ওসমানী মেডিকেল কলেজ থেকে শিবিরের প্রচারপত্র-অস্ত্র উদ্ধার


  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ২৯ নভেম্বর ২০২২, ২১:৪৩

সিলেটে ওসমানী মেডিকেলে দীর্ঘদিন থেকে ইসলামী ছাত্রশিবির নিষিদ্ধ থাকার পরও মেডিকেলে ঐতিহ্য সাহিত্য সাংস্কৃতিক গোষ্ঠী ও রিপোর্টস ক্লাবের নামে তারা সক্রিয় ছিলো বলে জানা গেছে।

ওসমানী মেডিকেল কলেজের তৃতীয় তলার একটি কক্ষ থেকে ছাত্রশিবিরের দেশি অস্ত্র ও প্রচার সামগ্রী উদ্ধার করে কলেজ ছাত্রলীগ ও পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) বিকেল ৩টায় দেশি বিভিন্ন অস্ত্রের মধ্যে দা, কুড়াল, হকিস্টিক, স্টাম্প, জিআই পাইপসহ বিভিন্ন ধরনের লিফলেট ও প্রচার সামগ্রী উদ্ধার করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মী ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে দীর্ঘদিন থেকে বন্ধ থাকা শিবিরের নিয়ন্ত্রণাধীন তৃতীয় তলার একটি কক্ষে দেশীয় অস্ত্র ও প্রচার সামগ্রী দেখতে পান কলেজ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এসময় তারা কলেজ প্রশাসন ও পুলিশকে খবর দিলে কক্ষ খুলে হকিস্টিক, দা, কুড়ালসহ বিভিন্ন ধরনের প্রচার সামগ্রী জব্দ করে পুলিশ।

ঘটনার খবর পেয়ে ওসমানী মেডিকেল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) জুয়েল চৌধুরীর নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বিভিন্ন ধরনের দেশি অস্ত্র ও প্রচারপত্র উদ্ধার করে। এরপর ওসমানী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. ময়নুল হক ওই কক্ষ পরির্দশন করেন।

এ বিষয়ে ওসমানী মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের সাধরণ সম্পাদক নাজমুল হাসান বলেন, ডা. সৌমিত্র খুনের পর থেকে ওসমানী মেডিকেল কলেজে ছাত্রশিবিরের রাজনীতি কলেজে নিষিদ্ধ রয়েছে। কিন্তু কৌশলে ছাত্রশিবির ঐতিহ্য সাহিত্য সাংস্কৃতিক গোষ্ঠী ও রিপোর্টস ক্লাবের নামে সক্রিয় হয়ে উঠে। ইদানিং তাঁরা কলেজ ভবনের তৃতীয় তলার একটি  কক্ষে অস্ত্র মজুদ ও দলীয় প্রচারপত্র বিলি করার চেষ্টা করছে বলে আমরা জানতে পেরে কলেজ ছাত্রলীগ সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিয়ে অস্ত্র উদ্ধারে নামে। এসময় পুলিশ এসে ওই কক্ষ থেকে ও বিভিন্ন ধরনের দেশীয় অস্ত্র ও লিফলেট জব্দ করে।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ আলী মাহমুদ মানবকণ্ঠকে বলেন, আমি ঘটনার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনা স্হলে পুলিশ পাঠিয়েছি। ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা তারা নিজেরাই অস্ত্রের খোঁজ পায় এবং ক্যাম্প পুলিশের সহায়তায় উদ্ধার করেছে। এব্যাপারে কলেজ কর্তৃপক্ষ মামলা দায়ের করলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

মানবকণ্ঠ/এমআই


poisha bazar