এশিয়া কাপ মিশনে কাল মাঠে নামবে নারী ক্রিকেটাররা


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৭:৩৫

সিলেটে শনিবার (০১ অক্টোবর) শুরু হচ্ছে নারীদের এশিয়া কাপের অষ্টম আসর। টি-টোয়েন্টিতে রাউন্ড রবিন লিগ পদ্ধতিতে সাত দলের এবারের আসরে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচের প্রতিপক্ষ থাইল্যান্ড। বিশ্বকাপ বাছাইয়ে সফল মিশন শেষে এবার টাইগ্রেসদের লক্ষ্য ঘরের মাঠে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখা।

শনিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টায় নিজেদের প্রথম ম্যাচে থাইল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। টুর্নামেন্ট সামনে রেখে প্রথমবারের মতো আউটারে অনুশীলন করেছে টিম টাইগ্রেস। টানা খেলার মধ্যে থাকায় প্রস্তুতি নিয়ে খুব একটা শঙ্কিত নয় টিম ম্যানেজমেন্ট। প্রথম ম্যাচ থেকেই খেলতে চায় ইতিবাচক ক্রিকেট। পিংকি-জাহানারা ফেরায় দল আরও ভারসাম্যপূর্ণ হয়েছে বলে মনে করেন ক্রিকেটাররা।

ম্যাচের আগের দিন সিলেট স্টেডিয়ামে দেখা গেছে একখণ্ড সুখী বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি। ফারজানা পিংকি ব্যাটে শান দিচ্ছেন, জাহানারা পূর্ণ রিদমে পেস ফিরে পেয়েছেন। আরেক সিনিয়র ক্রিকেটার সালমা খাতুন জুনিয়রকে দিচ্ছেন বলের সিমের নিয়ন্ত্রণ আর ব্যবহারের তালিম। অনুশীলনে যে যার মতো ব্যস্ত সবাই।

এক দিন পরই এশিয়া কাপের মহারণ। ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন টাইগ্রেসদের শিরোপা ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ। তবে বিশ্বকাপের বাছাই আর টানা শিডিউলে সেখানে মিলেছে মোটে দিন তিনেকের অনুশীলনের সুযোগ।

তবে পুণ্যভূমি সিলেটের মাঠ হাতের তালুর মতোই চেনা জ্যোতির দলের। তাই তো চ্যালেঞ্জটা নিচ্ছেন অলরাউন্ডার সালমা খাতুনরা। চাপ জয় করতে স্থির করেছেন লক্ষ্য।

গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে অলরাউন্ডার সালমা খাতুন বলেন, ‘সিলেটে সবসময় আমাদের ক্যাম্প ও খেলাধুলা হয়। যেহেতু আমরা টানা খেলার মধ্যে আছি, তাই আমাদের প্রস্তুতিটা ভালোই আছে। এখানে আমরা শুধু দুদিনের প্রস্তুতির সময় পাচ্ছি। এ সময়ে আমরা নিজেদের তিন বিভাগেই ঝালাই করে নিচ্ছি। চাপ শুধু আমরা নিলেই হবে না, বাংলাদেশের সমর্থকরা সবসময় চায়, আমরা ভালো করি। আমাদের চেষ্টা থাকে সমর্থকদের ভালো কিছু দেয়ার।’

জ্যোতিদের প্রধান নির্বাচক মঞ্জুরুল ইসলাম এ বিষয়ে বলেন, ‘এখানে প্রথম বল থেকে মনোযোগী থাকাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সেটা বল, ব্যাট কিংবা ফিল্ডিং যেকোনো বিভাগেই হোক। আমাদের ম্যাচ বাই ম্যাচ পরিকল্পনা করতে হবে। আমরা যদি প্রথম ম্যাচটা জিততে পারি, তাহলে চ্যাম্পিয়ন পরিকল্পনায় একটা ধাপ এগিয়ে যেতে পারব।’

মানবকণ্ঠ/এমআই


poisha bazar