মডেলিং-অভিনয় নিয়ে জীবন যাদের

রেজাউল করিম খোকন

রেজাউল করিম খোকন

poisha bazar

  • ১৫ অক্টোবর ২০২০, ১১:২১

ইয়ামি গৌতমকে আবার অনেকদিন পর নতুন একটি সিনেমায় দেখা গেল। করোনা মহামারীর কারণে এখনও সিনেমা হল বন্ধ থাকায় নেটফ্লিক্সে মুক্তি পেয়েছে ‘জিনি ওয়েডস সানি’ ছবিটি। রোমান্টিক কমেডি ধাঁচের ছবিটিতে ইয়ামিকে দিল্লি শহরে বাস করা এক টিপিক্যাল পাঞ্জাবি তরুণীর ভূমিকায় চমৎকার অভিনয় করতে দেখা গেছে। নিজে পাঞ্জাবি না হলেও পাঞ্জাবের চন্দ্রিগড়ে বড় হয়েছেন। ফলে পাঞ্জাবি মেয়ের চরিত্রে সহজ সাবলীল প্রাণবন্ত অভিনয়ে তেমন সমস্যা হয়নি তার।

গত বছর ইয়ামিকে ‘বালা’ ছবিতে একজন ‘টিকটক’ তারকার চরিত্রে দেখেছেন দর্শক। বলিউডের তরুণ প্রজন্মের সুন্দরী এই অভিনেত্রীকে গোটা উপমহাদেশ জুড়ে ঘরে ঘরে অনেকেই চেনেন। প্রায় প্রতিদিনই টিভি পর্দায় ঘনঘন হাজির হন তিনি একটি বহুল জনপ্রিয় প্রসাধণীর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে। নানা ভঙ্গিতে প্রসাধণীটির প্রচার চালান মডেল হয়ে। ফলে তার আসল নামটি না জানলেও অনেকেই ইয়ামিকে ‘ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি গার্ল ‘ হিসেবে ডাকেন। বলিউডে আজকাল তার মতো অনেক জনপ্রিয় ব্যস্ত তারকা হরদম বিভিন্ন পণ্যের মডেল হিসেবে বিজ্ঞাপনে উপস্থিত হচ্ছেন।

‘ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর’ হওয়াটাকে তারা কেউই নিজের দুর্বলতা কিংবা ব্যর্থতা বলে মনে করছেন না। বরং এটাকে ক্যারিয়ারের গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার বলে মনে করছেন। অভিনেতা-অভিনেত্রী হিসেবে নিজের জনপ্রিয় ইমেজ পরিচিতি, গ্রহণযোগ্যতা এবং ফেসভ্যালুকে কাজে লাগিয়ে বাড়তি উপার্জনের মোক্ষম উপায় মনে করছেন। মডেলিং জগত থেকে বলিউডে পা রেখেছেন এবং খ্যাতি, জনপ্রিয়তা, প্রতিষ্ঠা পেয়েছেন তেমন তারকার সংখ্যা কম নয়। ঐশ্বরিয়া রাই সিনেমায় নায়িকা হওয়ার আগে বিজ্ঞাপনে মডেলিং করেছেন। একটি কোমল পাণীয়ের বিজ্ঞাপনে মডেল হয়ে তিনি বাজিমাত করেছিলেন এক সময়ে। তখন সবার মনে ক্রেজ সৃষ্টি হয়েছিল তাকে নিয়ে। দীপিকা পাড়ুকোণও সিনেমায় অভিনয়ে আসার আগে ছুটিয়ে মডেলিং করছিলেন। মডেলিং এর পরিচিতি এবং জনপ্রিয়তা নিয়ে সিনেমায় এসেছিলেন তিনি।

জন আব্রাহাম এবং বিপাশা বসু একসময় সুপার মডেল হিসেবে ভারতীয় বিজ্ঞাপনের জগতে দুর্দান্ত চমক সৃষ্টি করেছিলেন। মডেল হিসেবে তারা ছিলেন শীর্ষ অবস্থানে। মডেলিং থেকে সিনেমায় অভিনয়ে এসে তারা দুজনেই ক্যারিয়ার বেশ জমিয়ে তুলেছিলেন। আনুস্কা শর্মাও একসময় বিজ্ঞাপনের মডেল ছিলেন মডেল হিসেবে পরিচিতি গড়ে উঠতে না উঠতে বলিউডে নায়িকা হওয়ার সুযোগ পেয়ে যান তিনি। একইভাবে অভিনেতা সিদ্ধার্থ মালহোত্রা, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, ক্যাটরিনা কাইফ, দিয়া মির্জা, লারা দত্ত, নেহা ধুপিয়া, অর্জুন রামপাল, সুস্মিতা সেন, মিলিন্দ সুমন, রণদীপ হুদা, ডিনো মোরেয়া, গুল পানাঙ, জিনাত আমান, জুহি চাওলা, লিসা রে, ফ্রিদা পিন্টো, ডায়ানা পেন্টি, স্মৃতি ইরানি প্রমুখের উদাহরণ তুলে ধরা যায়। তারা সবাই বিজ্ঞাপন মডেলিং দুনিয়া থেকে বলিউডে পা রেখেছিলেন। অধিকতর জনপ্রিয়তা, খ্যাতি, পরিচিতি এবং প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি উপার্জনের পরিমাণ বাড়ানোটা ছিল তাদের সবার লক্ষ্য।

বিজ্ঞাপনের তুলনায় সিনেমায় কাজের স্বীকৃতিটা অনেক বেশি, দর্শকদের হৃদয়ে স্থায়ীভাবে জায়গা করে নেয়া যায় এবং এখানে মেধা প্রকাশের অনেক সুযোগ পাওয়া যায়- দীপিকা পাডুকোণ তার অভিনেত্রী হিসেবে আত্মপ্রকাশের প্রেক্ষাপট বর্ণনা করতে গিয়ে অনেক আগে বলেছিলেন। সিনেমায় আসার আগে মডেলিং করার অভিজ্ঞতাটা বেশ কাজে দেয়। কারণ, সরাসরি অভিনেতা কিংবা অভিনেত্রী হিসেবে ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়ে যাওয়া একজন নবাগতের চেয়ে মডেল হিসেবে কাজ করে আসা একজন তার পারফরমেন্স এবং টেকনিক্যাল নানা বিষয়ে মোটামুটি পারঙ্গম থাকেন। ফলে কাজ করতে সুবিধাই হয়। ক্যাটরিনা কাইফ ‘বুম’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে পা রাখার আগে লন্ডনে মডেল হিসেবে বেশ কিছু কাজ করেছিলেন।

যা সিনেমায় কাজ করার সময় তাকে অনেকটাই সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে বলে অনেকবার স্বীকার করেছেন বলিউডের জনপ্রিয় সুন্দরী এই অভিনেত্রী। বিপাশা বসু মডেল হিসেবে ঝড় তুলেছিলেন এক সময়ে। এলিট মডেল হিসেবে তার আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খ্যাতি ছড়িয়ে পড়েছিল। বলিউডে অভিনয় করতে নেমে তাকে আটকাতে পারেনি কেউ। ‘যে কোনো ধরনের চরিত্রে যে কোনো সিচুয়েশনের দৃশ্যে অভিনয়ে আমি বিব্রত হইনা, আমার কাছে প্রতিটি কাজই চ্যালেঞ্জিং মনে হয়, আমি এ শিক্ষা পেয়েছি মডেলিং করতে গিয়ে,’ নিজের পেশাদারিত্বের প্রকাশ ঘটানো অভিনেত্রী বিপাশা বসু বলেন। মডেলিং থেকে সিনেমা কিংবা টেলিভিশনে অথবা ওয়েব সিরিজে অভিনয়ে আসা অভিনেতা অভিনেত্রীরা বরাবরই তাদের পূর্ব অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে সুবিধাজনক অবস্থানে থাকতে চান। মডেলিং জগত থেকে সিনেমায় এসে সবাই যে বাজিমাত করতে পারেন কিংবা পেরেছেন সেটাও বলা যায় না।

মডেলিং থেকে সিনেমায় আসা তারকাদের সম্পর্কে বলার পর এখন তুলে ধরেছি এর বিপরীত ব্যাপারটি। বলিউডের খ্যাতিমান জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠিত তারকাদের এখন বিভিন্ন পণ্য কিংবা সেবা পণ্যের বিজ্ঞাপনে মডেল হয়ে দর্শকদের সামনে হাজির হতে দেখা যাচ্ছে। বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা অভিনেত্রীদের ফেসভ্যালুকে পুঁজি করে বিজ্ঞাপনদাতারা ভোক্তা-ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে অবিশ্বাস্য পরিমাণ পারিশ্রমিক, সম্মানী দিতে কুণ্ঠাবোধ করছেন না। একজন অমিতাভ বচ্চন কিংবা একজন আমির খান যখন কোনো বিজ্ঞাপনে মডেল হন তখন ঐ বিজ্ঞাপনটি সাধারণভাবে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করে, ক্রেতা-ভোক্তাদের মনে বিশেষ প্রভাব বিস্তার করে। বলিউড তারকাদের এখন সিনেমার চেয়ে বেশি দেখা যায় বিভিন্ন পণ্যের বিজ্ঞাপনে। পটেটো চিপস, নুডুলস থেকে শুরু করে প্রসাধন সামগ্রী, ব্র্যান্ডের পোশাক, ব্যাংক বীমা, মোবাইল সেবা এমনকি গাড়ি, রিয়েল এস্টেট প্রভৃতির বিজ্ঞাপনে তারা আপন ইমেজ এবং পরিচিতি নিয়ে নানাভাবে নানাভঙ্গিতে মডেল হিসেবে উপস্থিত হয়ে থাকেন।

আলিয়া ভাটের কথা ধরা যাক। এখন তাকে টুথপেষ্ট, চিপস, সুগন্ধী তেল, প্রসাধন সামগ্রীর বিজ্ঞাপনে খুব ঘন ঘন দেখা যাচ্ছে। ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হয়ে আলিয়া সিনেমায় অভিনয়ের কাছাকাছি পরিমাণ অর্থ উপার্জন করছেন বলে স্বীকার করেছেন এক সাক্ষাতকারে। রনবীর কাপুর, রনবীর সিং, অক্ষয় কুমার, সালমান খান, শাহরুখ খান, সারা আলি খান, অনিল কাপুর, দীপিকা পাডুকোণ, আনুস্কা শর্মার মতো জনপ্রিয় তারকাদের এখন প্রতিদিনই বিভিন্ন পণ্যের প্রচারে টিভি পর্দায় নানাভাবে হাজির হতে দেখা যায়। সাইফ আলি খান- কারিনা কাপুর খান জুটি হিসেবে রূপালি পর্দায় বাজিমাত করতে না পারলেও হালে এই তারকা দম্পতি এক সঙ্গে একটি বিখ্যাত সাবানের বিজ্ঞাপনের মডেল হিসেবে উপস্থিত হয়ে আলাদা সেনসেশন সৃষ্টি করেছেন। কাজল সিনেমায় অভিনয় ব্যস্ত নন এখন। ঘরদোর সামলাতেই ব্যস্ত তিনি বর্তমানে। নিজের ঘরোয়া ইমেজ নিয়ে গৃহবধূর সাজে স্বামী অভিনেতা অজয় দেবগনের সাথে বেশ কয়েকটি বিজ্ঞাপনে উপস্থিত হয়েছেন বলিউডের একদার জনপ্রিয় এই তারকা অভিনেত্রী।

বলিউড সেলিব্রেটিদের বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করার ব্যাপারটি আজকের নতুন কোনো বিষয় নয়। অতীতে হেমা মালিনী, রেখা, শ্রীদেবী, জয় প্রদা, মাধুরী দীক্ষিতদের মাঝে মধ্যে হঠাৎ বিভিন্ন প্রসাধন সামগ্রীর বিজ্ঞাপনে দেখা যেত। একইভাবে জনপ্রিয় পুরুষ তারকা অমিতাভ বচ্চন, বিনোদখান্না, কবির বেদী, শত্রুঘ্ন সিনহা প্রমুখকে হঠাৎ হঠাৎ বিভিন্ন বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে উপস্থিত হতে দেখা গেলেও তারা এখনকার মতো প্রচুর সংখ্যক বিজ্ঞাপনে মডেল হওয়া বলিউড তারকাদের মতো ব্যস্ত ছিলেন না কোনোভাবেই। আজকাল সিনেমায় অভিনয়ের ব্যস্ততার পাশাপাশি তুলনামূলক কম সময় দিয়ে বেশি আয়ের সহজ উপায় হিসেবে মডেলিং এর কাজটিকে বেশ গুরুত্ব দিচ্ছেন। তারা বিষয়টিকে কোনোভাবেই অস্বীকার না করে ক্যারিয়ারের অংশ বিবেচনা করছেন।

মানবকণ্ঠ/এইচকে





ads







Loading...