• শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০
  • ই-পেপার
12 12 12 12
দিন ঘন্টা  মিনিট  সেকেন্ড 

ব্যস্ত ফুল চাষিরা

মানবকণ্ঠ

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২১:৪৬

নবীন হাসান, ঠাকুরগাঁও: দরজায় কড়া নাড়ছে বসন্ত। আর ক’দিন পর বিশ্ব ভালবাসা দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। দিবসগুলোকে সামনে রেখেই ব্যস্ত সময় পার করছেন ঠাকুরগাঁওয়ের ফুল চাষিরা। বিয়ে, জন্মদিন, পার্টিসহ নানা অনুষ্ঠানে ফুলের কদর রয়েছে। আর এই ফুলের চাহিদাকে মাথা রেখে কিছু উদ্যমী উদ্যোক্তা ঠাকুরগাঁওয়ে বাণিজ্যিকভাবে ফুল চাষ শুরু করেছেন। এতে করে একদিকে যেমন জেলার চাহিদা মিটছে, কর্মসংস্থান সৃষ্টি হচ্ছে অন্য দিকে লাভবানও হচ্ছেন চাষিরা।

আগে ঠাকুরগাঁওয়ে নার্সারি পর্যায়ে ফুল চাষ ও চাড়া উৎপাদন হলেও বর্তমানে বাণিজ্যিকভাবে ফুল চাষ করে স্বাবলম্বী হচ্ছেন চাষিরা। ঠাকুরগাঁওয়ের নারগুন, বেগুন বাড়ি আশ্রম পাড়া, আকচা, বড়গাঁসহ বিভিন্ন এলাকায় কয়েকজন কৃষক এই ফুল চাষ শুরু করেছেন। অন্যান্য ফসলের চেয়ে ফুল চাষের পদ্ধতি সহজ এবং বীজ বপনের ৩ মাস পর থেকেই ফুল সংগ্রহ করা যায়। দামও তুলনামূলক বেশি হওয়ায় লাভবান হচ্ছে চাষিরা। তাদের দেখাদেখি আগ্রহী হয়ে উঠছে অন্য কৃষকরাও। বর্তমানে এ জেলায় গোলাপ, রজনিগন্ধা, গাঁদা, গ্লাডিওলাসসহ নানান জাতের ফুল চাষ হচ্ছে।

ফুল চাষি জুম্মন খান জানান, কৃষি লোন ও সরকারের পৃষ্টপোষকতা পেলে তারা আরও বড় আকারে ফুলের চাষ করতে পারবে। আগামী ভালবাসা দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস মাথায় রেখে কাজ করে যাচ্ছেন তারা।

ফুল ব্যবসায়ী মিজান বলেন, আগে আমাদের যশোর থেকে ফুল আনতে হতো। এতে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হতো। তাই নিজেই ফুল চাষ শুরু করে দেই এখন নিজের বাগানের ফুল নিজেই বিক্রি করি। ফুল চাষ বৃদ্ধি ফলে একদিকে যেমন জেলার চাহিদা মিটছে অন্যদিকে অনেক কর্মস্থানের সৃষ্টি হয়েছে।

নারগুন গ্রামে ফুল বাগানে কাজ করে নবম শ্রেণির ছাত্রী তপসা রাণী। সে জানায় ফুল বাগানে কাজ করে তার যা আয় হয় এ দিয়ে সংসার ও পড়াশুনার খরচ চালায় সে। সেফালি বেগম জানান, ফুল বাগানে কাজ করে সে মাসে সাড়ে ৪ হাজার টাকা পায়। এ দিয়ে তার সংসার ভালই চলছে।

ঠাকুরগাঁও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ আফতাব হোসেন জানান, ঠাকুরগাঁওয়ের মাটি ফুল চাষের জন্য উপযুক্ত। বাণিজ্যিক ভিত্তিতে অন্যরা ফুল চাষে এগিয়ে আসলে অন্য অঞ্চলের মত এ জেলাও ফুল চাষে সমৃদ্ধ হবে।

মানবকণ্ঠ/আরবি




Loading...
ads






Loading...