নীলফামারীতে চিকিৎসক লাঞ্ছনায় কাউন্সিলরকে গ্রেপ্তারের দাবি


  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ০৮ আগস্ট ২০২২, ২১:১৮

নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক শাতিল সাইমুম চৌধুরীকে লাঞ্ছিতের ঘটনায় মানববন্ধন করেছেন চিকিৎসকরা।

সোমবার (৮ আগষ্ট) সকালে জেলা শহরের চৌরঙ্গি মোড়ে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে চিকিৎসক, নার্স, মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থী এবং নার্সিং ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।

বাংলাদেশ মেডিক্যাল এ্যাসোসিয়েশন(বিএমএ) নীলফামারী জেলা শাখার সহ-সভাপতি ডা. মজিবুল হাসান চৌধুরী শাহিনের সভাপতিত্বে মানববন্ধন সমাবেশ পরিচালনা করেন বিএমএ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. দিলিপ কুমার রায়।

বক্তব্য দেন নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালের গাইনি বিভাগের কনসালটেন্ট ডা. ওবায়দা নাজনীন মুক্তা, আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) আব্দুর রহিম, মেডিক্যাল অফিসার (এমও) আরিফ হাসনাত, বিএমএ জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. হাসান হাবিবুর রহমান, মশিউর রহমান ডিগ্রী কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সারওয়ার মানিক প্রমুখ।

বক্তারা উল্লেখ করেন ঘটনার আটদিন হয়ে গেল মামলা হয়েছে অথচ চিকিৎসক লাঞ্ছনার ঘটনায় জড়িত নীলফামারী পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাহফুজুর রহমান শাহকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। বলা হয়, প্রয়োজনের তুলনায় কম জনবল নিয়ে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

পহেলা আগষ্ট সংকটাপন্ন রোগীকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা শেষে রংপুরে রেফার্ড করেন চিকিৎসক শাতিল সাইমুম চৌধুরী। এ্যাম্বুলেন্সে উঠানোর সময় রোগীর মৃত্যু হয়। রোগীর লোকজন কিছু বলেওনি অথচ একজন কাউন্সিলর চিকিৎসককে লাঞ্ছিত করলো নার্স এবং এ্যাম্বুলেন্স চালককে মারধর করলো। আমরা দ্রুত এর বিচার চাই।

মানববন্ধন অনুষ্ঠানের সভাপতি ডা. মুজিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, আমাদের সহযোগীতা করতে হবে তাহলে চিকিৎসা সেবা পেতে আরো সহজ হবে। হাসপাতালটিতে ঘাটতি জনবল নিয়ে অনেক রোগীকে চিকিৎসা সেবা দিতে হচ্ছে অথচ সেবা দিতে গিয়ে লাঞ্ছনার শিকার হতে হচ্ছে। তাকে কেউ না কেউ ইন্ধন দিয়েছেন, তারই বা উদ্দেশ্যে কি এটা বের করতে হবে। দ্রুত তাকে যদি গ্রেপ্তার করা না হয় তাহলে আমরা কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বাধ্য হবো।

প্রসঙ্গত, পহেলা আগষ্ট এ ঘটনার পরদিন নীলফামারী থানায় মামলা করেন হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবু আল হাজ্জাজ। 

 

মানবকণ্ঠ/পিবি


poisha bazar