মনোনয়ন গেল, চাকরিও গেল


  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৪ অক্টোবর ২০২১, ২২:১৪

জয়পুরহাট জেলার রুকিন্দীপুর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন পাওয়ার সপ্তাহ খানেকের মধ্যে তা হারিয়ে অবাকই হয়েছেন কামরুন্নাহার শিমুল। নিয়মানুযায়ী মনোনয়ন নিশ্চিত হওয়ার পরদিন স্থানীয় পল্লীবিদ্যুত অফিসের সহকারী ক্যাশিয়ারের পদ থেকে পদত্যাগ করে। এখন চাকরিও নেই তার। তিনি জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাহফুজ চৌধুরীর সহধর্মিণী। শিমুল মনোনয়নবঞ্চিত হওয়ায় নেতাকর্মীরা হতাশ হয়ে পড়েছেন। এ জন্য তাকে পুনরায় মনোনয়ন দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কামরুন্নাহার শিমুল মানবকণ্ঠকে বলেন, ‘মনোনয়নের জন্য আমি চাকরি ছেড়ে দিয়েছি। মনোনয়ন ফেরত পেলে আমি উপকৃত হতাম। ইউনিয়নে আমার ব্যাপক জনসমর্থন আছে। প্রায় ৯৫ শতাংশ সমর্থক আমার। তদন্ত করলেই তা জানতে পারবে।’

তিনি বলেন, ‘আমাকে বাদ দেয়ার কারণ হিসেবে মনে হচ্ছে— ওরা (মনোনয়ন বঞ্চিতরা) হয়তো কেন্দ্রীয় নেতাদের ভুল বুঝিয়েছেন। আমি আওয়ামী লীগের কাজ সব সময় করেছি। কিন্তু চাকরির জন্য পদ-পদবি নেয়া হয়নি। চাকরির আগে কলেজ ছাত্রলীগের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছি।’

তৃণমূলে জনপ্রিয়তা থাকায় আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতাকর্মীদের চাপাচাপিতে ওই ইউপি নির্বাচনের জন্য দলের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন কামরুন্নাহার শিমুল। মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভায় যাচাই-বাছাইয়ের পর গত ৮ অক্টোবর তাকে নৌকা প্রতীক নিশ্চিত করে চিঠিও দেয় আওয়ামী লীগ। এজন্য তার এলাকায় হয় মিষ্টি বিতরণ। নেতাকর্মীরাও ভিড় করেন শিমুলের বাড়িতে। এমন পরিস্থিতিতে ৯ অক্টোবর অব্যাহতি দেন চাকরিতেও। তবে সপ্তাহ পার না হতেই মনোনয়নবঞ্চিত হন তিনি। তার পরিবর্তে নৌকা পান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আহসান কবির।

চলমান ইউপি নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে জয়পুরহাট জেলার দুটি উপজেলার সাতটি ইউনিয়নের তফশিল ঘোষণা করা হয়। এর মধ্যে আক্কেলপুর উপজেলার পাঁচটি ও ক্ষেতলাল উপজেলার দুটি। গত ৭ অক্টোবর গণভবনে আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ড ও স্থানীয় সরকার জানপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভায় দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হয়। এতে রুকিন্দীপুর ইউনিয়নে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয় কামরুন্নাহার শিমুলকে। কিন্তু ১৩ অক্টোবর এই ইউনিয়নে নৌকার মাঝির মনোনয়ন পরিবর্তন করা হয়।

অভিযোগ রয়েছে, মনোনয়নবঞ্চিতরা শিমুলের বিরুদ্ধে নামে-বেনামে আওয়ামী লীগের সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে অভিযোগ দায়ের করে। এসব অভিযোগের ভিত্তিতেই শিমুলকে বাদ দিয়ে বর্তমান চেয়ারম্যান ও আক্কেলপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আহসান কবিরকে মনোনয়ন দেয়া হয়।

এদিকে, গত ৯ অক্টোবর থেকে জয়পুরহাট পল্লী বিদ্যুত্ সমিতির সহকারী ক্যাশিয়ার পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয় কামরুন্নাহার শিমুলকে। দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার পরই এই চাকরি থেকে স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নেন তিনি। চাকরিতে যোগ দেয়ার আগে তিনি জয়পুরহাট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। কামরুন্নাহার শিমুলের শ্বশুর বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম গোলাম রসুল চৌধুরী। ৭৫-এর ১৫ আগস্টের পর তাকে গ্রেফতার করে বগুড়া জেলখানায় বন্দি করা হয়। জেলখানা থেকে ১৯৭৭ সালে রুকিন্দীপুর ইউপি নির্বাচনে বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচত হন।


poisha bazar

ads
ads