পর্দা উঠলো বিপিএলের


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২১ জানুয়ারি ২০২২, ১৩:৫৫

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) অষ্টম আসরের পর্দা উঠলো। করোনার কারণে এক বছর বিরতি দিয়ে গ্যালারি ভর্তি দর্শক নিয়েই মাঠে গড়ানোর কথা ছিল কুড়ি ওভারের এই টুর্নামেন্টের। তবে হুট করে প্রাণঘাতী ভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় দর্শকহীন মাঠে ‍শুরু হলো টি-টোয়েন্টির লড়াই। শুক্রবার দুপুরে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স-ফরচুর বরিশালের ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠেছে ২০২২ সালের বিপিএলের।

এবারের আসর রাজধানী ঢাকা ছাড়াও চট্টগ্রাম ও সিলেটে অনুষ্ঠিত হবে। মোট ২৭ দিনে মাঠে গড়াবে ৩৪ ম্যাচ। উদ্বোধনী দিনে মাঠে গড়াচ্ছে দুটি ম্যাচ। সাকিব আল হাসানের ফরচুন বরিশাল ও মেহেদী হাসান মিরাজের চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ম্যাচের পর সন্ধ্যায় মুখোমুখি হবে মুশফিকুর রহিমের খুলনা টাইগার্স ও মাহমুদউল্লাহর মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা।

ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে জমজমাট আসর বিপিএল মানেই বিতর্ক আর অসংলগ্নতার ছড়াছড়ি। ২০১২ সালে বিপিএল মাঠে গড়ানোর পর ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়। দলের নিলাম, খেলোয়াড় নিলাম থেকে শুরু করে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তাক লাগিয়ে দেয় বিসিবি ও বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। কিন্তু সময় গড়ানোর সাথে সাথে বিপিএল যেন বর্ণহীন হয়ে পড়েছে! ২০১২ সালের প্রথম আসরে চ্যাম্পিয়ন দলকে ২ কোটি টাকা প্রাইজমানি দেয়া হয়েছিল। সঙ্গে টুর্নামেন্ট সেরা খেলোয়াড়কে দেয়া হয় একটি গাড়ি।

বিপিএলের প্রথম দুই আসরে এমন চিত্র দেখা গেলেও সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে প্রাইজমানিও কমেছে। সর্বশেষ ২০১৬ সালে দুই কোটি টাকা প্রাইজমানি পেয়েছিল ঢাকা ডায়নামাইটস। ২০২০ সালে বঙ্গবন্ধু বিপিএলে রাজশাহী চ্যাম্পিয়ন হলেও কোনো প্রাইজমানি পায়নি! এবারের আসরে চ্যাম্পিয়ন দলকে ১ কোটি টাকা ও ৫০ লাখ টাকা রানার্স-আপকে দেওয়ার ঘোষণা করেছে বিসিবি।

গত ২৭ ডিসেম্বর প্লেয়ার্স ড্রাফট থেকে দল সাজানোর সুযোগ পায় ফ্র্যাঞ্চাইজিরা। এর আগে সরাসরি চুক্তিতে ছয় দল দেশি-বিদেশি ক্রিকেটারদের দলে ভেড়ায়। দল গঠন শেষে শক্তি ও অভিজ্ঞতার বিচারে অনেক এগিয়ে আছে মাহমুদউল্লাহর ঢাকা, মোস্তাফিজের কুমিল্লা এবং সাকিবের বরিশাল। তারুণ্যনির্ভর দল গড়েছে চট্টগ্রাম ও সিলেট। তারকা কিছুটা কম হলেও পিছিয়ে নেই মুশফিকের খুলনা। সবমিলিয়ে ছয় দলের লড়াইটা এবার কতটা রোমাঞ্চ ছড়ায় সেটাই দেখার।


poisha bazar


ads