• বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১
  • ই-পেপার

‘সাকিবের কাছে আরও দেশাত্মবোধ আশা করেছিলাম’

- ছবি: মানবকণ্ঠ

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২১:২৫

ঘরের মাঠে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে সিরিজে হোয়াইট ওয়াশ হয়ে বসেছে বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ড সফরে যাওয়ার আগপর্যন্ত জাতীয় ক্রিকেট দলের কোনো কার্যক্রম নেই। টানা বায়ো-বাবলে থাকার মানসিক চাপ দূর করতে দলের ক্রিকেটারদের সপ্তাহখানেকের বিশ্রাম দিয়েছে বোর্ড। এ ছুটির মাঝেই শুক্রবার সকালে সরগরম দেশের ক্রিকেটাঙ্গন।

প্রসঙ্গ- সাকিব আল হাসানের শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ খেলতে না চাওয়া। আগামী এপ্রিলে শ্রীলঙ্কার মাটিতে জাতীয় দলের টেস্ট সিরিজের বদলে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) খেলবেন সাকিব। এরই মধ্যে সাকিবকে জাতীয় দল থেকে ওই সময়ের জন্য ছুটিও দিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

সাকিবের এই টেস্ট সিরিজে খেলতে না চাওয়ার বিষয়টিকে একেক দৃষ্টিকোণ থেকে একেকভাবে বিশ্লেষণ করছেন ক্রিকেটবোদ্ধারা। কারও কারও মতে, সবার আগে জাতীয় দলকেই প্রাধান্য দেয়া উচিত ছিল দেশ তথা বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের। কেউ কেউ আবার মনে করছেন, যেহেতু ভারতের মাটিতে চলতি বছরেই হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, তাই সাকিবের আইপিএলকে বেছে নেয়ার সিদ্ধান্তই সঠিক।

এসব আলোচনায় কোনো পক্ষেই যাননি বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক রকিবুল হাসান। তিনি সরাসরি সাকিবের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে নন। তবে বর্তমানে দেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় তারকার কাছ থেকে আরেকটু বেশি দেশাত্মবোধ আশা করেছিলেন রকিবুল হাসান।

শুক্রবার কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে লিজেন্ডস চ্যাম্পিয়নস ট্রফির খেলার ফাঁকে কাছ থেকে সাকিব বিষয়ক প্রশ্নের জবাবে রকিবুল বলেন, ‘সাকিব শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে না, এটা কিন্তু তার ব্যক্তিগত কারণ নয়। মূল কারণটাই হলো আইপিএল এবং ক্রিকেট বোর্ড তাকে চিন্তাভাবনা করে এনওসি (নো অবজেকশন সার্টিফিকেট) দিয়েছে। (আইপিএল) অনেক টাকার ব্যাপার। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, সাকিবের জায়গা থেকে জাতীয়তাবোধটা আরেকটু বেশি দেখানো হলে বিষয়টা ভালো হতো।’

সাকিবের এমন সিদ্ধান্তের পেছনের যৌক্তিকতা বোঝাতে তিনি সঙ্গে আবার যোগ করেন, ‘তবে দেখেন, প্রত্যেকটা খেলোয়াড়ের নিজস্ব চিন্তাভাবনা থাকে। একজন খেলোয়াড়ের জীবন ১০ থেকে ১৫ বছর থাকে। এ সময়ের মধ্যেই সে নিজের ভবিষ্যতটা (আর্থিক নিশ্চয়তা) নিশ্চিত করে নেয়। সেদিক থেকে চিন্তা করলে ঠিক আছে।’

ক্রিকেটার হিসেবে সাকিব আল হাসান দলে না থাকা যে কত বড় ক্ষতি, সেটি উল্লেখ করে রকিবুল বলেন, ‘যদি দেশের দিক থেকে চিন্তা করি... সাকিবের মতো খেলোয়াড় কিন্তু সবসময় আসে না। সাকিব হলো বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে একজন অন্য গ্রহের ক্রিকেটার, যেটা আমি সবসময় বলি। ১০-১২ বছরের মধ্যে এমন ক্রিকেটার আসবে না। ফলে (সাকিবের না থাকা) আমাদের জন্য বড় ক্ষতি।’

সর্বোপরি সাকিবের সিদ্ধান্তকে পুরোপুরি নেতিবাচকভাবে না নিলেও, দেশের সেরা ক্রিকেটারের কাছে প্রত্যাশা আরেকটু বেশিই ছিল রকিবুলের, ‘আমি আশা করেছিলাম...। এ সময়টায় যে শ্রীলঙ্কা সফরে টেস্ট সিরিজ আছে, তার না থাকায় দলের ভারসাম্য নষ্ট হবে। আমাদের জাতীয় দলেরই ক্ষতি হবে। আর জাতীয় দলের ক্ষতি মানে দেশের ক্ষতি। সেদিক থেকে আমি মনে করি... আমি বলব না যে এটাকে ভালোভাবে নেইনি, তবে (সাকিবের কাছে) আরও দেশাত্মবোধ আশা করেছিলাম।’

মানবকণ্ঠ/আইএইচ






ads
ads