২৪ ঘণ্টায় বরিশাল বিভাগে ১৬ জনের মৃত্যু


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ৩০ জুলাই ২০২১, ১১:১৬

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে বরিশাল বিভাগে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের মধ্যে করোনায় ৮জন ও উপসর্গ নিয়ে ৮জন মারা গেছেন। একই সময় এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৩৮ জন।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের বিভাগীয় পরিচালক ডা. বাসুদেব কুমার দাস।

তিনি জানান, ২৪ ঘণ্টায় বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের করোনার আইসোলেশন ওয়ার্ডে উপসর্গ নিয়ে ৮জন মারা যান। এবং করোনা ওয়ার্ডে মারা যান করোনায় আক্রান্ত ৪ জন। এছাড়া বিভাগের বিভিন্ন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনায় আক্রান্ত হয়ে চারজনের মৃত্যু হয়েছে।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া আটজনের মধ্যে পটুয়াখালীর পাঁচজন, পিরোজপুরের দুইজন ও বরগুনায় একজন রয়েছেন। সব মিলিয়ে বরিশাল বিভাগে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৬১ জনে।

একই সময় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৩৮ জন। এ নিয়ে বিভাগে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩২ হাজার ৮২২ জনে। তাদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৮ হাজার ৮৫৮ জন।

আক্রান্তদের মধ্যে বরিশাল জেলায় নতুন ২৩১ জন নিয়ে মোট ১৩ হাজার ৭৬১ জন, পটুয়াখালীতে নতুন ১২৩ জন নিয়ে মোট ৪ হাজার ২৫২ জন, ভোলায় নতুন ১৪৩ জনসহ মোট ৩ হাজার ৬৫৮ জন, পিরোজপুরে নতুন ৮৪ জনসহ মোট ৪ হাজার ৩১৮ জন, বরগুনায় নতুন ৮২ জন নিয়ে মোট ২ হাজার ৮৫৬ জন ও ঝালকাঠিতে নতুন ৭৫ জন নিয়ে মোট ৩ হাজার ৯৭৭ জন রয়েছেন।

এদিকে, শেবাচিম হাসপাতালের পরিচালকের দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় শুধু বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের করোনার আইসোলেশন ওয়ার্ডে উপসর্গ নিয়ে আটজনের এবং করোনা ওয়ার্ডে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। যা নিয়ে শুধু শেবাচিম হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডেই উপসর্গ নিয়ে ৭৭০ জন এবং করোনা ওয়ার্ডে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ২৯৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করা ৭৭০ জনের মধ্যে ১০৭ জনের কোভিড টেস্টের রিপোর্ট এখনও হাতে পাওয়া যায়নি।

ওই হাসপাতাল পরিচালক কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় (শুক্রবার) সকাল পর্যন্ত শেবাচিমের করোনার আইসোলেশন ওয়ার্ডে ২৯ জন ও করোনা ওয়ার্ডে ২৪ জন ভর্তি হয়েছেন। করোনা ও আইসোলেশন ওয়ার্ডে এখন ৩২৩ জন চিকিৎসাধীন। তাদের মধ্যে ১৪৩ জন করোনা ওয়ার্ডে এবং ১৮০ জন আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আরটি পিসিআর ল্যাবে মোট ১৯২ জন করোনা পরীক্ষা করান। এর মধ্যে ৪২ দশমিক ৭০ শতাংশ পজিটিভ শনাক্তের হার।

মানবকণ্ঠ/এনএস


poisha bazar

ads
ads