স্ত্রীর হাত কেটে নিয়েছে স্বামী


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২০ জানুয়ারি ২০২২, ২০:৪৫

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় যৌতুকের দাবিতে স্ত্রী রোকেয়ার (২৭) হাতের কব্জি কেটে পালিয়ে গেছেন পাষণ্ড স্বামী মো: রফিক (৩১)। ঘটনাটি ঘটেছে ফতুল্লা মডেল থানার ভূঁইগড়স্থ রিয়াজ উদ্দিন বাজারের রুবেল মিয়ার বাড়ির তৃতীয় তলায়।

এ ঘটনায় আহত রোকেয়ার ভাই রুবেল বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

বাদি রুবেল জানান, তাদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম থানার দেবীদ্বার এলাকায়। দেড় বছর আগে একই জেলার ব্রাহ্মণপাড়া থানার উত্তর তোতাভুমি এলাকার মনতাজ মিয়ার ছেলে মো: রফিকের সাথে তার বড় বোন রোকেয়ার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে অভিযুক্ত রফিক ব্যবসা করার জন্য তাদের কাছ দুই লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে আসছিলেন। ইতোমধ্যে তারা এক লাখ টাকাও দিয়েছেন। বাকি এক লাখ টাকার জন্য প্রায় সময় তার বোনের স্বামী তার বোনকে নির্যাতন করতেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে প্রায় সময় ঝগড়া হতো।

গত পাঁচ মাস আগে ঝগড়া করে তার বোন কুমিল্লায় তাদের গ্রামের বাড়িতে চলে যান। এর মাসখানেক পরে রফিক তার বাবা-মাকে বুঝিয়ে তার বোনকে বর্তমান ঠিকানার বাসায় নিয়ে আসেন। কিছুদিন নিরব থাকার পর আবারো টাকার জন্য চাপ দেয়া শুরু করেন। এ নিয়ে প্রায়ই ঝগড়া হতো।

শনিবার রাত ৭টার দিকে রফিক বাসায় এসে তার বোনের কাছে যৌতুকের টাকা দাবি করেন। এ নিয়ে বাগ্বিতণ্ডা হলে রফিক তার বোনের হাত-পা বেঁধে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ডান হাতের কব্জি কেটে ফেলেন। এতে তার বোন ডাক-চিৎকার করলে তার বোনের স্বামী ফ্ল্যাট থেকে বেরিয়ে বাইরে থেকে তালাবদ্ধ করে পালিয়ে যান।

পরে পাশের ফ্লাটের ভাড়াটিয়া ও বাড়ির মালিক ঘটনাস্থলে ছুটে এসে তালাবদ্ধ ফ্ল্যাট থেকে তার বোনকে উদ্ধার করে শহরের জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে নিয়ে যান। তিনি সংবাদ পেয়ে ছুটে যান সেই হাসপাতালে। পরে সেখান থেকে তার বোনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে ডাক্তাররা পঙ্গু হাসপাতালে স্থানান্তর করেন।

এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তরিকুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় গৃহবধূর ভাই বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনার পরপরই আসামি পালিয়ে গেছেন। আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান তিনি।


poisha bazar


ads