সিরাজগঞ্জে তিন মাদ্রাসায় কেউ পাস করেনি


  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৯:৪০

সিরাজগঞ্জে এবার মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমান পরীক্ষায় তিন প্রতিষ্ঠানে কোনো শিক্ষার্থীই পাস করেনি বলে জানা গেছে। সোমবার দুপুরে এ ফল প্রকাশ করা হয়।

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী সারাদেশে ২ হাজার ৯৭৫টি প্রতিষ্ঠানের শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করলে ও ৫০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কোনো শিক্ষার্থীই পাস করতে পারেনি। যার মধ্যে সিরাজগঞ্জের রয়েছে তিনটি প্রতিষ্ঠান।

প্রতিষ্ঠান গুলো হল, উল্লাপাড়া উপজেলার বাঙ্গালা ইউনিয়নের ইসলামপুর (মাঝিপাড়া) ধরইল দাখিল মাদ্রাসা, রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের কালিকাপুর দাখিল মাদ্রাসা ও বড়পাঙ্গাসী ইউনিয়নের খন্দকার নূরুন নাহার জয়নাল আবেদিন দাখিল মাদ্রাসা।

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) দুপুরে কালিকাপুর দাখিল মাদ্রাসায় গিয়ে জানা যায়, এবার মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট ও সমমান পরীক্ষায় সাতজন ছেলে ও পাঁচজন মেয়ে অংশ নিলেও কেউ পাস করতে পারেনি। তবে এ প্রতিষ্ঠানে ১৮ জন শিক্ষক কর্মচারী কর্মরত রয়েছেন।

প্রতিষ্ঠানটি সুপার ওবায়দুল্লাহ সেখ বলেন, প্রতিষ্ঠানটি ১৯৭০ সালে প্রতিষ্ঠিত হলেও এমপিও হয় ১৯৯৪ সালে। প্রতি বছরই শিক্ষার্থীরা পাস করে। কিন্তু এবার শিক্ষার্থীরা নিয়মিত ক্লাস না করা এবং মেয়েদের বাল্যবিয়ে হওয়াতে কেউ পাস করতে পারেনি।

ইসলামপুর (মাঝিপাড়া) ধরইল দাখিল মাদ্রাসার সুপার নূরুল ইসলাম (ভারপ্রাপ্ত) বলেন, তাঁর প্রতিষ্ঠান থেকে এবার দশজন শিক্ষার্থী পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করলেও প্রত্যেকে ইংরেজি ও অঙ্ক বিষয়ে ফেল করেছে। ফেল করার কারণ হিসেবে তিনি দায়ি করছেন ওই বিষয়ে শিক্ষক না থাকাকে। তিনি জানান, এনটিআরসি চলতি বছরে শিক্ষক দুটো নিয়োগ দিয়েছে। ফলে ইংরেজি ও অংকের মতো জটিল বিষয়ে পাঠদান থেকে বঞ্চিত হয়েছে শিক্ষার্থীরা।

খন্দকার নূরুন নাহার জয়নাল আবেদিন দাখিল মাদ্রাসার সুপার রেজাউল করিম অকৃতকার্যের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তাঁর প্রতিষ্ঠান থেকে ১১জন অংশ নিলেও কেউ পাস করতে পারেনি।

উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উজ্জল হোসেন বলেন, ওই সব মাদ্রাসার ফলাফল খারাপ হওয়ার বিষয়টি খোঁজ নিয়ে এবং শিক্ষার্থীদের মানোন্নয়নের জন্য উদ্যোগ নেয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কাজি সলিম উল্লাহ মানবকণ্ঠকে বলেন, কেউ পাস করেনি এমন প্রতিষ্ঠানের নাম ও শিক্ষার্থীর তালিকা এখনও হাতে পায়নি। পেলে অবশ্যই জানানো হবে।

মানবকণ্ঠ/এমআই


poisha bazar