আফিফের দৃষ্টিতে বাংলাদেশের ভারত বধ

মানবকণ্ঠ
ছবি - প্রতিবেদক।

poisha bazar

  • মানবকণ্ঠ ডেস্ক
  • ০৬ নভেম্বর ২০১৯, ১১:০২

ভারতের মাটিতে বাংলাদেশকে প্রথম জয় ম্যাচজয়ী অপরাজিত ৬০ রানের ইনিংস খেলে সব নজর কেড়ে নিয়েছেন লিটল মাস্টার মুশফিকুর রহীম। কিন্তু তার আগে বাংলাদেশের জয়ের চাদর বিছিয়ে দিয়েছিলেন বোলাররা। যেখানে অন্যতম অবদান ছিল অলরাউন্ডার আফিফ হোসেনের। টানা ৩ ওভার বোলিং করে মাত্র ১১ রান দিয়ে উইকেট নেন একটি। অথচ এই জয়ের আগে বাংলাদেশ দল ছিল ঝড়ে বিধ্বস্ত। কিন্তু এই এক জয়ে বাংলাদেশের পায়ের তলার মাটি হয়েছে অনেক শক্ত।

মাঠে লড়াইয়ে জিতে নিজেদের ফিরে পাওয়ার আগে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা নিজেদের ফিরে পাওয়ার পণ করেছিলেন। কিভাবে তারা মানসিক শক্তি জোগাড় করেছিলেন তা গতকাল সংবাদ মাধ্যমকে জানান আফিফ। তিনি বলেন, ‘দলের পরিকল্পনা ছিল, ফিল্ডিংয়ে সবাই আগ্রাসী থাকব। মাঠে সেটাই করার চেষ্টা করেছি। ফিল্ডিংয়ের ব্যাপারে অনেক জোর দেয়া হচ্ছে। যেন প্রত্যেকটা সুযোগ কাজে লাগাতে পারি।’ আর নিজেদের পাওয়ার জন্য মনের রসদ জোগান দিয়েছেন কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো ও দলনেতা মাহমুদউল্লাহ।

তিনি বলেন, ‘আমাদের অধিনায়কের বার্তা ছিল, যে যেটা সবচেয়ে ভালো পারে, সেটাই করতে হবে। একটা দল হিসেবে খেলতে হবে। এটাই ছিল আমাদের প্রতি তার বার্তা।’ কোচের কথা বলতে গিয়ে তিনি জানান, ‘কোচ আমাদের বলেছেন, সব সময় মন খুলে খেলতে। যে যেভাবে খেলতে পছন্দ করে, তাকে সেভাবে খেলার স্বাধীনতা দেয়া হচ্ছে বলেই এভাবে খেলতে পারছে। সবাই নিজের জায়গা থেকে নিজের সেরাটা দেয়ার চেষ্টা করছে। এই পরিকল্পনাই ছিল দলের। আমরা অনুশীলনে এভাবেই চেষ্টা করেছি। সবাই এক সঙ্গে থেকেছি।’

সাকিব-তামিম না থাকাতে এবং মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনও ইনজুরিতে থাকায় তাদের স্থান পূরণ করা হয়েছিল তরুণদের দিয়ে। যেখানে সুযোগ পাওয়া সবাই নিজেদের সামর্থ্য প্রমাণ দিয়েছেন। এখানে সিনিয়র ক্রিকেটার অভিভাবকের মতো এ প্রসঙ্গে আফিফ বলেন, ‘আমাদের সিনিয়র খেলোয়াড়রা জুনিয়রদের অনেক সহায়তা করছেন। এটা আমাদের চাপহীন ও ভীতিহীন ক্রিকেট খেলতে অনেক সাহায্য করেছে। তারা সব সময় সহায়তা করে যাচ্ছেন। আশা করি সামনেও কোনো সমস্যা হবে না।’ ম্যাচ জিতলে ভুল ক্রুটি খুব একটা সামনে আসে না। আফিফও জানালেন সে রকম।

তারপরও তারা ছোট-খাটো ভুল ত্রুটিগুলো নিয়ে কাজ করবেন। তিনি বলেন, ‘ম্যাচ জিতলে আসলে তেমন ভুল বের হয় না। এরপরও ব্যক্তিগতভাবে যার যে ভুল-ত্রুটি ছিল, সে সেগুলো নিয়ে কাজ করার চেষ্টা করবে।’ প্রথম ম্যাচ জেতার পর সিরিজ জয়ের পথে এগিয়ে বাংলাদেশ। কিন্তু আফিফ এ রকম ভাবনা এনে অহেতুক চাপ নিতে আগ্রহী নন। তিনি বলেন, ‘ড্রেসিংরুমের অবস্থা ভালো। আমরা পরের ম্যাচের প্রস্তুতি নিচ্ছি।

নিজেদের খেলা নিয়ে ভাবছি। নিজেদের সেরা পারফরম্যান্স করার পর দেখা যাবে। আপাতত সবার জায়গা থেকে আমাদের সেরা পারফরম্যান্সটা করার চেষ্টা করব। আমরা জানি না ওরা চাপে আছে কিনা। তবে প্রথম ম্যাচে জেতার পর আমরা অনেক আত্মবিশ্বাসী আছি। আমরা আমাদের জায়গা থেকে ভালো অনুভব করছি। এটা পরের ম্যাচে আমাদের আরো ভালো খেলতে সাহায্য করবে।’

মানবকণ্ঠ/জেএস




Loading...
ads





Loading...