আইসিসির ওপর বিরক্ত আথারটন


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৮ জুলাই ২০২০, ১৭:৩৩,  আপডেট: ২৮ জুলাই ২০২০, ১৭:৩৫

ক্রিকেট বিশ্বের চতুর সমালোচকদের একজন মাইকেল আথারটন। বর্তমানে ধারাভাষ্যকার হিসেবে বেশ সুনাম কুড়ানো সাবেক ইংলিশ ক্রিকেটার আবারো এলেন আলোচনায়। এবার আইসিসির নতুন টুর্নামেন্ট বিশ্বকাপ সুপার লিগের হিসেবকে বড় জটিল বলে, ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থাটির কড়া সমালোচনা করেছেন তিনি।

আগামী ওয়ানডে বিশ্বকাপের আয়োজক ভারত বাদে সাত দলকে সুপার লিগ খেলে পেতে হবে ২০২৩ বিশ্বকাপের টিকিট। তিন বছরে প্রথম সুপার লিগে খেলবে মোট ১৩টি দল। ১২টি টেস্ট খেলুড়ে দেশের সঙ্গে অংশ নেবে ২০১৫-১৭ আইসিসি ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লিগের বিজয়ী দল হল্যান্ড। যেখানে, প্রতিটি দল খেলবে আটটি করে সিরিজ। চারটি নিজেদের মাঠে, চারটি প্রতিপক্ষের মাঠে। প্রতিটি সিরিজ হবে তিন ম্যাচের। লিগের শীর্ষ ৭ দল জায়গা করে নেবে চূড়ান্ত পর্বে।

এত জটিল হিসাব-নিকাশেই যত বিরক্তি আথারটনের। তার মতে, আইসিসি কদিন পর পর নতুন ফরম্যাট সমর্থকদের দ্বিধা-দ্বন্দ্বে ফেলছে। সাবেক ইংলিশ অধিনায়কের প্রশ্ন, সাধারণ মানুষের কাছে যদি এসব জটিল লাগে তবে তারা ক্রিকেট উপভোগ করবেন কীভাবে?

কাল ইংল্যান্ড-আয়ারল্যান্ড সিরিজ দিয়ে শুরু হতে যাচ্ছে। তিন বছরে এই লিগে হবে মোট ম্যাচ হবে ১৫৬টি। বিশ্বকাপ সুপার লিগ নিয়ে আথারটন বলেন, ‘যেকোনো কিছুর পেছনে যুক্তি থাকে। এখন যেটা হতে যাচ্ছে এটা ভীষণ জটিল। যার মাধ্যমে আপনি দুটো ব্যবস্থাকে এক করতে চাইছেন। বিশ্বকাপ, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ তো আছেই। চ্যাম্পিয়নস ট্রফিও ছিল। এখন দ্বিপক্ষীয় সিরিজেও হাত বাড়ানোর চেষ্টা করছেন। ভবিষ্যত্ সফর সূচির (এফটিপি) মাধ্যমে সব দল যেখানে একে অপরের বিপক্ষে খেলে। এখন দুটিকে একত্র করা সত্যিই অনেক কঠিন।’

স্বাগতিক ভারত সরাসরিই খেলবে বিশ্বকাপ। সরাসরি বিশ্বকাপে উঠতে না-পারা পাঁচ দল ও সহযোগী পাঁচ সদস্য দল খেলবে ২০২৩ বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে। সেখান থেকে মূল আসরে সুযোগ পাবে দুই দল। তারপর ১০ দলের অংশগ্রহণে হবে ২০২৩ বিশ্বকাপ। বেশ বিরক্তি তাই আথারটনের কণ্ঠে, ‘রাস্তার একজন লোককে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করেন। আমরা খেলাটার সঙ্গে এতদিন জড়িয়ে থাকার পরও ভালোভাবে বুঝতে পারছি না।’

এদিকে, আরেক ইংলিশ অধিনায়ক অ্যান্ড্রু স্ট্রাউস আইসিসির পক্ষে আছেন। তিনি বর্তমানে আইসিসির ক্রিকেট কমিটিতে থাকাতেই হয়তো বললেন, ‘এটা বুঝতে কঠিন মনে হচ্ছে। তবে সহজ কিছু বের করাও সহজ নয়। আমরা সবাই বলতে শুরু করলাম, দ্বিপাক্ষিক সিরিজ অর্থহীন, গুরুত্বহীন হয়ে পড়ছে। আইসিসি তখন চেষ্টা করে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে এলো। তখন সবাই পড়ল এটির পয়েন্ট পদ্ধতি নিয়ে। পয়েন্ট পদ্ধতি খুব জটিল। এখন সুপার লিগ নিয়ে আসা হলো, এটা নিয়েও অনেক প্রশ্ন। তারা (আইসিসি) কিছু করলে দোষ, না করলেও দোষ!’






ads