ছেলের লাশ ট্যাঙ্কিতে লুকিয়ে নির্বাচন করছে বাবা-মা!


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৬ নভেম্বর ২০২১, ১৭:২২,  আপডেট: ২৬ নভেম্বর ২০২১, ২০:০৫

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর মাদকাসক্ত ছেলেকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার মা-বাবার বিরুদ্ধে। উপজেলার নরিনা ইউনিয়নের নরিনা হানিফনগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

নিহতের নাম আব্দুল করিম (১৮)। তার মা করুনা খাতুন নরিনা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত নারী সদস্য প্রার্থী হিসাবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, পেশায় পিকআপ চালক আব্দুল করিম মাদকাসক্ত। সে প্রায় রাতেই মাদক সেবন করে বাড়ি ফিরে সবাইকে নির্যাতন করত। এতে পরিবারের সবাই তার ওপর অতিষ্ট।

গত মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) রাতে মাদক সেবন নিয়ে বাকবিতণ্ডা হয় পরিবারে। এর জেরে তার বাবা-মা তাকে বেধড়ক পিটুনি দেয়। এক পর্যায়ে তার মৃত্যু হয়। কিন্তু মৃত্যুর বিষয়টি গোপন রেখে লাশ নিজ বাড়ির টয়লেটের ট্যাঙ্কিতে ফেলে দেয় বাবা-মা মিলে। পরে তারা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের কাছে ভোট চাইতে প্রচারনায় নেমে যান।

বিষয়টি টের পেয়ে শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) সকালে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার কাজ শুরু করেছে।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা আলহাজ আলী ও মা করুনা খাতুনকে আটক করেছে পুলিশ।

নরিনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফজলুল হক জানান, বিষয়টি এলাকাবাসীর কাছ থেকে শুনে ঘটনাস্থলে ছুটে এসেছি। পুলিশও ঘটনাস্থলে এসেছে। টয়লেটের ট্যাঙ্কি থেকে লাশ উদ্ধারের জন্য পুলিশ প্রস্তুতি নিচ্ছে। এ ঘটনার পর পুলিশ নিহতের বাবা-মাকে আটক করেছে।

শাহজাদপুর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আব্দুল মজিদ বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসেছি। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। তবে এলাকাবাসীর মুখে মুখে রটনা শোনা যাচ্ছে, মা-বাবা তাকে হত্যার পর লাশ টয়লেটের ট্যাঙ্কিতে ফেলে দিয়েছে। এটা সঠিক কি না তা তদন্ত না করে বলা সম্ভব হচ্ছে না।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। এ ছাড়া লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে।


poisha bazar