করোনা মোকাবেলায় মাস্কসহ ৪ পণ্য রফতানি নিষেধ

মানবকণ্ঠ
ছবি - সংগৃহীত।

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৪ মার্চ ২০২০, ১১:২৪

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় বাংলাদেশ থেকে ৪ ধরনের ওষুধ ও সামগ্রী রফতানি নিষিদ্ধ করেছে সরকার। যার মধ্যে রয়েছে সব ধরনের এন্টিভাইরাল ওষুধ, মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও গ্লাভস।

ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এখন থেকে এসব ওষুধ ও সামগ্রী রফতানি বন্ধ রেখে আমদানি বাড়ানো হচ্ছে বলেও জানান ব্যবসায়ীরা।

চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বজুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়েছে নভেল করোনাভাইরাস। তাই নানা সতর্কতামূলক পদক্ষেপ দেখা যাচ্ছে বাংলাদেশেও। এই প্রাণঘাতী ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বাঁচতে মাস্ক, গ্লাভস ও হ্যান্ড স্যানিটাইজারের মতো পণ্যের ব্যবহার বেড়েই চলেছে। এসব পণ্যের চাহিদা বাড়ায় কৃত্রিম সঙ্কট তৈরির অভিযোগ উঠছে। তাই এ অবস্থায় অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ, মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও গ্লাভসের পর্যাপ্ত মজুদ রাখার পাশাপাশি রফতানি নিষিদ্ধ করার নির্দেশনা দিয়েছে ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, তারা সরকারি নির্দশনা মেনে চলছেন পুরোপুরি।

চীনে করোনাভাইরাসের ব্যাপকতা ছড়িয়ে পড়ায় সপ্তাহ দুয়েক আগে বিপুল পরিমাণ মাস্ক ও হ্যান্ডগ্লোভসসহ ওষুধ সামগ্রী নিজ দেশে পাঠাতে শুরু করেন এদেশে অবস্থানকারী চীনা নাগরিকরা। ফলে দেশে ওইসব ওষুধের মজুদ কমে আসে। আর এ কারণেই সরকার আপতত রফতানি নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত নেয় বলেও জানান তারা।

এদিকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধিনস্থ প্রতিষ্ঠান আমদানি ও রফতানি প্রধান নিয়ন্ত্রকের দফতরের নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ আওলাদ হোসেন স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত এক গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এতদ্বারা সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতির জন্য জানানাে যাচ্ছে যে , বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের আলােকে করােনাভাইরাস সংক্রমণ রােধে ফেস মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজারের চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে দেশে উৎপাদিত ফেস মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার রফতানি পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত জনস্বার্থে সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ করা হলাে।

প্রসঙ্গত, বিশ্বের ১৯৫টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। এখন পর্যন্ত এই প্রাণঘাতি ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৭৮ হাজার ৮৪৮ এবং মারা গেছেন ১৬ হাজার ৫১৪ জন। অপরদিকে চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন এক লাখ দুই হাজার ৬৯ জন। বাংলাদেশে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে গত ৮ মার্চ। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩৩, মারা গেছেন ৩ জন।

দেশে করোনা বিস্তাররোধে এরই মধ্যে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে সভা-সমাবেশ ও গণজমায়েতের ওপর। চারটি দেশ ও অঞ্চল ছাড়া সব দেশ থেকেই যাত্রী আসা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ২৯ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। বন্ধ করে দেয়া হয়েছে দেশের সব বিপণিবিতান। এছাড়া মুলতবি করা হয়েছে জামিন ও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়াদি ছাড়া নিম্ন আদালতের বিচারিক কাজ। এমনকি মাদারীপুরের শিবচর উপজেলাকে লকডাউনও ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া করনাভাইরাস প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে মঙ্গলবার থেকে সারাদেশে সেনাবাহিনী নিয়োজিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

মানবকণ্ঠ/এইচকে




Loading...
ads






Loading...