যে অসুবিধার কথা জানালেন পর্ন তারক মিয়া খলিফা


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১০ জুলাই ২০১৯, ১১:৩৬,  আপডেট: ১২ জুলাই ২০১৯, ১৫:২৩

ফাস্ট ফুড রেস্তোরাঁয় কাজ করতে করতে পর্ন জগতে জড়িয়ে পড়েন মিয়া খলিফা। এছাড়াও পর্নহাব ওয়েবসাইটে বিশ্বের ১ নম্বর পর্নতারকার খ্যাতি অর্জন করেন তিনি। তবে সম্প্রতি এক সমস্যার কথা তুলে ধরেছেন এই তারকা। 

অতি সম্প্রতি পর্নস্টার মিয়া খলিফার একটি ভিডিও সম্প্রতি ইউটিউবে আপলোড করা হয়েছে। ভিডিওটি আপলোড করার পরই সেটি ভাইরাল হয়ে যায়। ইতোমধ্যে প্রায় ৩৭ লাখ বার দেখা হয়েছে সেটি। ভিডিওতে নারীদের বড় স্তন থাকার নানা অসুবিধার কথা তুলে ধরেছেন মিয়া খলিফা।

সম্প্রতি মিয়া ইনস্টাগ্রাম ও টুইটারে নিজের একটি ছবি শেয়ার করেছেন, যেখানে মিয়ার হাতে আরবি ভাষায় লেখা লেবাননের জাতীয় সঙ্গীতের প্রথম লাইন। স্বাভাবিক ভাবেই মিয়ার উন্নতিতে হৈ চৈ পড়েছে পুরো মধ্যপ্রাচ্যে। মৌলবাদী সংগঠনগুলো ও বসে নেই সমালোচনা থেকে।

কিছুদিন আগে তাকে নিন্দার জাবাবও দিয়েছেন নিজের টুইটারে। সেখানে মিয়া লিখেছেন, আমাকে ছাড়া কি মধ্যপ্রাচ্যে আর কোনও গুরুতর সমস্যা নেই? দেশের একটা প্রেসিডেন্ট খুঁজে পাওয়া গেল?

২১ বছর বয়সী মিয়া খলিফার এই সব মন্তব্য শুনে অনেকেই থমকে গেছেন। ব্যাপারটা মোটেও অস্বাভাবিক নয়, একজন আরব দেশের পর্নস্টার হয়ে ইসলামকে অপমান করবেন তাও পর্ন ভিডিওতে, এর মানে হচ্ছে আপনি আজরাইলকে মিসকল দিচ্ছেন।

পরবর্তীতে ওয়াশিংটন পোস্টকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ব্যাপারটাকে স্যাটায়ার হিসেবে নিয়েছেন তিনি, এবং ব্যাপারটা এভাবেই দেখা উচিত!

খলিফা বলেন, এককালে লেবানীজ জাতি নিজেদের মধ্যপ্রাচ্যের সর্বাধুনিক বলে গর্ব করত, তারা পাশ্চাত্য রীতিনীতি এতটাই অনুকরণ করত যে তারা নিজেদের নিয়ে গর্বিত ছিল, আজ তারা আদিম রীতিতে বিশ্বাসিত হয়ে শোষিত হয়ে গেছে। তারা ভুলে গেছে নারী অধিকার!

বর্তমানে মিয়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় থাকেন। ১৯৯৩ সালে লেবাননের বৈরুতে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। মাত্র ১০ বছর বয়সে ২০০০ সালে পরিবারের সাথে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করা শুরু করেন। স্কুল পেরিয়ে ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাস অ্যাট এল পাসো থেকে ইতিহাস বিষয়ে বিএ ডিগ্রী অর্জন করেন।


মানবকণ্ঠ/এএম

 

 




Loading...
ads




Loading...