করোনামুক্ত অপু


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০১ জুলাই ২০২০, ১৭:১৪

করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হলে ঘরবন্দি হওয়া ছাড়া উপায় নেই। কিন্তু খেটে খাওয়া মানুষগুলোর সেই জো কোথায়! পেটের টানে ঠিকই তাদের ঘর থেকে বের হতে হয়েছে। ত্রাণের খোঁজে ঘুরতে হয়েছে রাস্তায় রাস্তায়। অসহায় এই মানুষগুলোর সাহায্যার্থে এগিয়ে এসেছেন জাতীয় দলের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার। তাদের মধ্যে অন্যতম নাজমুল ইসলাম অপু।

নিজ এলাকা নারায়ণগঞ্জে অক্লান্ত পরিশ্রম করে গেছেন তিনি। শুধু তা-ই ত্রাণ দেয়ার জন্য চষে বেড়িয়েছেন এক জেলা থেকে আরেক জেলা। তাতে অবশ্য শঙ্কা ছিল প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের কবলে না পড়ে যান বাঁহাতি এই স্পিনার। শেষ পর্যন্ত শঙ্কা রূপ নিল বাস্তবতায়।

তবে করোনাকে পরাজিত করতে অপু ছিলেন দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। দশ দিনের কঠিন লড়াইয়ের পর করোনামুক্ত হওয়ার সুখবরটি দিলেন বাঁহাতি এই স্পিনার। সেই সঙ্গে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস থেকে পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ওঠেছেন তার পরিবারও।

তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে আমি পুরোপুরি সুস্থ। গতকাল আমার এবং বাবা-মায়ের করোনা টেস্ট করিয়েছি। সবার রেজাল্টই নেগেটিভ এসেছে।’

কোভিড-১৯ পজিটিভ হওয়ার পর এক মুহূর্তের জন্যও ঘাবড়ে জাননি অপু। ঠিকই জানতেন এর বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য দরকার শক্ত মানসিকতা। তাই সবসময় ইতিবাচক থাকার চেষ্টা করেছেন তিনি। মেনে চলেছেন সবরকমের স্বাস্থ্যবিধি, ‘গত পরশু করোনা পরীক্ষা করতে দিয়েছিলাম। আজ একটু আগে রিপোর্ট দিয়েছে। সবারটাই নেগেটিভ এসেছে। বাসায় থেকে চিকিত্সকের পরামর্শ মেনে চলার চেষ্টা করেছি। সব সময় ইতিবাচক থাকার চেষ্টা করেছি। আসলে মানসিকভাবে শক্ত না হলে লড়াই করা কঠিন।’

কঠিন এই সময় হাজারো মানুষের খোঁজ-খবরে আপ্লুত অপু, ‘আমাদের করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর শোনার পর কত মানুষ যে ফোন করে দোয়া করেছেন, তা বলে বোঝাতে পারব না। অনেক মানুষ বাসার কাছে এসে দোয়া করেছেন, সাহস দেখিয়েছেন। ফোনে অজস্র বার্তা পেয়েছি। সেগুলো আমার খুব কাজে এসেছে। মানুষের ভালোবাসা, আল্লাহর কৃপায় আমি সুস্থ হয়েছি।’

তবে বয়স্ক বাবা-মাকে নিয়ে বেশ চিন্তিত ছিলেন অপু, ‘মা-বাবাকে নিয়ে বেশি চিন্তায় ছিলাম। উনাদের তো বয়স হয়েছে। ডায়াবেটিস ছিল। চলাফেরা ঠিকঠাক মতো করতে পারলেও করোনার জন্য তাদের নিয়ে বেশি উদ্বিগ্ন ছিলাম। আল্লাহর রহমত বড় বিপদ থেকে রক্ষা পেয়েছি। এখন সামনে আরো সতর্ক হয়ে থাকতে হবে। সবার আছে বাবা-মায়ের জন্য দোয়া চাই।’

করোনাজয়ী হওয়ার লড়াইয়ে অপু প্রেরণা নিয়েছেন সাবেক ক্রিকেটার ও কোচ আশিকুর রহমানের থেকে। সম্প্রতি তিনিও কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়েছিলেন, তবে এখন পুরোপুরি সুস্থ। তার কঠিন সেই দিনগুলোর গল্প শুনে নিজের উপর বিশ্বাস রাখতে শুরু করেন অপু, ‘করোনা হলে প্রচণ্ড সাহস রাখতে হবে। আমি একদম পজিটিভ ছিলাম। সব সময় ভাবতাম ঠিক হয়ে যাবে। আমার কিছু হয়নি। আশিক ভাইয়ের (ক্রিকেট কোচ) সাথে কথা হয়েছিল। উনি করোনায় আক্রান্তের পর কি কি করেছিলেন সেগুলো সব আমাকে বলেছিলেন। আমি সেগুলো অনুসরণ করার চেষ্টা করেছি। নিজের উপর বিশ্বাস রাখতে হবে, সাহস রাখতে হবে। তাহলেই করোনা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।’

মানবকণ্ঠ/এফএইচ





ads






Loading...