শ্যালিকার রূপে দিওয়ানা হয়ে স্ত্রীকে হত্যা


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২২ জুন ২০২১, ১৯:৪৯

প্রায় ১০ বছর আগে বিয়ে হয় নাসিমা-মফিজ দম্পতির। ভালোই কাটছিল তাদের দাম্পত্য জীবন। কিন্তু হঠাৎ করেই তাদের জীবনে নেমে আসে ঝড়। লণ্ডভন্ড হয়ে যায় সব কিছু। নিজের স্ত্রী নাসিমাকে গলা টিপে হত্যা করে মফিজ।

জানা যায়, সম্প্রতি এক বিয়েতে স্ত্রীর ছোট বোনের রূপ দেখে নিজেকে ঠিক রাখতে পারেনি মফিজ। প্রেমে পড়ে যায় ওই শ্যালিকার। এই নিয়ে কলহের জেরে স্ত্রী নাসিমাকে গলা টিপে হত্যা করে সে।

মঙ্গলবার (২২ জুন) দুপুরে শেরপুর সদর উপজেলার চরমোচারিয়া ইউনিয়নের মুন্সিরচর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত মফিজ উদ্দিন একই গ্রামের সোহরাব আলীর ছেলে।

নিহত নাসিমা বেগমের বাড়ি জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার ডিগ্রিরচর গ্রামে। তার বাবার নাম সিরাজুল ইসলাম। তাদের সংসারে একটি ছেলে ও একটি মেয়ে রয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, কিছুদিন আগে স্ত্রী নাসিমার ছোট বোন তাসলিমার বিয়েতে যান মফিজ। সেখানে নাসিমার আরেক ছোট বোন সেলিনাকে পছন্দ হয় তার। পরবর্তীতে বাড়িতে ফিরে এ নিয়ে নাসিমা-মফিজের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এরই জেরে মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে বড় বোন শিরিনাকে মোবাইলে বিষয়টি জানান নাসিমা। একপর্যায়ে নাসিমাকে মারধর করে মোবাইল কেড়ে নেন মফিজ। এরপর বেলা ১১টার দিকে স্বজনরা জানতে পারে নাসিমা মারা গেছেন।

এ ব্যাপারে শেরপুর সদর থানার এসআই সুরেশ বলেন, নিহত নাসিমার গলার বামপাশে কালচে দাগ রয়েছে। পারিবারিক কলহের জেরে নাসিমাকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন মফিজ। এ ঘটনায় অভিযুক্ত মফিজকে আটক করা হয়েছে।


poisha bazar

ads
ads