টা করি একটা ভালো গান গাওয়ার। একটা গান তখনই ভালো হয় যখন গানের কথা সুর সংগীত ভালো হয়। মানের দিক থেকে প্রত্যেকটারই সেরা হবে— যদি আমরা মনোযোগ দিয়ে গান করি।

পরবর্তী  প্রজন্মের উদ্দেশে... 
পরবর্তী প্রজন্মের জন্য একটা পরামর্শ দিতে চাই— কোয়ানটিটির দিকে না ঝুঁকে, কোয়ালিটির দিকে মনোযোগ দিতে হবে। একটা কাজ অনেক দিন পর করলেও যেন মানুষ দীর্ঘ দিন মনে রাখে। আর মনে রাখাতে হবে— সংগীত মানে গুরুবিদ্যা, সংগীত মানে সাধনা।

মানবকণ্ঠ/এইচকে 



poisha bazar

ads
ads