শিবচরের ঘটনায় ইজারাদারসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৪ মে ২০২১, ১২:১৬

মাদারীপুরের শিবচরে পদ্মা নদীতে বালুবোঝাই বাল্কহেডের সাথে স্পিডবোটের ধাক্কায় ২৬ যাত্রীর প্রাণহানির ঘটনায় বোটের মালিক-চালক ও বাংলাবাজার ঘাটের ইজারাদারসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সোমবার (৩ মে) গভীর রাতে শিবচর থানায় মামলাটি করেন নৌ-পুলিশের সহকারি উপ-পরিদর্শক লোকমান হোসেন।

এদিকে সোমবার রাতেই ২৬টি মৃতদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

চলমান লকডাউনের মধ্যে ওই স্পিডবোটটি ‘লুকিয়ে’ চলছিল বলে জানিয়েছেন নৌচলাচল নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষ বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক। নৌ চলাচল বন্ধের মাঝেও স্পিডবোট চালিয়ে দুর্ঘটনা ঘটিয়ে যে প্রাণহানি হয়েছে, এখন তার দায় নিতে চাচ্ছে না কেউ।

তবে নৌচলাচল তদারককারী কর্তৃপক্ষ বিআইডব্লিউটিএ বলছে, ঘাট বন্ধের মধ্যে ওই স্পিডবোট চলা আটকানোর দায়িত্ব ছিল নৌ পুলিশের। এদিকে বিআইডব্লিউটিএ’র ওপর অভিযোগের খড়্গ তুলেছে নৌপুলিশ।

শিবচর থানার ওসি মিরাজ হোসেন জানান, দুর্ঘটনায় ঘাটের ইজারাদার ইয়াকুব বেপারী, বোটের মালিক কান্দু মোল্লা, জহিরুল ইসলাম ও চালক শাহ-আলমের নাম উল্লেখ করে মামলা করা হয়েছে। মামলায় আরও ১০-১২ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য,,বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌপথের কাঁঠালবাড়ী ঘাট এলাকায় সোমবার সকালে দাঁড়িয়ে থাকা বাল্কহেডে ধাক্কা দিয়ে উল্টে যায় যাত্রীবোঝাই স্পিডবোট। সেখান থেকে একে একে উদ্ধার করা হয় শিশুসহ ২৬ জনের মরদেহ। জীবিত উদ্ধার করা হয় পাঁচজনকে।

মানবকণ্ঠ/এমএ






ads
ads