ওপেনার সাইফ ও ট্রেনার নিক করোনা আক্রান্ত

টাইগার শিবিরে দু'জন করোনা পজিটিভ
ওপেনার সাইফ ও ট্রেনার নিক

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৭:৪৮,  আপডেট: ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৯:৪১

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ক্রিকেটার ও স্টাফদের মধ্যে দুজনের করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তাঁরা হলেন- তরুণ ওপেনার সাইফ হাসান ও জাতীয় দলের ট্রেনার নিক লি।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পক্ষ থেকে দেয়া আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। 

শ্রীলঙ্কা সফর সামনে রেখে সোমবার মুশফিকুর রহীম, মোস্তাফিজুর রহমান, সৌম্য সরকারসহ ১৭ ক্রিকেটার ও সাতজন সাপোর্ট স্টাফের করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা নেয়া হয়। করোনা পরীক্ষায় এদের মধ্যে দু'জনের পজিটিভ এসেছে বলে মঙ্গলবার বিকেলে জানা যায়। 

আজ (মঙ্গলবার) বিকেল সোয়া ৩টার দিকে বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা রিপোর্ট পেয়েছি। নির্দেশিকা অনুযায়ী বিসিবি সিইওকে রিপোর্ট সম্বলিত মেইল ফরোয়ার্ড করে দিয়েছি।

বিসিবির পক্ষ থেকে মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম আনুষ্ঠানিকভাবে জানান, ১৭ ক্রিকেটার আর ৭ সাপোর্টিং স্টাফের মধ্যে শুধু দুজনের করোনা সংক্রমণ হয়েছে। সাইফ ছাড়া মুশফিকুর রহীম, তামিম ইকবাল, মুমিনুল হক, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, ইমরুল কায়েস, লিটন দাস, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান রুম্মন, এনামুল হক বিজয়, সাদমান ইসলাম, তাইজুল ইসলাম, রুবেল হোসেন, শফিউল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, আল আমিন হোসেন ও আমিনুল ইসলাম বিপ্লব ঠিকই করোনা টেস্টে উৎরে গেছেন।

জানা গেছে করোনা পজিটিভ সাইফকে বোর্ডের পক্ষ থেকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। আইসোলেশনে থাকার সময় শেষে তাকে আবার টেস্ট করানো হবে। বাকিরা কাল (বুধবার) থেকে আবার অনুশীলন করতে পারবেন।

এদিকে দেশে করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৪৫৫২ জনে। এসময় করোনা আক্রান্ত হিসেবে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন আরও ১৮৯২ জন। এতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৩ লাখ ২৯ হাজার ২৫১ জনে।

মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত করোনাভাইরাস বিষয়ক এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মৃত ৩৬ জনের মধ্যে পুরুষ ১৯ জন ও নারী ১৭ জন। ৩৫ জন হাসপাতালে ও বাড়িতে একজনের মৃত্যু হয়। করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় ৯৪টি করোনা পরীক্ষাগারে ১৫ হাজার ১৪২টি নমুনা সংগ্রহ হয়। পরীক্ষা হয়েছে ১৪ হাজার ৯৭৩টি নমুনা। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৬ লাখ ৫৯ হাজার ৬৯৭টি।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও তিন হাজার ২৩৬ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল দুই লাখ ২৭ হাজার ৮০৯ জনে। বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ৩৬ জনের মধ্যে দশোর্ধ্ব দুই, ত্রিশোর্ধ্বে দুই, চল্লিশোর্ধ্ব চার, পঞ্চাশোর্ধ্ব ছয় এবং ষাটোর্ধ্ব ২২ জন রয়েছেন। বিভাগ অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা বিভাগে ১৬ জন, চট্টগ্রামে ছয়, রাজশাহীতে দুই, খুলনায় আট, বরিশালে দুই, সিলেটে এক এবং রংপুর বিভাগে একজন।

এদিকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) প্রতিদিন মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। সেই সঙ্গে বাড়ছে করোনা জয় করে সুস্থ হওয়া মানুষের সংখ্যাও। বিশ্বে এ পর্যন্ত এক কোটি ৯৫ লাখ ৮৬ হাজার ৮৬০ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন দুই লাখ ২৪ হাজারের বেশি মানুষ।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ৭৪ লাখ ৮৫ হাজার ৪২৩ জন। মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮ লাখ ৯৬ হাজার ৮৪২ জন। সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন এক কোটি ৯৫ লাখ ৮৬ হাজার ৮৬০ জন।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আরও ৩ হাজার ৮৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এই সময়ে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৯৭ হাজার ৬৮৫ জন। একই সময়ে সুস্থ হয়েছেন সুস্থ হয়েছেন দুই লাখ ২৪ হাজারের বেশি মানুষ।

করোনাভাইরাসজনিত কোভিড-১৯ রোগ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে সেরে উঠেছে ৩৭ লাখ ৫৮ হাজার ৬২৯ জন, ব্রাজিলে ৩৩ লাখ ৫৫ হাজার ৫৬৪, ভারতে ৩৩ লাখ ২১ হাজার ৪২০, রাশিয়ায় আট লাখ ৪৩ হাজার ২৭৭, দক্ষিণ আফ্রিকায় পাঁচ লাখ ৫৬ হাজার ৫৫৫, পেরুতে পাঁচ লাখ ২২ হাজার ২৫১, কলোম্বিয়ায় পাঁচ লাখ ২৯ হাজার ২৮৯, মেক্সিকোতে চার লাখ ৪৬ হাজার ৭১৫, চিলিতে তিন লাখ ৯৫ হাজার ৭১৭, ইরানে তিন লাখ ৩৫ হাজার ৫৭২, সৌদি আরবে দুই লাখ ৯৭ হাজার ৬২৩, পাকিস্তানে দুই লাখ ৮৬ হাজার ১৬, তুরস্কে দুই লাখ ৫২ হাজার ১৫২, জার্মানিতে দুই লাখ ২৭ হাজার, বাংলাদেশে দুই লাখ ২৪ হাজার ৫৭৩, ইতালিতে দুই লাখ ১০ হাজার ২৩৮, কাতারে এক লাখ ১৭ হাজার ২৪১, কানাডায় এক লাখ ১৬ হাজার ৪৫৯, ফ্রান্সে ৮৭ হাজার ৮৩৬ জন, ওমানে ৮২ হাজার ৮০৫ এবং চীনের মূল ভূখণ্ডে ৮০ হাজার ৩৩৫ জন সুস্থ হয়ে উঠেছে।

এ ছাড়া কুয়েতে ৮১ হাজার ৩৭ জন, সংযুক্ত আরব আমিরাতে ৬৬ হাজার ৫৩৩, সিঙ্গাপুরে ৫৬ হাজার ৪০৮, সুইজারল্যান্ডে ৩৭ হাজার ৭০০, দক্ষিণ কোরিয়ায় ১৬ হাজার ৬৩৬, অস্ট্রেলিয়ায় ২২ হাজার ৬০৪ ও মালয়েশিয়ায় ৯ হাজার ১২৪ জন সুস্থ হয়ে উঠেছে।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম দেখা দেওয়া প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১৩টি দেশ, অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে।

মানবকণ্ঠ/এইচকে





ads







Loading...