সংঘর্ষ ও মৃত্যু দিয়ে ভোটগ্রহণ শেষ, গণনা চলছে

- ছবি: সংগৃহীত

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২১ জুন ২০২১, ১৬:১৫,  আপডেট: ২১ জুন ২০২১, ১৮:৫৪

বিভিন্ন কেন্দ্রে সংঘর্ষ ও মৃত্যুর মধ্য দিয়ে প্রথম ধাপের ২০৪ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ভোটগ্রহণ শেষে গণনা চলছে।

সোমবার (২১ জুন) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টানা চলে ভোটগ্রহণ।

ইউপি নির্বাচনে বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনায় সংঘর্ষ, ককটেল বিস্ফোরণ ও ভোট বর্জনের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় নির্বাচনী সহিংসতায় দুজন নিহত হয়েছেন। তবে শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণের খবরও পাওয়া গেছে।

নির্বাচনে ২০টি ইউপিতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটগ্রহণ হয়েছে। বাকি ১৮৪টিতে ভোটগ্রহণ হয়েছে ব্যালটের মাধ্যমে।

ইসির যুগ্ম-সচিব আসাদুজ্জামান জানান, সোমবার ১৩টি জেলার ৪১টি উপজেলায় ২০৪টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম ধাপের এই নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মোট প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন ৮৫৯ জন, সংরক্ষিত (নারী) সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন দুই হাজার ১৫৪ এবং সাধারণ সদস্য পদে মোট প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছয় হাজার ৯৬০ জন। ইতোমধ্যে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন ২৮ জন।

ইসি সূত্র জানায়, প্রথম ধাপের ইউপি নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা ছিল এক হাজার ৮৩৬টি। মোট ভোট কক্ষের সংখ্যা ১০ হাজার ২৬০টি। এই নির্বাচনে উপজেলা পর্যায়ের বিভিন্ন কর্মকর্তা প্রিসাইডিং ও সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার হিসেবে কাজ করেন।

নির্বাচনে মোবাইল পুলিশের সদস্য ছিলেন ২০৪ জন, স্ট্রাইকিং পুলিশ ছিলেন ৭৪ জন। র‌্যাবের ১২৪টি টিম, বিজিবির ১২৩ প্লাটুনসহ মোট ৫০৮৮টি ফোর্স মোতায়েন ছিল।

অন্যদিকে, ৩৯৩ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ৪১ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে ছিলেন। প্রিসাইডিং ও সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার ছিলেন ১২ হাজার ২০৭ জন। পোলিং অফিসার ছিলেন ২০ হাজার ৫২০ জন।

বরিশালের গৌরনদীতে ককটেল বিস্ফোরণে মৌজা আলী মৃধা (৬৫) নামে একজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও দুইজন। সোমবার (২১ জুন) দুপুর ২টার দিকে খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের কমলাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র-সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

অপরদিকে ভোলার চরফ্যাশনে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে মনির (২৩) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছে শিশুসহ আরও ১৫ জন।

পটুয়াখালীর বাউফলে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে দুইজন আহত হয়েছেন। সোমবার (২১ জুন) সকাল সাড়ে ৮টায় উপজেলার কেশবপুর ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের ভোটকেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

এছাড়া আরও বেশকিছু ইউপিতে ভোটগ্রহণকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ এবং ভোটবর্জনের মতো ঘটনা ঘটেছে।

ইউনিয়ন পরিষদ ছাড়াও লক্ষ্মীপুর-২ সংসদীয় আসনের উপনির্বাচন, ঝালকাঠি ও দিনাজপুরের সেতাবগঞ্জ পৌরসভার ভোটগ্রহণও আজ অনুষ্ঠিত হয়।

এই ভোটের দিন নির্বাচনী এলাকায় কোনো সাধারণ ছুটি ছিল না। ভোটকেন্দ্রসহ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ও কর্মকর্তারা সাধারণ ছুটির আওতায় ছিলেন।

মানবকণ্ঠ/এসকে


poisha bazar

ads
ads