ডাক্তারের যে 'পেস্ক্রিপশনে' করোনা এড়ালেন রাউলিং (ভিডিও)

আবেগঘন ভিডিওতে প্রধানমন্ত্রীকে যা বললেন তিন এতিমের মা
- ছবি : সংগৃহীত

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৮ এপ্রিল ২০২০, ১১:০২,  আপডেট: ০৮ এপ্রিল ২০২০, ১১:০৬

হ্যারি পটার লিখে বিশ্বব্যাপী পরিচিত ব্রিটিশ লেখিকা জে. কে. রাউলিং জানিয়েছেন, তার শরীরে করোনা রোগের সব লক্ষণ ছিল। কিন্তু করোনা ধরা পড়ার আগেই তিনি সেরে উঠেছেন শুধুমাত্র এক ধরনের ব্রিদিং এক্সারসাইজ করে।

টুইটারে তিনি লিখেছেন, লক্ষণ থাকলেও আমার করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েনি। আপনারা কুইনস হাসপাতালের ডাক্তারের পরামর্শ শুনুন। দেখুন কীভাবে শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যা থেকে রেহাই মিলবে।

চিকিৎসকের পরামর্শের একটি ভিডিও শেয়ার করে রাউলিং লিখেছেন, এই বিশেষ ব্রিদিং টেকনিকে খুব সহজে ব্যাধি-মুক্তি মেলে।

এ সময় রাউলিং আরও লিখেছেন, তার কভিড 19 এর সবরকম লক্ষণ ছিল। ঠিক তখনই চিকিৎসকের পরামর্শ শোনেন তিনি। এটা করেই নাকি সুস্থ তিনি।

যখন ফুসফুসে সংক্রমণ হয়, তখন প্রয়োজন ফুসফুসের অন্দরে হাওয়া পৌঁছে দেওয়া। এ পদ্ধতি ঠিক সেই কাজ করতেই সাহায্য করবে, এমনটাই পরামর্শ দেন রাউলিং-এর চিকিৎসক।

তিনি জানান, সেক্ষেত্রে পাঁচবার বড় বড় শ্বাস নিতে হবে। তারপর ৫ সেকেন্ড ধরে রাখতে হবে শ্বাস। ষষ্ঠবার শ্বাস নেওয়ার সময় একেবারে ভেতর অবধি শ্বাস নিন, তারপর জোরে কাশুন। অবশ্যই মুখ ঢাকা রেখে।


প্রসঙ্গত, বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮২ হাজার ৭৮ জনে। আন্তর্জাতিক সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটার জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৭ হাজার ৩৭১ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে, যা এ যাবৎ একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড। এদিকে তরতর করে বৃদ্ধি পাচ্ছে করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা। এখনও পর্যন্ত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ লাখ ৩১ হাজার ৬৯১ জন। এর মধ্যে ৩ লাখ ২ হাজার ১৫০ মানুষ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

এছাড়া বিশ্বজুড়ে বর্তমানে ১০ লাখ ৪৭ হাজার ৪৬৩ জন আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন। এদের মধ্যে ৩ লাখ ৩৮ হাজার ২২৮ জনের অবস্থা সাধারণ। ৪৭ হাজার ৮৯৮ জনের অবস্থা গুরুতর, যাদের অধিকাংশই আইসিইউতে রয়েছেন।

করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি বিপর্যস্ত ইতালি। ইতালিতে মৃত্যুর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। এখন পর্যন্ত সেখানে মারা গেছেন ১৭ হাজার ১২৭ জন। স্পেনে মৃত্যুর সংখ্যা ১৪ হাজার ৪৫ জন। যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যু হয়েছে ১২ হাজার ৮৫৪ জনের। চীনে ৩ হাজার ৩৩৩ জন। ফ্রান্সে ১০ হাজার ৩২৮ জন। ইরানে ৩ হাজার ৮৭২ জন। যুক্তরাজ্যে মৃত্যুর সংখ্যা ৬ হাজার ১৫৯ জনে দাঁড়িয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি ভয়াবহ রুপ নিচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে ১৯৭০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ৮৫৪ জন। এর মধ্যে নিউইয়র্কেই মারা গেছে সবচেয়ে বেশি।

এদিকে বাংলাদেশেও বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১৬৪ জন এবং মারা গেছেন ১৭ জন।

মানবকণ্ঠ/জেএস




Loading...
ads






Loading...