করোনাকালে তারকাদের ঈদ

মানবকণ্ঠ

poisha bazar

  • ৩০ জুলাই ২০২০, ১১:৩০

মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসবের একটি পবিত্র ঈদুল আজহা। তবে এবারের ঈদটা অনেকটা রংহীন। পুরো বিশ্ব দাপিয়ে বেড়াচ্ছে কোভিড-১৯ নামের এক অজানা ভাইরাস। করোনা ভাইরাসের কারণে থমকে গিয়েছে অর্থনৈতিক চাকা। সব জায়গায় ভাইরাসটির প্রভাব পড়েছে। সিনেমা হল বন্ধ থাকার কারণে এই ঈদে মুক্তি পাচ্ছে না কোনো নতুন ছবি। নাটকেরও তেমন একটা শুটিং চোখে পড়ছে না। এই দুর্দিনে মিডিয়াপাড়ার তারকারা ঈদ নিয়ে কি ভাবছেন সে কথাই জানাচ্ছেন-রেজা শাহীন

এবার ঈদে কোরবানি দিচ্ছি না। যে টাকা দিয়ে কোরবানি দেয়ার কথা ছিল সে টাকা দিয়ে গরিব মানুষদের দান করব। আসলে করোনা ভাইরাসের সময়ে পশু কিনতে যাওয়াটা রিস্ক হয়ে যায়। তাছাড়া এই মুহূর্তে কোরবানি দেয়ার বিধি বিধানগুলো পালন করাটাও কঠিন হয়ে যাচ্ছে। এবার তেমন কোনো পরিকল্পনা নেই। এই ঈদে ঢাকাতেই থাকা হচ্ছে। ছোটবেলার একটা কথা মনে পড়ছে, একবার আমার সামনে কোরবানি করা একটা গুরু জবাই করতে গিয়ে দাঁড়িয়ে গিয়েছিল। আমি ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম। তারপর থেকে আর কখনো কোরবানির পশু জবাই করা দেখতে যাইনি। বিয়ের পর প্রথম ঈদ ছিল গত রোজার ঈদ। সে ঈদে শ্বশুরবাড়ির সবার থেকেই সালামি পেয়েছি। করোনাকালীন সময়েও কিন্তু আমাদের কাজ থেমে নেই। কাজের পরিধি কিছুটা কমে আসছে। তবে আমাদের টিভি নাটকের কাজ চলছে ভালোই। আশা করছি খুব শিগগিরই করোনার ভ্যাকসিন চলে আসবে এবং সিনেমার কাজও শুরু হবে পুরোদমে।
- মুমতাহিনা টয়া


ঈদ সব সময়ই আমার কাছে আনন্দের। হোক সেটা ছোটবেলা কিংবা বড়োবেলা। প্রতি বছরই আমি গরুর হাটে গিয়ে গরু কিনি। এবারো হাটে গিয়ে গরু কিনব ইনশাআল্লাহ।
পুরো বিশ্ব একটা মহামারীর ভেতর দিয়ে যাচ্ছে। চলচ্চিত্রে অঙ্গনেও এর প্রভাব পড়েছে। আমাদের চলচ্চিত্রে যারা কাজ করছেন তাদের মধ্যে প্রযোজক, কয়েজন আর্টিস্ট বাদে বেশিরভাগই ডে ওয়াজই কাজ করে। এখন তো সিনেমার শুটিং বন্ধ। অনেকেই খুব বিপাকে আছেন। ফ্যামিলি নিয়ে চিন্তিত আছেন।
-সায়মন সাদিক


এবারের ঈদে চেষ্টা করব গরিব এবং অসহায় মানুষদের সাহায্য করার। আমাদের সবার উচিত হবে কোরবানির ঈদটা অনেক বড় পরিসরে উদযাপন না করে ছোটো পরিসরে করা। যেহেতু আমাদের আশপাশে অনেক মানুষ রয়েছেন যাদের আয়-রোজগার থেমে আছে। সুতরাং আমাদের তাদের পাশে দাঁড়াতে হবে। করোনা ভাইরাসের কারণে সব সিনেমা হল বন্ধ আছে। তাই নতুন কোনো সিনেমাও মুক্তি পাচ্ছে না ঈদে। তবে আমরা চেষ্টা করছি শুটিং চালিয়ে যাবার। সবকিছু স্বাভাবিক হতে কিছুটা সময় লাগবে।
-বাপ্পি চৌধুরী


ঈদ মানেই আনন্দ। ঈদ মানেই উৎসব। তবে এবারের ঈদটা উৎসব হিসেবে মেনে নিতে পারছি না। ঈদ মানেই তো একে অন্যের বাড়িতে বেড়াতে যাবে। যেহেতু একটা কঠিন সময় পার করছি আমরা। এবার তো সে ব্যাপারটা ঘটবে না। সুতরাং এই ঈদ আনন্দনহীন কাটবে সবার।
এই ঈদে ৬টি নাটকে থাকছে আমার। ইতোমধ্যে ১৫ আগস্ট উপলক্ষে একটি ডকুমেন্টারি ফ্লিমের শুটিং করছি। ঈদের পর পরই বেশ কয়েকটা টিভি সিরিয়ালের শুটিং করার কথা রয়েছে।
-প্রাণ রায়


গত চার বছর ধরে পেশাগত কারণে ঢাকাতেই ঈদ করি। এবারো ভাবছি ঢাকায় ঈদ করব। কয়েকদিন পরেই কোরবানির ঈদ। শুটিংয়ে ব্যস্ত সময় পার করছি। এবারের ঈদে বিভিন্ন টেলিভিশনে আমার অভিনীত বেশ কয়েকটি নাটক প্রচার হবে।
-আশরাফুল আশীষ


এবার ঈদে তেমন কোনো প্ল্যান নেই। কারণ একটা খারাপ সময় পার করছি আমরা। ঈদে ঢাকায় থাকবো। ঈদের দিনটা বাসাতেই থাকবো। ঈদের পরের দিন গ্রামে যাবো।
এই ঈদে আমার ইউটিউব চ্যানেলের জন্য একটা প্রজেক্টের কাজ করেছি। এটাকে পয়েট্রি ভিজ্যুয়াল স্টোরি বলা যেতে পারে। ‘আইরিন সুলতানা’ নামের ইউটিউব চ্যানেলে ঈদের আগেই ভিডিওটি আপলোড করা হবে।
-আইরিন সুলতানা

মানবকণ্ঠ/এইচকে





ads






Loading...