ভূরুঙ্গামারীতে শামছুল হক চৌধুরীর মৃত্যুবার্ষিকীতে স্মরণ সভা


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৯ মে ২০২১, ১৩:২০

মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বরণীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম শামছুল হক চৌধুরীর ১৩তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শামছুল হক চৌধুরী স্মৃতি পরিষদের আয়োজনে স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (৭ মে) ভূরুঙ্গামারী উপজেলা পরিষদ হল রুমে শামছুল হক চৌধুরী স্মৃতি পরিষদের আয়োজনে উক্ত স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ভূরুঙ্গামারী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ও শামছুল হক চৌধুরী স্মৃতি পরিষদের আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা মহিউদ্দিন আহম্মেদের সভাপতিত্বে উক্ত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুড়িগ্রাম জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জাফর আলী এবং প্রধান আলোচক হিসেবে অংশ নেন মরহুম শামছুল হক চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ সহচর ও ভূরুঙ্গামারী সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মো. আব্দুল জলিল সরকার।

এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভূরুঙ্গামারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার দীপক কুমার দেব শর্মা ও ভূরুঙ্গামারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. শাজাহান সিরাজ।

এছাড়াও মরহুম শামছুল হক চৌধুরীর ছেলে, ভূরুঙ্গামারী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুন্নবী চৌধুরীসহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উক্ত আলোচনা ও স্মরণ সভায় বক্তব্য রাখেন।

আলোচনা ও স্মরণ সভা শেষে উপস্থিত ব্যক্তিবর্গ স্বাস্থ্য বিধি মেনে সীমিত পরিসরে মরহুম শামছুল হক চৌধুরীর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে অংশ নেন।

উল্লেখ্য, শামছুল হক চৌধুরী ৩০ জুন ১৯৩৬ রংপুর জেলার ভূরুঙ্গামারী উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ভূরুঙ্গামারী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৫৩ সালে মেট্রিক পাশ করে ১৯৫৫ সালে আনন্দমোহন কলেজ থেকে আইএ পাশ করেন। ১৯৫৭ সালে আনন্দমোহন কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রী অর্জন করেন।

শামছুল হক চৌধুরী মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ছিলেন। ভূরুঙ্গামারী উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক হিসেবে তিনি কর্মজীবন শুরু করেন। তিনি ৬ দফা আন্দোলন, ভাষা আন্দোলন ও বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধেঅংশগ্রহণসহ তৎকালীন সকল রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে সক্রিয় ভূমিকা রাখেন।

১৯৭০ সালের পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনে তিনি জাতীয় পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হয়ে ছিলেন। ১৯৭৩ সালের প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে তৎকালীন রংপুর-১২ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি।

১৯৭৯ সালের দ্বিতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে তৎকালীন রংপুর-১৩ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি কুড়িগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং গভর্ণরেরও দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ভূরুঙ্গামারী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

শামছুল হক চৌধুরী ৭ মে ২০০৮ সালে মৃত্যুবরণ করেন।



poisha bazar

ads
ads